বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > Kangana Ranaut On Gandhi: ‘আমি গান্ধীবাদী নই’ নেতাজির প্রশংসা করে গান্ধীর সমালোচনা, ফের বিস্ফোরক কঙ্গনা!
‘আমি গান্ধীবাদী নই’, বিস্ফোরক কঙ্গনা।

Kangana Ranaut On Gandhi: ‘আমি গান্ধীবাদী নই’ নেতাজির প্রশংসা করে গান্ধীর সমালোচনা, ফের বিস্ফোরক কঙ্গনা!

দিল্লির রাজপথের নাম বৃহস্পতিবার থেকে পাল্টে ‘কর্তব্য পথ’ করা হয়েছে। আর তারই উদ্বোধনে হাজির হয়েছিলেন কঙ্গনা রানাওয়াত। সেখানেই বিস্ফোরক সাক্ষাৎকার অভিনেত্রীর।

৮ সেপ্টেম্বর প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী সেন্ট্রাল ভিস্তা অ্যাভিনিউ প্রকল্পের উদ্বোধন করেন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অংশ নিতে এসেছিলেন দেশের একাধিক নেতা ও তারকারা। এদিন প্রধানমন্ত্রী মোদী নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসুর মূর্তি উন্মোচন করেন। অনুষ্ঠানে পৌঁছেছিলেন বলিউড অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাওয়াতও। অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়ার আগে মিডিয়ার সঙ্গেও কথা বলেন কঙ্গনা।

কঙ্গনা বলেন 'আমি সবসময় এটি বলে আসছি এবং আজও বলব যে আমরা যে স্বাধীনতা পেয়েছি তা নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসু এবং বীর সাভারকরের মতো বিপ্লবীদের কারণে। এই স্বাধীনতা আমরা ভিক্ষা করে পাইনি, স্বাধীনতা পেয়েছি নিজেদের অধিকারে, এর জন্য লড়াই করতে হয়েছে আমাদের। আরও পড়ুন: ‘চিত্রগুপ্ত’ অজয়ের যম দুয়ারে সিদ্ধার্থ, হাসতে হাসতে বিচার হবে ধরাধামে করা পাপের

এরপর ‘কুইন’ অভিনেত্রী আরও বলেন, ‘আমি একথাও সবসময় বলে এসেছি যে আমি নেতা সুভাষচন্দ্রের অনুগামী, আমি গান্ধীবাদী নই। এটা হয়তো অনেক লোককে বিরক্ত করবে যে আমি এই ধরনের কথা বলছি। প্রত্যেকেরই নিজস্ব একটা আদর্শ আছে। আমি বিশ্বাস করি যে, নেতাজি এবং সাভারকরজির মধ্যে লড়াইয়ের আগুন লুকিয়ে আছে। এক গালে চড় দিলে আরেকটা গাল এগিয়ে দেওয়া, বা অনশন লড়াইয়ের একটা দিক দেখায়। লাখ লাখ মানুষের রক্ত ​​ঝরেছে।’ আরও পড়ুন: দক্ষিণের ছবির সেটে হাজির ছিলেন রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ, এসেছিলেন ক্যামেরার সামনেও

এখানেই থেমে থাকেননি। সুভাষচন্দ্র বসুর প্রশংসা করে অভিনেত্রী আরও বলেন যে, নেতাজি ভারতের দুর্দশার দিকে সারা বিশ্বের দৃষ্টি নিবদ্ধ করেছিল। তিনি বিশ্বযুদ্ধে অংশ নিয়েছিলেন বা নিজের সেনাবাহিনী তৈরি করেছিলেন। যা ব্রিটিশদের উপর চাপ তৈরি করেছিল। সুভাষচন্দ্র ক্ষমতার জন্য ক্ষুধার্ত ছিলেন না, স্বাধীনতার জন্য ক্ষুধার্ত ছিলেন

অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাউতের এই বক্তব্যে অবনেকেই চটেছে। আজাদ নামের একজন নেট-নাগরিক লিখেছেন, 'কেউ যেন তাকে বলে যে নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসু নিজে মহাত্মা গান্ধীকে বাপু উপাধি দিয়েছিলেন'। মীনা নামের এক ব্যবহারকারী লিখেছেন, ‘ম্যাডাম, কয়েকদিন আগে আপনি বলছিলেন স্বাধীনতা 2014 সালের পর অর্জিত হয়েছে। এখন বলছেন নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসু স্বাধীনতা এনেছিলেন। বলতে কী চান!’

বন্ধ করুন