বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > Katrina Kaif: 'সাত মেয়ের জন্ম দেওয়ার সময় কী ভেবেছিলে?' একা মা'কে সটান প্রশ্ন ক্যাটরিনার

Katrina Kaif: 'সাত মেয়ের জন্ম দেওয়ার সময় কী ভেবেছিলে?' একা মা'কে সটান প্রশ্ন ক্যাটরিনার

মায়ের লড়াই প্রসঙ্গে ক্যাটরিনা

Katrina Kaif: ছোটথেকেই বাবাকে পাশে পাননি, ক্যাটরিনার জীবনে ‘শক্তিশালী চরিত্রের পুরুষ’-এর অভাব কি পূরণ করতে পেরেছেন স্বামী ভিকি কৌশল? একা মায়ের লড়াই নিয়ে অকপট ক্যাটরিনা।

আজ বলিউডের প্রথম সারির অভিনেত্রী ক্যাটরিনা কাইফ। টিনসেল টাউনের অন্যতম 'হাইয়েস্ট পেইড' নায়িকা ক্যাট। তবে ছোটবেলায় অভিনেত্রীর জীবন কিন্তু চ্যালেঞ্জে ভরপুর ছিল। আট জন ছেলেমেয়েকে একা মানুষ করেছেন ক্যাটরিনার মা। বাবার সঙ্গ ছোট থেকেই পাননি ক্যাটরিনা ও তাঁর অন্য সাত ভাই-বোন। বাবার শূন্যতা মেয়েবেলায় কুড়ে কুড়ে খেয়েছে ক্যাটকে, সেই অভাববোধের কথা ২০১৯ সালে এক সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন ‘ফোন ভূত’ নায়িকা। বাবার পাশে না থাকাটা যে কোনও মেয়েকে দুর্বল করে দেয়, মনে করেন ক্যাটরিনা। আট সন্তানকে নিয়ে মা, সুজান টারকোটের লড়াই কতটা চ্যালেঞ্জিং ছিল তা বুঝতে বেশ সময় লেগেছিল অভিনেত্রীর, তবে পরবর্তীতে যখনই একা হাতে মায়ের ঝড়ঝাপটা সামলানোর কথা ভাবেন ক্যাট, শ্রদ্ধায় মাথানত হয়ে যায় তাঁর। 

জীবনবোধ নিয়ে গত কয়েক বছর ধরে মায়ের সঙ্গে খুব খোলামেলা আলোচনা করেছেন ক্যাটরিনা, যা জীবনের কঠিন ধাপগুলো বুঝতে আরও বেশি সাহায্য করেছে তাঁকে। আট সন্তানের জন্ম দেওয়া, তারপর এক তাঁদের মানুষ করা-ক্যাটরিনা তো মা'কে এও প্রশ্ন করে বসেন ‘এতগুলো মেয়ের জন্ম দেওয়ার সময় কী ভাবছিলে?’ ক্যাটরিনার কথায়-'আটজন সন্তানের জন্ম দেওয়া, তারপর একা হাতে তাঁদের মানুষ করা- আমি সত্যি জানি না মা কীভাবে সবটা পারল। আমার মাকে যত দেখেছি আশ্চর্য হয়েছিল। সব সমস্যা থেকে মা আমাদের আগলে রেখেছিল।…. গত কয়েক বছরে জীবন নিয়ে মা অনেক কিছু বলেছে, যা আমাকে খুব সাহায্য় করেছে। বাইরে থেকে যতটুকু দেখা যায়, তার ভিতরে থাকে আরও অনেকখানি। যখন দূর থেকে অতীতের সেইদিন ফিরে দেখি, বুঝতে পারি মায়ের জন্য সবকিছু কতখানি কঠিন ছিল'। 

ছেলেবেলাতেই মা-বাবা'কে আলাদা হতে দেখেছেন। জীবনে একজন ‘ফাদার ফিগার’-এর অভাব বরাবর তাড়া করে বেরিয়েছে ক্যাটকে। অভিনেত্রীর ব্যক্তিগত জীবনকে কতটা প্রভাবিত করেছে মায়ের ভাঙা সংসার? নিজের জীবনসঙ্গী বাছবার ক্ষেত্রে কি আরও বেশি করে সতর্ক করে তুলেছে? ক্যাটরিনার জবাব ছিল, ‘আমার তা মনে হয় না। সকলে বলে তুমি সৌভাগ্যবান যদি নিজের প্রকৃত বন্ধুর সংখ্যা কর গুণে বলতে পারো। আমার বিশ্বাসযোগ্য, অন্দরমহলের মানুষজন আমাকে খুব ভালোভাবে জানে। তাঁরা আমার ভয়, আমার নিরাপত্তহীনতা সবটা জানে। অবশ্যই বাবা-মা’র বিচ্ছেদ আমাকে প্রভাবিত করেছে। 

২০২১ সালের ডিসেম্বর মাসে ভিকি কৌশলের সঙ্গে সাত পাকে বাঁধা পড়েন ক্যাটরিনা। আপতত সুখী গৃহকোণ অভিনেত্রীর। পঞ্জাবি পরিবারের ‘বহুরানি’ হওয়ার দায়িত্ব অক্ষরে অক্ষরে পালন করছেন এই বিদেশিনী। ক্যাটরিনার শেষ রিলিজ ‘ফোন ভূত’ বক্স অফিসে মুখ থুবড়ে পড়ে, পরবর্তীতে তাঁকে দেখা যাবে সলমন খানের ‘টাইগার ৩’-তে। এছাড়াও অভিনেত্রীর হাতে রয়েছে ‘মেরি ক্রিসমাস’। এই ছবিতে তাঁর নায়ক বিজয় সেতুপতি। 

 

বন্ধ করুন