বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > Why #BoycottVikramVedha trending: আমিরকে সমর্থন করে মহাফাঁপরে হৃতিক! ‘বিক্রম বেদা’ বয়কটের ডাক টুইটারে

Why #BoycottVikramVedha trending: আমিরকে সমর্থন করে মহাফাঁপরে হৃতিক! ‘বিক্রম বেদা’ বয়কটের ডাক টুইটারে

বিপাকে হৃতিক

#BoycottVikramVedha Trends on Twitter: আমিরের গুণগান করে ফেঁসে গেলেন হৃতিক। ‘সেপ্টেম্বরে তোমাকে মজা দেখাবো’, সরাসরি হুমকি নেটিজেনদের। 

এবার ট্রোলারদের নিশানায় অভিনেতা হৃতিক রোশন। নিজের ব্যক্তিগত জীবনের জন্য সম্প্রতি সংবাদ শিরোনামে রয়েছে তারকা। আচমকাই একদম ভিন্ন কারণে ‘ওয়ার’ তারকা। সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় ‘লাল সিং চড্ডা’ আমিরের ঢালাও প্রশংসা করেন হৃতিক। আমির ছবি দেখে মুগ্ধ তেমনটাই জানান রাকেশ রোশন পুত্র। আর সেটাই পছন্দ হয়নি নেটিজেনদের একাংশের। মূলত যে সকল সোশ্যাল মিডিয়া ইউজার ‘বয়কট লাল সিং চড্ডা’ রব তুলেছিল এবার তাঁদের মুখেই ‘বিক্রম বেদা’কে বয়কটের ডাক। #BoycottVikramVedha- এই হ্যাশট্যাগ এখন ট্রেন্ডিং-এ।

আমির খানের ছবি মারাত্মকভাবে বয়কটের শিকার হয়েছে। ট্রেড অ্যানালিস্টরাও এক কথায় মেনে নিচ্ছে এই সত্যিটা। কিন্তু লাল সিং চড্ডার সমর্থনে এগিয়ে এসেছেন বহু বলিউড তারকাই। এবার এক এক করে সেই সকল তারকাদের বয়কটের ডাক উঠছে সোশ্যালে। আমিরকে সমর্থনের জন্য অনেকে যেমন খোলাখুলি হৃতিকের সমালোচনা করেছে, তেমনই কেউ কেউ প্রশ্ন তুলেছে- ‘দ্য কাশ্মীর ফাইলস’ ছবি নিয়ে কেন মুখ ফুটে একটা কথাও বলেননি অভিনেতা?

টুইটারে ‘লাল সিং চড্ডা’র রিভিউ দেন হৃতিক। তিনি লেখেন, ‘জাস্ট লাল সিং চড্ডা দেখলাম। আমি এই ছবির হৃদস্পন্দনটা অনুভব করেছি। প্লাস-মাইনাস বাদ দিয়ে বলছি, এটা দুর্দান্ত ছবি। এটা কোনওভাবেই মিস করো না বন্ধুরা! এক্ষুনি যাও আর চটপট দেখে ফেল। এটা খুব খুব সুন্দর’।

ব্যাস, হৃতিকের এই টুইট দেখে চটে যায় এক শ্রেণির দর্শক। ‘দ্য কাশ্মীর ফাইলস’-এর প্রচারে কেন নামেননি হৃতিক, সেই সময় ঘুমোচ্ছিলেন নাকি? প্রশ্ন করেন একজন। অপর একজন অভিনেতাকে সরাসরি হুমকি দিয়ে লেখেন, ‘হ্যাঁ, শীঘ্রই তুমিও এর স্বাদ পাবে, সেপ্টেম্বর মাস আসছে। আর তখন আমির লিখবে- বিক্রম বেদা দুর্দান্ত সিনেমা’।

১৯৯০ সালে কাশ্মীর থেকে কাশ্মীরি পণ্ডিতদের নির্মমভাবে উৎখাত করবার কাহিনি উঠে এসেছে পরিচালক বিবেক অগ্নিহোত্রীর ‘দ্য কাশ্মীর ফাইলস’-এ। হিন্দুবাদীদের কাছে সমাদৃত হয়েছে এই ছবি। বাম মনস্ক এবং লিবারেলরা এই ছবিকে ‘প্রোপাগান্ডা ফিল্ম’ বলে কটাক্ষ করতে ছাড়েনি। কিন্তু তাতে ছবির বক্স অফিসে কোনও ফারাক পড়েনি। সকলে অবাক করে কাশ্মীরের রাজনৈতিক প্রেক্ষাপটে তৈরি এই ছবি ‘ব্লকবাস্টার’-এর তকমা পেয়েছে।

অন্যদিকে আমির খান ও করিনা কাপুর খানের অতীতের বিতর্কিত মন্তব্যের জেরে শুরু থেকেই ‘লাল সিং চড্ডা’কে ঘিরে বয়কট রব। নিজের পুরোনো মন্তব্যের জন্য ক্ষমাও চেয়ে নিয়েছেন আমির, জানিয়েছেন ভুলভাবে ব্যাখা করা হয়েছে তাঁর মন্তব্যকে তবুও কিছুতেই মন মানছে না নেটিজেনদের।

মুক্তির প্রথম পাঁচ দিনে মাত্র ৪৬-৪৮ কোটি টাকার টিকিট বিক্রি হয়েছে এই ছবির। যার জেরে কপালে চিন্তার ভাঁজ আমির খানের। ঘনিষ্ঠ সূত্রের খবর, রীতিমতো ভেঙে পড়েছেন আমির খান।

যেহেতু ছুটির দিন ইতিমধ্যেই পার হয়ে গিয়েছে, তাই মঙ্গলবার থেকে ছবির কালেকশন মারাত্মক কমবে। হিন্দুস্তান টাইমসের সূত্র বলছে, এই হারে চলতে থাকলে আগামী সপ্তাহের মধ্যেই ব্যবসা গুটিয়ে ফেলতে হবে আমির খানকে। পাশাপাশি ১০০ কোটির গণ্ডি পার করতে পারবে না ‘লাল সিং চড্ডা’।

বন্ধ করুন