বাড়ি > বায়োস্কোপ > অসন্তোষের বাতাবরণ টলি পাড়ায়! বিমার কাগজ এখনও হাতে আসে নি
আর্টিস্ট ফোরামের এক অনুষ্ঠানে। ছবি সোশ্যাল মিডিয়া।
আর্টিস্ট ফোরামের এক অনুষ্ঠানে। ছবি সোশ্যাল মিডিয়া।

অসন্তোষের বাতাবরণ টলি পাড়ায়! বিমার কাগজ এখনও হাতে আসে নি

লকডাউন উঠে যাওয়ার পর বর্তমান আনলক নিউ নর্মাল পরিস্থিতিতে সুরক্ষা বিধি মেনে এক মাসের ওপর টেলিভিশনের ধারাবাহিকের শুটিং চলছে জোর কদমে। শোনা গিয়েছিল ৩৫০ জন শিল্পীর বিমার কাগজ তৈরি হয়ে গিয়েছে। কিন্তু সেই বিমার কাগজ শিল্পীরা হাতে পান নি।

টলি পাড়ায় চাপা অশান্তির পরিবেশ। যদিও সরাসরি কেউ মুখ খুলতে চান নি। প্রায় তিন মাস শুটিং বন্ধ থাকার পর গত মাস থেকে আবার শুটিং শুরু হয়েছে টলিগঞ্জে। টানা এতগুলো দিন কাজ বন্ধ থাকার ফলে আর্থিকভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েন সকল অভিনেতা অভিনেত্রী ও কলাকুশলীরা। সেই সকল কলাকুশলীদের জন্য ফেডারেশন  ৭৫% মজুরি আদায় করতে সক্ষম হয়েছে বলে সোশ্যাল মিডিয়ায় জানান ফেডারেশনের সভাপতি অরূপ বিশ্বাস। অথচ সূত্রের খবর সেই টাকা এখনও কেউ হাতে পান নি। স্বভাবতই  অসন্তোষ দেখা দিয়েছে। এর পাশাপাশি করোনার কারণে  শিল্পী কলাকুশলীদের জন্য যে ২৫ লক্ষ টাকার স্বাস্থ্য বিমার ব্যবস্থা করা হয়েছিল তার কাগজপত্রও নাকি এখনও তৈরি হয় নি। এদিকে লকডাউন উঠে যাওয়ার পর বর্তমান আনলক নিউ নর্মাল  পরিস্থিতিতে সব রকম সুরক্ষা বিধি মেনে  এক মাসের ওপর হয়ে গেল টেলিভিশনের ধারাবাহিকের শুটিং চলছে জোরকদমে। এক্ষেত্রেও শোনা গিয়েছিল ৩৫০ জন শিল্পীর বিমার কাগজ তৈরি হয়ে গিয়েছে। কিন্তু সেই বিমার কাগজ শিল্পীরা হাতে পান নি। 

জানা গিয়েছে কাগজপত্র তৈরির কাজ চলছে। মেডিকেল টেস্ট হতে কিছুটা সময় লাগছে , এবং আরও কিছু কাজ বাকি রয়েছে, তাই সময় লাগছে টাকা পেতে। এই দেরির কারণেই  খানিকটা অসন্তোষের বাতাবরণ। গত সপ্তাহে সব গিল্ডের প্রতিনিধিদের নিয়ে ফেডারেশন বৈঠক করে। সেই বৈঠকের পর ফেডারেশনের পক্ষ থেকে জানানো হয়  যে,  চ্যানেলের সঙ্গে এই বিষয় নিয়ে কথা হয়েছে। লকডাউনের সময় যে সকল ধারাবাহিকের কাজ বন্ধ ছিল সেই সব ধারাবাহিকের সমস্ত কলাকুশলীরা ২৪ জুলাইয়ের মধ্যে তাঁদের  টাকা তাঁরা পেয়ে যাবেন, এবং বিমার কাগজ তৈরি হতে যে কাজ গুলো বাকি রয়েছে সেই কাজও এক সপ্তাহের মধ্যে সেরে ফেলা হবে। এই ইতিবাচক  বার্তার পর আশা করা যায় টলিপাড়ায় কিছুটা হলেও স্বস্তির পরিবেশ ফিরবে।

বন্ধ করুন