বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > ৫০ লাখের ঘোড়া! ‘প্রেমিকা’ জ্যাকলিনকে দামী উপহারে ভরিয়ে দিয়েছেন কোটি টাকার প্রতারক সুকেশ চন্দ্রশেখর
জ্যাকলিন ও সুকেশ 

৫০ লাখের ঘোড়া! ‘প্রেমিকা’ জ্যাকলিনকে দামী উপহারে ভরিয়ে দিয়েছেন কোটি টাকার প্রতারক সুকেশ চন্দ্রশেখর

  • অভিনেত্রী জ্যাকলিন ফার্নান্দিজ ও নোরা ফতেহি-কে কোটি টাকার উপহার দিয়েছেন কনম্যান সুকেশ! চার্জশিটে কোর্টকে জানাল ইডি। 

কোটি কোটি টাকা প্রতারণার অভিযোগ রয়েছে ব্যবসায়ী সুকেশ চন্দ্রশেখরের বিরুদ্ধে। এই কনম্যান গত কয়েকমাস ধরেই সংবাদ শিরোনামে রয়েছেন বলিউড সুন্দরী জ্যাকলিন ফার্নান্দিজের সঙ্গে প্রেম চর্চার জেরে। এবার এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটের তরফে ২০০ কোটি টাকার আর্থিক তছরুপের মামলায় ৭০০০ পাতার চার্জশিট ফাইল করা হল সুকেশ চন্দ্রশেখর, তাঁর স্ত্রী লীনা মারিয়া পল এবং অন্য জয় অভিযুক্তের বিরুদ্ধে। জানা গিয়েছে, ইডি-র চার্জশিটে উল্লেখ রয়েছে সুকেশ চন্দ্রশেখর নিজের মুখে কবুল করেছেন অভিনেত্রী জ্যাকলিন ফার্নান্দিজকে ৫২ কোটি টাকা মূল্যের একটি ঘোড়া উপহার দিয়েছিলেন সুকেশ, এখানেই শেষ নয় বিড়ালপ্রেমী জ্যাকলিনের মন জিতকে নায়িকাকে একটি ৯ লাখ টাকার বিড়ালও কিনে দেন সুকেশ।

তবে শুধু জ্যাকলিন নন, অভিনেত্রী নোরা ফতেহি-র কথাও উঠে এসেছে সুকেশের জবানবন্দিতে। কয়েক কোটি টাকা প্রতারণার দায়ে অভিযুক্ত সুকেশ দামী গাড়ি উপহার দিয়েছেন ‘কুসু কসু’, ‘দিলবর’-সহ একাধিক আইটেম ডান্সের সঙ্গে দর্শক মনে ঝড় তোলা নোরাকে। এই আর্থিক কেলেঙ্কারি মামলায় ইতিমধ্যেই ইডির জেরার মুখে পড়েছেন দুই অভিনেত্রীই। 

ইতিমধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়ায় এই প্রতারক ব্যবসায়ীর সঙ্গে জ্যাকলিনের অন্তরঙ্গ মুহূর্তের একাধিক ছবি ফাঁস হয়েছে। যাতে যথেষ্ট অস্বস্তিতে ‘কিক’ নায়িকা। একটি ছবিতে বাথরুমের ভিতর আয়নার সামনে দাঁড়িয়ে সুকেশের গালে গাঢ় চুমু খেতে দেখা গিয়েছে জ্যাকলিনকে, অপর একটি ছবিতে সুকেশকে জ্যাকলিনকে ভালোবাসায় ভরিয়ে দিতে দেখা গিয়েছে। 

অভিযুক্ত সুকেশের আইনজীবী অনন্ত মালিক আগেই দাবি করেছেন, জ্যাকলিনের সঙ্গে প্রেম সম্পর্ক ছিল বিবাহিত ব্যবসায়ী সুকেশের। যদিও জ্যাকলিনের মুখপাত্র পালটা বিবৃতি দিয়ে জানান, ‘তদন্তকারীদের সঙ্গে সবরকম সহযোগিতা করছেন জ্যাকলিন, উনি এই মামলার অভিযুক্ত নন। ওনাকে সাক্ষী দেওয়ার জন্য ডাকা হয়েছে। জ্যাকলিনের সঙ্গে অভিযুক্তের ব্যক্তিগত সম্পর্কের খবর ভুয়ো ও ভিত্তিহীন’। কিন্তু জ্যাকলিনের দাবি কার্যত মিথ্যা প্রমাণ করে দিয়েছে এইসব ছবি। এই ছবিগুলি চলতি বছর এপ্রিল থেকে জুন মাসের মধ্যেকার, বলছে ইন্ডিয়া টুডে-তে প্রকাশিত এক রিপোর্ট। 

সেখানে আরও দাবি করা হয়েছে চারবার চেন্নাইতে জ্যাকলিনের সঙ্গে দেখা করেছেন সুকেশ, এমনকি অভিনেত্রীর জন্য প্রাইভেট জেটের বন্দোবস্তও করে দেন তিনি। এমনটাও জানা গিয়েছে তিহার জেল থেকে জ্যাকলিনকে ফোন করতেন সুকেশ, পাঠাতেন চকোলেট, ফুলের তোড়াও। কিন্তু সুকেশের আসল পরিচয় জানা ছিল না জ্যাকলিনের। অন্যদিকে নোরা দাবি করেছেন, এক অনুষ্ঠানে পারফর্ম করবার জন্য সুকেশের স্ত্রী তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ করেছিল এবং প্রতারক দম্পতির সঙ্গে কোনও ব্যক্তিগত সম্পর্ক নেই তাঁর।

ইডি-কে সুকেশ জানিয়েছে জেলে বসেই এই তোলাবাজি চক্র চালাতে তাকে মদত জোগাত জেলের পাঁচ কর্মী। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে তিহার জেলের পাঁচ আধিকারিককেও গ্রেফতার করেছে ইডি। সুকেশের স্ত্রী লীনার অঙ্গুলি হেলনেই এই ব্যবসা চলত দাবি ইডির। মামলার তদন্ত চালকালীন সুকেশ ও লীনার একাধিক সম্পত্তিতে হানা দিয়ে ৬টি বিলাসবহুল গাড়ি বাজেয়াপ্ত করেছে কেন্দ্রীয় সংস্থা। সুকেশ ও তাঁর স্ত্রী তোলাবাজির টাকা হাওয়ালা মাধ্যমে বিদেশে পাচার করত বলে আগেই জানিয়েছে দিল্লি পুলিশ। 

বন্ধ করুন