বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > ZNMD: ছবির এই দৃশ্যের শ্যুটিংয়ে ফারহান, অভয়কে রীতিমতো মেরেই ফেলছিলেন হৃত্বিক!
জিন্দেগি না মিলেগি দোবারা-র দৃশ্যে
জিন্দেগি না মিলেগি দোবারা-র দৃশ্যে

ZNMD: ছবির এই দৃশ্যের শ্যুটিংয়ে ফারহান, অভয়কে রীতিমতো মেরেই ফেলছিলেন হৃত্বিক!

  • দেখুন কীভাবে সেই অ্যাক্সিডেন্ট ঘটছিল? রইল সেই ভিডিয়ো।

শীঘ্রই মুক্তির দশ বছর সম্পূর্ণ করবে ‘জিন্দেগি না মিলেগি দোবারা’। ছবি সম্পর্কে স্মৃতিচারণ ঘটালেন অভিনেতা অভয় দেওল। ছবি পরিচালনার দায়িত্বে ছিলেন জোয়া আখতার। অভিনয়ে ছিলেন হৃত্বিক রোশন, ফারহান আখতার, ক্যাটরিনা কাইফ এবং কাল্কি কোয়েচলিন। ছবির শ্যুটিং করতে গিয়ে একবার ভেবেছিলেন মরেই যাবেন, সেই ঘটনাই মনে করলেন অভয়। 

টাইগার বেবি ফিল্মের সোশ্যাল মিডিয়া পেজে পোস্ট করা একটি ভিডিয়োতে অভয় ছবিটিতে কাজ করার কথা স্মরণ করছিলেন। সেখানে উঠে এসেছিল কীভাবে এক শিক্ষিকা দ্বারা ফারহান এবং জোয়ার স্কুলে বেশ কয়েকটা মজার ঘটনা অনুপ্রাণিত করেছিল।

তিনি আরো মনে করেন, তাঁদের সঙ্গে নিয়ে হৃত্বিক যখন গাড়ি পার্ক করছিল আর পিছনের সিটে ফারহান বসা ছিল। কিন্তু হ্যান্ডব্রেক টানতে ভুলে গিয়েছিল হৃত্বিক। গাড়িটা ধীরে ধীরে নীচে একটা খাদের দিকে গড়িয়ে যাচ্ছিল, তার আগেই হৃত্বিক পিছন দিকে হ্যান্ডব্রেক মারে। ফারহানকে দেখা যায় ব্যাকসিট থেকে লাফিয়ে গাড়ির বাইরে বেরিয়ে যেতে।

অভয়ের ভয়েস ওভারে শোনা যায়, ‘দৃশ্যের শ্যুটিং শুরুর আগেই হৃত্বিক প্রায় আমাকে আর ফারহানকে মেরেই ফেলছিল। ফারহান খুব দ্রুত ছিল। ও তাড়াতাড়ি লাফিয়ে গাড়ির বাইরে বেরিয়ে যায়। আমি তো ওখানে বসে বসে ভাবছিলাম, আমি তো মরেই যাব এবার’। ভিডিয়োতে সেই দৃশ্যটাকে দেখানো হয়েছে। 

ভিডিয়ো শেয়ার করে ক্যাপশনে লেখা, ‘আমরা রূপোলি পর্দার জন্য ছবি তৈরি করি। তবে ছোট ছোট গল্পগুলো বড় পর্দায় সবসময় আসে না। এখানে আমাদের 'অফ দ্য রেকর্ড' সিরিজটি উপস্থাপন করা হয়েছে। যেখানে টাইগার বেবি তাঁদের সেরা দৃশ্য তৈরি করেছে। তাঁদের মনস্তত্ত্বে সেই মুহুর্তে কী ছিল এবং কেন এই বিশেষ দৃশ্যটি সর্বদা তাদের জন্য অবিস্মরণীয় থাকবে’।

তিন ছোটবেলার বন্ধুদের নিয়ে ছবি ‘জিন্দেগি না মিলেগি দোবারা’। তাঁরা ইউরোপে তিন সপ্তাহের জন্য একটা রোড ট্রিপে গিয়েছিলে। ট্রিপে তাঁরা নতুন চরিত্র এবং অ্যাডভেঞ্চারের মুখোমুখি হয়েছিলেন।

অভয় একবার ইনস্টাগ্রামের পোস্টে পুরস্কার অনুষ্ঠানগুলিতে সহায়ক চরিত্র হিসাবে স্লটেড হওয়ায় হতাশা প্রকাশ করেছিলেন। কারণ ছবিটি অনেকগুলো গল্প নিয়ে তৈরি ছিল। তিনি লিখেছিলেন, ‘আমি উল্লেখ করতে চাই পুরস্কারের প্রায় সমস্ত জায়গায় আমাকে এবং ফারহানকে প্রধান চরিত্র থেকে সরিয়ে দিয়েছে এবং আমাদেরকে 'সহায়ক অভিনেতা' হিসাবে মনোনীত করেছে। হৃত্বিক ও ক্যাটরিনা 'প্রধান চরিত্রে অভিনেতা' হিসেবে মনোনীত হয়েছিল’।

 

বন্ধ করুন