বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > কঙ্গনার বিরুদ্ধে মানহানির মামলা ঠুকলেন জাভেদ আখতার
এবার জাভেদের নিশানায় কঙ্গনা 
এবার জাভেদের নিশানায় কঙ্গনা 

কঙ্গনার বিরুদ্ধে মানহানির মামলা ঠুকলেন জাভেদ আখতার

  • ‘জাভেদ আখতার আমাকে আত্মহত্যায় প্ররোচনা দিয়েছেন’, রিপাবলিক টিভিকে দেওয়া সাক্ষাত্কারে বলেছিলেন কঙ্গনা। অভিনেত্রীকে শাসানো, ভয় দেখানোর অভিযোগও এনেছিলেন ফ্যাশন নায়িকা। 

এবার কঙ্গনার বিরুদ্ধে এবার অপরামূলক অভিযোগ আনলেন কবি,গীতিকার জাভেদ আখতার। এক সর্বভারতীয় নিউজ চ্যানেলের মঞ্চে জাভেদ আখতারের বিরুদ্ধে মানহানিকর মন্তব্যের জন্য কঙ্গনার বিরুদ্ধে অন্ধেরির ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মানহানির মামলা দায়ের হল, জানিয়েছে সংবাদ সংস্থা এএনআই। 

সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যু মামাসয় কোনওরকম কারণ ছাড়াই অভিযোগকারীর (জাভেদ আখতার) নাম জড়িয়েছেন কঙ্গনা বলা হয়েছে অভিযোগের প্রতিলিপিতে। জাভেদ আখতার বলেন সোশ্যাল মিডিয়াতেও কয়েক লক্ষ মানুষ ওই ভিডিয়ো দেখেছেন এবং অনান্য সংবাদ মাধ্যমও ওই ভিডিয়োর বক্তব্য নিয়ে খবর করেছে যা তাঁর জন্য অপমানজনক এবং ভারতীয় দণ্ডবিধি অনুসারে তা মানহানিকর। 

মঙ্গলবার সকালে কঙ্গনা ও তাঁর দিদি রঙ্গোলি চান্দেলের উদ্দেশে দ্বিতীয়বার সমন জারি করল মুম্বই পুলিশ। ১০ নভেম্বর তাঁদের বান্দ্রা থানায় হাজিরা দিতে বলা হয়েছে। ১৭ অক্টোবর কঙ্গনা ও রঙ্গোলির বিরুদ্ধে আদালতের নির্দেশে এফআইআর দায়ের করেছিল মুম্বই পুলিশ। সোশ্যাল মিডিয়া পোস্টের মাধ্যমে দুই ধর্মের মানুষের মধ্যে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্টের চেষ্টা করেছেন কঙ্গনা ও তাঁর দিদি রঙ্গোলি চান্দেল এমনই অভিযোগ রয়েছে তাঁদের বিরুদ্ধে। গত ২৬ ও ২৭ অক্টোবর বান্দ্রা থানায় হাজিরা দিতে বলা হয়েছে তাঁদের. তবে এই মুহূর্তে তাঁরা হিমাচল প্রদেশে রয়েছেন, এবং পরিবারে বিয়ে চলতে এই অজুহাতে সেই সমন এড়িয়ে যান কঙ্গনা-রঙ্গোলি। 

২২ অক্টোবর আরও একটি মামলা দায়ের হয়েছে কঙ্গনা রানাওয়াতের বিরুদ্ধে, ২২ অক্টোবর মুম্বইয়ের এক আইনজীবী কঙ্গনার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন ‘মুম্বই পুলিশের বিরুদ্ধে মানহানিকর মন্তব্য করবার জন্য’। 

বলিউডের অন্যতম ঠোঁটকাটা ব্যক্তিত্ব হিসাবেই বিখ্যাত কঙ্গনা রানাওয়াত। রিপাবলিক টিভিকে দেওয়া এক সাক্ষাত্কারে জুলাই মাসে গীতিকার,লেখক জাভেদ আখতারের বিরুদ্ধে  বিস্ফোরক অভিযোগ এনেছিলেন কঙ্গনা। হৃত্বিক রোশনের সঙ্গে কঙ্গনা রানাওয়াতের ঝামেলার খবর বলিউডে কারুর অজানা নয়। সেই বিবাদের সময় নাকি নিজেদের দীর্ঘদিনের বন্ধু রোশন পরিবারের পাশে দাঁড়িয়ে কঙ্গনাকে রীতিমতো ‘শাসিয়েছিলেন’ জাভেদ আখতার। তিনি পরিষ্কার ভাষায় কঙ্গনাকে বলেছিলেন হৃত্বিকের কাছে ক্ষমা চেয়ে নিতে, না হলে কঙ্গনার কাছে আত্মহত্যা করা ছাড়া অন্য কোনও রাস্তা খোলা থাকবে না।

আদালতে এই মামলার শুনানি হবে ৩রা ডিসেম্বর।

বন্ধ করুন