বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > হাথরাস গণধর্ষণ নিয়ে যোগী সককারের ওপর আস্থা রেখে দোষীদের শাস্তি দাবি কঙ্গনার
যোগী সরকারের উপর আস্থা কঙ্গনার
যোগী সরকারের উপর আস্থা কঙ্গনার

হাথরাস গণধর্ষণ নিয়ে যোগী সককারের ওপর আস্থা রেখে দোষীদের শাস্তি দাবি কঙ্গনার

  • হাথরাস গণধর্ষণ কাণ্ড নিয়ে প্রশ্নের মুখে যোগী সরকার, উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রীর পদত্যাগের দাবিতে সরব বিরোধিরা। 

উত্তরপ্রদেশের হাথরাসের গণধর্ষণ কাণ্ডের জেরে রীতিমতো উত্তাল দেশ। এরই সাথে আবারও প্রশ্নের মুখে যোগী প্রশাসন এবং সে রাজ্যের নারী নিরাপত্তা । এই আবহেই উত্তপ্রদেশ সরকারের পাশে দাঁড়িয়ে দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির আবেদন জানালেন অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাওয়াত । মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের প্রতি নিজের আস্থার কথা জানিয়ে বুধবার টুইট করেছেন কঙ্গনা । দাবি করেছেন ২০১৯ সালে হায়দরাবাদ গণধর্ষণ কাণ্ডের অভিযুক্তদের মতনই এক্ষেত্রেও যেন দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা করে প্রশাসন ।

হাথরাসের ১৯ বছর বয়সী দলিত তরুণীকে গণধর্ষণের ঘটনার বীভৎসতায় ইতিমধ্যেই আবার দেশবাসীর মনে ফিরেছে নির্ভয়া কাণ্ডের স্মৃতি । আপাতত গ্রেফতার হয়েছেন চার অভিযুক্তই । উল্লেখ্য সকলেই তাঁরা উচ্চবর্ণের । অভিযুক্তদের কঠোরতম শাস্তির আশ্বাসও দেওয়া হয়েছে রাজ্য এবং কেন্দ্রীয় প্রশাসনের তরফেই । 

এই প্রসঙ্গে সোশ্যাল মিডিয়াতে কঙ্গনা লেখেন , ‘আমার যোগী আদিত্যনাথের সরকারের উপর আস্থা রয়েছে। হায়দরাবাদের পশু চিকিৎসক তরুণী প্রিয়াঙ্কা রেড্ডিকে গণধর্ষণ পূর্বক হত্যা করে দেহ জ্বালিয়ে দিয়েছিল অভিযুক্তরা । আর তারপর সেই একই জায়গায় তাদেরকে এনকাউন্টার করা হয়েছিল । এই ক্ষেত্রেও দোষীদের ঠিক একই ভাবে চরম, দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি শাস্তি চাই’।

১৪ই সেপ্টেম্বর অত্যন্ত আশঙ্কাজনক অবস্থায় দিল্লির সফদরজং হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল নিগৃহীতাকে। গত মঙ্গলবার সকালে হাসপাতালেই তাঁর মৃত্যু হয় । অভিযোগ ধর্ষণে বাধা দেওয়ায় প্রবল মারধর করা হয়েছিল ওই তরুণীকে। শ্বাসরোধ করে মেরে ফেলার চেষ্টাও করে অভিযুক্তেরা। নৃশংস অত্যাচারে জিভেও গভীর ক্ষত তৈরি হয়েছিল তরুণীর। গুরুতর জখম হয়েছিল শিরদাঁড়া ও ঘাড়।হাসপাতাল সূত্রে জানা যায় নির্যাতিতার পা দু’টি সম্পূর্ণ হাতও আংশিক পক্ষাঘাতগ্রস্ত হয়ে গিয়েছিল ।

হাথরাসের পুলিশ সুপার আগেই জানিয়েছিলেন , অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে গণধর্ষণ, খুনের চেষ্টা, তফসিলি জাতি ও জনজাতি আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে । এবার যোগ হল খুনের চার্জ । চলছে জেরা । সমস্ত তথ্যপ্রমাণ জোগাড় করা হয়েছে। চার্জশিট তৈরির কাজ চলছে। অবিলম্বে সমস্ত তথ্য ফার্স্ট ট্র্যাক কোর্টে জমা দেওয়া হবে।

বন্ধ করুন