বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > ‘ক্যামেরার সামনের সম্পর্কগুলোকে….’, সিডকে ভাইফোঁটা দেওয়ার ভাবনাই নেই কৌশাম্বীর!

‘ক্যামেরার সামনের সম্পর্কগুলোকে….’, সিডকে ভাইফোঁটা দেওয়ার ভাবনাই নেই কৌশাম্বীর!

সিদ্ধার্থের সঙ্গে বাস্তবে সম্পর্কের সমীকরণ কেমন? 

Kaushami-Adrit: অনস্ক্রিন দিদিয়া কৌশাম্বীর সঙ্গে উচ্ছেবাবু আদৃতের প্রেম নিয়ে চর্চা কম নয়। এর মাঝেই মোদক বাড়ির মেয়ে জানালো অনস্ক্রিন ভাইকে বাস্তবে ভাইফোঁটা দেবেন না তিনি। 

অনস্ক্রিন ‘দিদিয়া’ কৌশাম্বীর সঙ্গে উচ্ছেবাবুর প্রেম সম্পর্ক নিয়ে টেলিপাড়ায় চর্চার শেষ নেই। কিন্তু নিজেদের প্রেম নিয়ে সরাসরি একটা শব্দও খরচ করতে না-রাজ আদৃত-কৌশাম্বী। কিন্তু দুজনের ঘনিষ্ঠতা কিছুতেই নজর এড়ায় না। সামনেই ভাইফোঁটা, সেই প্রসঙ্গেই প্রশ্ন রাখা হয়েছিল মোদক পরিবারের ‘দিদিয়া’র কাছে। সিদ্ধার্থ, স্যান্ডি, সোম- তিন ভাই নন্দার। গল্প অনুযায়ী সিদ্ধার্থের পিসতুতো দিদি নন্দা। 

অনস্ক্রিনে ভাইবোনের খুনসুটি সবার মন জিতে নিয়েছে। কিন্তু বাস্তবে কেমন এই সম্পর্কের সমীকরণ। কৌশাম্বীর সাফ জবাব, ‘আমরা সবাই পেশাদার। তাই ক্যামেরার সামনের সম্পর্কগুলোকে পর্দার সামনেই রাখতে চাই। বাস্তবায়িত করার কোনও বাসনা নেই।’ আনন্দবাজার অনলাইনকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে কৌশাম্বী আরও জানান, তাঁর নিজের দাদা রয়েছে এবং আরও এক দাদা আছে- কেবলমাত্র তাঁদেরই ভাইফোঁটা দেবেন তিনি। সিড বা সোমদের আলাদা করে ফোঁটা দেওয়ার কোনও ভাবনাই নেই তাঁর। 

অন্যদিকে মাস কয়েক আগে এক সাক্ষাৎকারে আদৃত বলেছিলেন, ছোটবেলা থেকেই তাঁর বোনের শখ। আর মিঠাইয়ের সুবাদে সেই আশা পূর্ণ হয়েছে তাঁর। নিপা আর শ্রী-কে ইঙ্গিত করেই এই কথা বলেন আদৃত। যে ভূমিকায় দেখা যায় ঐন্দ্রিলা সাহা এবং দিয়া মুখোপাধ্যায়কে। পর্দার মতো বাস্তবেও দুই বোনের প্রতি খুব প্রোটেকটিভ আদৃত। তিনি জানিয়েছিলেন, ‘ছোট থেকেই বোনের শখ ছিল আমার। জি বাংলা আমাকে দুজন বোন দিয়েছে।’ সুতরাং আদৃত-কৌশাম্বী দুজনের কথাতেই স্পষ্ট তাঁদের মধ্যেকার ভাইবোনের সম্পর্কটা শুধু লাইট-ক্যামেরা-অ্যাকশনের গণ্ডিতেই আবদ্ধ। 

নিজের ব্যক্তিগত জীবনটা আড়ালে রাখাই পছন্দ নায়কের। এর আগে সুপ্রিয়ার সঙ্গে দীর্ঘদিন সম্পর্কে থাকলেও কোনওদিন সেই নিয়ে খোলাখুলি কথা বলেননি আদৃত। এবারও একই ট্রেন্ড ফলো করছেন তিনি। আদৃতের কথায় কৌশাম্বী তাঁর ‘ভালো বন্ধু’। তবে কৌশাম্বী-আদৃতের অফস্ক্রিন কেমিস্ট্রির চর্চা সর্বত্রই। 

 

বন্ধ করুন