বাড়ি > বায়োস্কোপ > করোনা মিলিয়ে দিল হৃত্বিক-সুজানকে! মহামারীর সময়ে এক ছাদের তলায় প্রাক্তন জুটি
এখন হৃত্বিকের বাড়িতেই থাকছেন সুজান
এখন হৃত্বিকের বাড়িতেই থাকছেন সুজান

করোনা মিলিয়ে দিল হৃত্বিক-সুজানকে! মহামারীর সময়ে এক ছাদের তলায় প্রাক্তন জুটি

  • করোনা কবলিত কঠিন পরিস্থিতিতে প্রাক্তন স্বামীর সঙ্গে এক ছাদের তলাতেই থাকছেন সুজান খান। দুই ছেলে, রিহান ও রিদানের জন্যই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন হৃত্বিক রোশনের প্রাক্তন স্ত্রী।

কঠিন পরিস্থিতি কখনও কখনও কাছের মানুষকে দূরে ঠেলে দেয়,কখনও আবার প্রিয়জনের মিলিয়েও দেয়। করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে ঘরবন্দি গোটা দেশ। ভারতে মহারাষ্ট্রের পরিস্থিতি সবচেয়ে খারাপ। রাজ্যে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা শতাধিক। এমন কঠিন পরিস্থিতিতে দুই প্রাক্তন থাকছেন এক ছাদের তলায়। মঙ্গলবার মধ্যরাত থেকে দেশজুড়ে ২১ দিনের লকডাউন ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, এহেন পরিস্থিতিতে নিজের বাড়ি ছেড়ে প্রাক্তন স্বামীর বাড়িতে থাকছেন সুজান খান। কারণটা অবশ্যই তাঁদের দুই পুত্র রিহান ও রিদান। এইরকম সময়ে দুজনেই ছেলেদের কাছ ছাড়া করতে চান না, সেই কারণেই এই সিদ্ধান্ত। দাম্পত্য সম্পর্ক ভাঙলেও তাঁরা দায়িত্বশীল বাবা-মা। সঙ্গে বন্ধুত্বের বাঁধনটাও বোধহয় খুব বেশি আলগা হয়নি।


বুধবার হৃত্বিক নিজেই ইনস্টাগ্রাম পোস্টে সুজানের এই সিদ্ধান্তের কথা জানান। প্রাক্তন পত্নীকে নিয়ে একটি দীর্ঘ পোস্ট লেখেন ওয়ার তারকা। হৃত্বিক লেখেন, এটা অভাবনীয় আমার জন্য যে এইরকম একটা সময়ে আমাকে আমার সন্তানকে ছেড়ে থাকতে হবে! যখন গোটা দেশ লকডাউনের আওতায়। এইরকম অনিশ্চয়তাপূর্ন এক পরিস্থিতি, যখন হয়ত বেশ কয়েকমাস আমাদের সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে পাশাপাশি কয়েক সপ্তাহ লকডাউনের আওতায় থাকতে হবে তখন সবাইকে একজোট হতে দেখে মন ভালো হয়ে যাচ্ছে। সারা পৃথিবী যখন মানবতার কথা বলছে, একজোট হয়ে লড়াইয়ের কথা বলছে তখন সেটা শুধুমাত্র একটা ভাবনায় সীমাবদ্ধ থাকে না, বিশেষত সেই সব বাবা-মায়েদের ক্ষেত্রে যারা তাদের সন্তানদের দায়িত্ব ভাগ করে নেন। কেমনভাবে সন্তানদের নিজেদের কাছে রাখতে হবে, একে অপরের অধিকারে হস্তক্ষেপ না করে সেটা বোঝবার কারণ অন্যেরও নিজের সন্তানের উপর সমান অধিকার রয়েছে।


নিজের বাড়ি ছেড়ে প্রাক্তন স্বামীর বাড়ি গিয়ে থাকার সুজানের এই বোল্ড সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানিয়ে হৃত্বিক লেখেন, এটা প্রিয় সুজানের ছবি- আমার প্রাক্তন স্ত্রী। যে সাময়িকভাবে স্বেচ্ছায় নিজের বাড়ি ছেড়ে এখানে এসেছে যাতে আমাদের সন্তানের বাবা-মার মধ্যে কোনও একজনকে অনির্দিষ্ট সময়ের জন্য না ছেড়ে থাকতে হয়। ধন্যবাদ সুজান.. এতটা সহায়ক এবং পারস্পরিক বোঝাপড়া রাখবার জন্য আমাদের কো-পেরেন্টিংয়ের এই যাত্রাপথে।

২০০০ সালের ডিসেম্বরে দীর্ঘদিনের বান্ধবী সুজানের সঙ্গে সাত পাকে বাঁধা পড়েছিলেন হৃত্বিক। তাঁদের দুই পুত্র রিহান ও রিদান। ২০১৪ সালে দাম্পত্য সম্পর্কে ইতি টানেন এই জুটি। তবে দুই ছেলের দায়িত্ব পালনে সর্বদাই একে অপরকে সাহায্য করেন এই এক্স-কপল। বিদেশে ছুটি কাটানো থেকে, মুভি ডেট কিংবা ফ্যামিলি ডিনার-সব সময়ই হৃত্বিকের পাশেই থাকেন সুজান।

দিন কয়েক আগে তো এমন গুঞ্জনও বি-টাউনে শোনা গিয়েছিল ফের একবার বিয়ের বাঁধনে বাঁধা পড়ার কথা ভাবছেন এই জুটি। যদিও সেই জল্পনায় জল ঢেলে সুজান টুইট করেন,'আমি সকলকে অনুরোধ করছি আপনারা অনুমান লাগানো বন্ধ করুন। হৃত্বিকের সঙ্গে কোনওদিনও পুর্নমিলন হবে না, তবে হ্যাঁ আমরা দুজনেই ভালো বাবা-মা হব। সেটাই আমাদের মূল লক্ষ্য'।


বন্ধ করুন