বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > অক্ষয়কে প্রশংসায় ভরিয়ে অন্য তারকাদের কটাক্ষ,ফিল্ম এক্সিবিটরকে সপাট জবাব অভিষেকের
প্রতিবাদী জুনিয়র বি
প্রতিবাদী জুনিয়র বি

অক্ষয়কে প্রশংসায় ভরিয়ে অন্য তারকাদের কটাক্ষ,ফিল্ম এক্সিবিটরকে সপাট জবাব অভিষেকের

  • সময়ের চেয়ে আগেই ছবির শ্যুটিং শেষ করেন অক্ষয়, অন্য তারকাদের উচিত অভিনেতার থেকে প্ল্যান করতে শেখা- ফিল্ম ডিস্ট্রিব্রিউটর অক্ষয় রাঠির এই মন্তব্য একেবারেই না-পসন্দ অভিষেকের। 

অক্ষয় কুমারের প্রশংসা করে অন্য তারকাদের কটাক্ষ করায় ফিল্ম এক্সিবিটর অক্ষয় রাঠির বিরুদ্ধে ফুঁসে উঠলেন অভিষেক বচ্চন। সময়ের চেয়ে দ্রুত শ্যুটিং শেষ করে অক্ষয়, এটা দেখে অন্য অভিনেতাদের শেখা উচিত- এমনটা টুইট বার্তায় জানান দেশের অন্যতম চর্চিত ফিল্ম এক্সিবিটর অক্ষয় রাঠি। পালটা জবাবে অভিষেক জানান সবার মেথড সমান হয় না, এর জন্য অন্যকে ছোট করাটা ঠিক নয়। গোটা বিষয় নিয়ে টুইটারে রীতিমতো বাকযুদ্ধে জড়িয়ে পড়েন দু'জনে।

অক্ষয় রাঠি টুইটারে লেখেন- ‘এটা দুর্দান্ত,অক্ষয় কুমার  গোটা ছবির শ্যুটিং যে সময়ে শেষ করে ফেলেন তা দেখে অন্য অভিনেতাদের শেখা উচিত! বেশিরভাগ সময়ই ওঁনার ছবিও অন্যদের চেয়ে বেশি হিট হয়! আরও অভিনেতাদের উচিত ভালোভাবে ‘প্ল্যান’ করা!'

এই টুইটের জবাবে অভিষেক লেখেন- ‘এটা ঠিক নয়! প্রত্যেকের নিজস্বতা রয়েছে। ভিন্ন ভিন্ন মানুষেরা অনুপ্রেরণা নেয়, ভিন্ন বিষয় থেকে। তাদের কাজের ক্ষেত্রটাও আলাদা হয়’। 

টুইটারে তর্কে জড়ালেন অভিষেক 
টুইটারে তর্কে জড়ালেন অভিষেক 

এই জবাব শুনেও নিজের অবস্থান থেকে সরে আসেননি অক্ষয় রাঠি। পালটা তিনি জানান, এখন একটাই বিষয় ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিকে উদ্ধার করতে পারে সেটা হল চট জলদি ছবি শেষ করা এবং কাজের সুযোগ করে দেওয়া। এই মন্তব্যের সঙ্গেও সহমত নন বচ্চনপুত্র। তিনি বলেন, ভালো কাজ জন্ম দেয় আরও কাজের! শুধুমাত্র ছবি বানাব বলেই ছবি বানানোটা ঠিক নয়। বৃহত্তর প্রেক্ষিতে দেখতে সেটা ইন্ডাস্ট্রির জন্য অধিক ক্ষতিকারক'।

কনটেন্ট কম থাকবার জন্য সিনেমাহলের দরজা বন্ধ হয়ে যেতে পারে এই কথা শুনে অভিষেক বলেন, হ্যাঁ, সেটা মানছি কিন্তু যখন এই কঠিন পরিস্থিতি মানুষ ধীরে ধীরে (ভয় নিয়েই) হলমুখী হচ্ছে তখন খারাপ ছবি তাঁদের মন ভেঙে দিতে পারে, তাঁদের ভিতরের উৎসাহটা শেষ করে দিতে পারে'।

কোয়ালিটি বনাম কোয়ান্টিটির লড়াই
কোয়ালিটি বনাম কোয়ান্টিটির লড়াই

অভিষেক নিজে ভীষণরকমভাবে মন্থরগতিতে কাজ করেন, সেই কারণেই নাকি এই কথা গায়ে লেখেছে অভিনেতার- এমন কটাক্ষও ধেয়ে আসে নেটিজেনদের তরফে। যার জবাবে অভিনেতা বলেন, ‘অতিমারীর সময়ে আমি একটা ওয়েব সিরিজের কাজ শেষ করেছি, একটা ডকুমেন্ট্রি এবং তিনটে ছবির কাজও খতম করেছি। ওয়েব সিরিজ মুক্তি পেয়েছে এবং তাঁর প্রমোশন করেছি, একটা ছবি এবং ডকুমেন্ট্রিও। আমার মনে হয় না স্পিডটা কোনও সমস্যা,মনোভাবটাই আসল’। 

করোনা আবহেই মুক্তি পেয়েছে অভিষেকের প্রথম ওয়েব সিরিজ ‘ব্রিদ : ইনটু দ্য শ্যাডোজ’। এছাড়াও গত মাসেই মুক্তি পেয়েছে অভিনেতার নেটফ্লিক্স ফিল্ম ‘লুডো’। এছাড়াও নিজের কবাডি টিম জয়পুর পিঙ্ক প্যান্থরকে নিয়ে তৈরি তথ্যচিত্র ‘সনস অফ দ্য সয়েল’-এও দেখা মিলেছে জুনিয়র বচ্চনের। 

বন্ধ করুন