বাড়ি > বায়োস্কোপ > ভারতে এলেই গ্রেফতার নোবেল!মোদীর বিরুদ্ধে কুত্সা ছড়ানোয় ত্রিপুরায় দায়ের এফআইআর
ফেসবুক পোস্টে চাওয়ালা বলে মোদীকে কটাক্ষ করেছিলেন নোবেল 
ফেসবুক পোস্টে চাওয়ালা বলে মোদীকে কটাক্ষ করেছিলেন নোবেল 

ভারতে এলেই গ্রেফতার নোবেল!মোদীর বিরুদ্ধে কুত্সা ছড়ানোয় ত্রিপুরায় দায়ের এফআইআর

  • ফেসবুকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে নিয়ে কুরুচিকর মন্তব্য করায় নোবেল-ম্যানের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের হয়েছে ত্রিপুরায়।

বিতর্ক পিছু ছাড়ছে না বাংলাদেশি গায়ক মাইনুল আহসান নোবেলের। ফেসবুকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে নিয়ে কুরুচিকর মন্তব্য করায় এই নোবেল-ম্যানের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের হল ত্রিপুরায়। সংবাদ প্রতিদিন সূত্রে খবর, ভারতে আসলেই গ্রেফতার করা হবে নোবেলকে জানিয়েছে ত্রিপুরা পুলিশ। ত্রিপুরার বিলোনিয়ার বাসিন্দা সুমন পালের অভিযোগের ভিত্তিতে নোবেলের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৫০০, ৫০৪, ৫০৫ ও ১৫৩ ধারায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। সেই অভিযোগের প্রতিলিপি পাঠানো হয়েছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক,বাংলাদেশ হাই কমিশন ও জেলা পুলিশ সুপারের কাছে। যার জেরে ভারতের মাটিতে পা দিলেই গ্রেফতার হবেন নোবেল। 

ঘটনার সূত্রপাত নোবেলর একটি ফেসবুক পোস্ট ঘিরে। গত শনিবার ফেসবুকে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে লক্ষ্য করে অশালীন মন্তব্য করেন নোবেল,তাঁকে ‘চায়ের দোকানদার', ‘চাওয়ালা’ ইত্যাদি বলে কটাক্ষ করেন এই গায়ক। দেশের প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে তামাশাটা মেনে নিতে পারেনি ভারতবাসী। নোবেলের এ হেন আচরণে তাই গর্জে উঠেন নেটিজেনরা।বিতর্কের ঝড় উঠতেই ড্যামেজ কন্ট্রোলে নেমে ক্ষমাও চান এই বাংলাদেশি গায়ক। ডিলিট করে দেন সেই ফেসবুক পোস্ট। জানান পুরোটাই নাকি প্রমোশ্যান্যাল গিমিক! তাঁর আসন্ন গানের প্রচার। তবুও এই বিতর্কিত গায়কের যুক্তিতে মন গলে নি ভারতবাসীর।

ফেসবুকে ঠিক কী লিখেছিলেন নোবেল? 'স্ক্যান্ডাল আমার হবে না তো কার হবে। চায়ের দোকানদার নরেন্দ্র মোদির? কে দেখবে চাওয়ালার স্ক্যান্ডাল? অন্যদিকে আমাকে নগ্ন দেখার জন্য তো বিরাট স্যাটিসফেকশন। তাই না? নাহলে কি স্ক্যান্ডার এত ভাইরাল হয়?'

নোবেলের ফেসবুক পোস্ট 
নোবেলের ফেসবুক পোস্ট 

রবিবার সন্ধ্যায় একটি ভিডিয়ো বার্তা দিয়ে ক্ষমা চান নোবেল। বলেন পুরো ঘটনাই নাকি তাঁর আপকামিং গান তামাশার প্রচারণার কৌশল মাত্র! প্রমোশনের জন্য প্রতিবেশী রাষ্ট্রের প্রধানমন্ত্রীকে অপমান! মেনে নিতে পারছেন না কেউই।

দুদিন আগেই র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটেলিয়ন (র‌্যাব) নোবেলকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডেকে পাঠায়। প্রতিবেশি রাষ্ট্রের প্রধামন্ত্রীকে নিয়ে তাঁর এই মন্তব্যের কারণ জানতে চায় (র‌্যাব)। সেখানেও নোবেল জানায়, এর জন্য ক্ষমাপ্রার্থী সে। সোশ্যাল মিডিয়ায় এই পোস্ট করার উদ্দেশ্য তাঁর গানের প্রচার ছাড়া আর কিছুই না।

প্রসঙ্গত জি বাংলার মিউজিক রিয়ালিটি শো সারেগামাপা থেকে প্রচারের আলোয় উঠে আসেন এই বাংলাদেশি গায়ক। এরপর অনুপম রায় সঙ্গে জুটি বেঁধে প্লে-ব্যাকও করেছেন, গান গেয়েছেন শান্তনু মৈত্রর সুরেও। কিন্তু হামেশাই বিতর্কিত মন্তব্য করে বিতর্কে জড়ানোটা নোবেলের বরাবরের অভ্যাস। এর আগে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরকে নিয়েও বাঁকা মন্তব্য করেছিলেন নোবেল।ক'দিন আগেই বাংলাদেশের মিউজিক ইন্ডাস্ট্রিকে প্রায় চ্যালেঞ্জই ছুঁড়ে দিয়েছিলেন নোবেল। তাঁর দাবি গত ১০ বছরে সে দেশের মিউজিক ইন্ডাস্ট্রিতে নাকি ভালো মিউজিক তৈরি হয়নি। সম্প্রতি নোবেলের তৃতীয় বিয়ের খবর এবং তাঁর স্ত্রীকে মারধরের অভিযোগের খবর সামনে আসাতেও ফের বিতর্কের ঝড় উঠেছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। 

 

বন্ধ করুন