বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > 'নেপো-কিড নই, মেধার ভিত্তিতে কাজ পেয়েছি' অকপট গোবিন্দা কন্যা
মেয়ে টিনার সঙ্গে গোবিন্দা
মেয়ে টিনার সঙ্গে গোবিন্দা

'নেপো-কিড নই, মেধার ভিত্তিতে কাজ পেয়েছি' অকপট গোবিন্দা কন্যা

  • ২০১৫ সালে ‘সেকেন্ড হ্যান্ড হাসবেন্ড’ ছবিতে বলিউডে ডেবিউ হয় টিনার।

নেপোটিজম নিয়ে বর্তমানে সরগরম বলিউড। এরই মধ্যে গোবিন্দা কন্যা টিনা আহুজা দাবি করেন তিনি কখনোই স্টার-কিড হওয়ার দরুন কোনো অতিরিক্ত সুবিধা পাননি বাবার থেকে। বরং বলিউডে তিনি নিজের যোগ্যতার ভিত্তিতে কাজ পেয়েছেন। সেক্ষেত্রে তাঁকে নেপো-কিড বললে তিনি মানতে নারাজ।

২০১৫ সালে বলিউডে ডেবিউ হয় টিনার। পরিচালক স্মিপ কাং-এর ‘সেকেন্ড হ্যান্ড হাজব্যান্ড’ ছবিতে গিপি গ্রেওয়ালের বিপরীতে অভিনয় করেন টিনা। ছবিতে অভিনয় করেছিলেন গীতা বসরা এবং ধর্মেন্দ্র। তবে বক্স অফিসে মুখ থুবড়ে পড়েছিল এই ছবি।

এক সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে টিনা জানিয়েছেন, বাবা গোবিন্দা কখনোই তাঁকে কাজ পাওয়ার জন্য সাহায্য করেননি। যদি তিনি নেপোটিজমের মাধ্যমে কাজ করতেন তাহলে ইতিমধ্যে ৩০ থেকে ৪০টা ছবি সই করে ফেলতেন। 

তিনি আরো বলেন, জীবনে তিনি যা যা চেয়েছেন তাঁর পাশে বাবা গোবিন্দাকে পেয়েছেন। কিছু বলার আগেই গোবিন্দা তাঁর সেটাকে মেনে নিয়েছে। তবে কেউ তাঁকে নেপো-কিড বললে মানতে নারাজ অভিনেত্রী। টিনার কথায়, ‘আমি আমার মেধার ভিত্তিতে কাজ পেয়েছি। যা অফার পেয়েছি সবটাই আমার নিজের চেষ্টায়। উনি (গোবিন্দা) আমাকে এগুলো পেতে কোনও সাহায্য করেননি। তবে আমি কী করছি না সেই বিষয় সবই জানত। সব খোঁজখবর রাখত। কিন্তু এর মানে আমার কর্মক্ষেত্রের পরিসরে কখনো প্রবেশ করারও চেষ্টা করেননি। বাবা কখনো আমাকে ছবিতে কাজের জন্য কাউকে ফোন করেননি। তাই আমাকে নেপো-কিড বলা চলে না’। 

তবে গোবিন্দা টিনার জন্য একটি সিনেমা প্রযোজনা করতে চান। বেশ কয়েকবার টিনাকেও সেকথা জানিয়েছেন। সে বিষেয় অভিনেত্রী বলেন, ‘আমার কাজে প্রচণ্ড উৎসাহ দেন তিনি। তাই দেখা যাক, ভবিষ্যতে হয়তো আমরা এটাও করতে পারি’।

নব্বইয়ের দশকে অন্যতম সেরা কমেডি স্টার ছিলেন গোবিন্দা। ২০০০ সালের পর থেকে ধীরে ধীরে তাঁর কেরিয়ারের গ্রাফ নীচের দিকে নামতে শুরু করে। ২০১৯ সালে শেষবার তাঁকে ‘রঙ্গিলা রাজা’ ছবিতে অভিনয় করতে দেখা যায়। যদিও বক্স অফিসে ব্যর্থ হয়েছিল সেই ছবি। 

বন্ধ করুন