বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > হৃত্বিককে নিয়ে ‘যৌনতার ঘোরে' থাকেন কঙ্গনা, অর্ণবের ফাঁস চ্যাট নিয়ে জবাব নায়িকার
কঙ্গনা-হৃত্বিক 
কঙ্গনা-হৃত্বিক 

হৃত্বিককে নিয়ে ‘যৌনতার ঘোরে' থাকেন কঙ্গনা, অর্ণবের ফাঁস চ্যাট নিয়ে জবাব নায়িকার

  • অর্নব গোস্বামীর হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট ফাঁস কেলেঙ্কাকি, অভিনেতা হৃত্বিক রোশনের সঙ্গে যৌন সম্পর্কের তাগিদে লিপ্ত কঙ্গনা। সরব অভিনেত্রী। 

অবশেষে নীরবতা ভাঙলের অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাওয়াত। রিপাবলিট টিভির এডিটর ইন চিফ অর্নব গোস্বামীর ফাঁস হওয়া হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাটে উঠে এসেছে বলিউডের ‘কন্ট্রোভার্সি কুইন’ ও হৃত্বিকের বহুচর্চিত সম্পর্কের অধ্যায়ও। সেই নিয়ে জবাব দিলেন অভিনেত্রী। চ্যাটে অর্নব দাবি করেছেন, কঙ্গনার ‘সিজোফ্রেনিয়া' এবং ‘এরোটোম্যানিয়া’ রয়েছে। এমনকি অভিনেতা হৃত্বিক রোশনের সঙ্গে সারাক্ষণ 'যৌন সম্পর্কের ঘোরে' থাকেন কঙ্গনা। 

বুধবার বেশ কয়েকঘন্টার জন্য অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাওয়াতের ভ্যারিফাইয়েড টুইটার অ্যাকাউন্টের ওপর সাময়িক নিষেধাজ্ঞা জারি হয়। ‘তাণ্ডব’ ওয়েব সিরিজ নিয়ে নির্মাতাদের বিরুদ্ধে উস্কানিমূলক টুইটের মাধ্যমে হিংসা ছড়ানোর জেরে এই সিদ্ধান্ত নেয় টুইটার কর্তৃপক্ষ। এই নিয়ে টুইটার কর্তৃপক্ষকে একহাত নেন নায়িকা। সেই টুইট রি-টুইট করে কঙ্গনাকে কটাক্ষ করেন রোহিনী সিং নামের এক জনৈক। 

এর জবাবেই অর্ণবের ফাঁস চ্যাট নিয়ে মুখ খোলেন কঙ্গনা রানাওয়াত। তিনি হিন্দিতে লিখেছেন, ‘রোহিনীজি,  উচ্চস্তরের ব্যক্তিরা ছোটখাটো বিষয়ে কথা বলে না। ক্ষুদ্র মানুষেরা ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র বিষয় নিয়ে কথা বলে। নিজের মতো করে অল্পবিস্তর গল্প লিখুন। অর্নবজি সেটাই বলেছে যা হৃত্বিক তাঁকে বলেছে। আমি তাঁর সঙ্গে ২০১৯ সালে প্রথম দেখা করি। ২০১৭ সালে হৃত্বিকের সঙ্গে সাক্ষাৎকার নিয়ে সে লজ্জিত। বুঝেছ?’

কঙ্গনার টুইট
কঙ্গনার টুইট

অন্য একটি টুইটে অভিনেত্রী জানিয়েছেন, ‘এর থেকে বেশি চটকদার গল্প চাও তুমি? কেন হৃত্বিক এটা বলেছে, কেন সম্পর্কের মধ্যে তিক্ততা এসেছে, কী করে অর্নব হৃত্বিকের বন্ধু হওয়ার পর আমার বন্ধু হল, ইত্যাদি? এই লিব্রু গসিপ প্রিয় মানুষরা দেশের পরিবেশকে ধ্বংস করছে। লুকিয়ে মোরব্বা খাওয়া এবং সবার ইমেল ও চ্যাট পড়া বন্ধ করুন’।

কঙ্গনার টুইট
কঙ্গনার টুইট

এরপর টুইটারে অভিনেত্রী আরও লেখেন, ‘এখন পর্যন্ত আমি কারও ফাঁস হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট, ইমেল, চিঠি, ছবি অথবা ভিডিও বা অন্যান্য কিছু নিজের চোখে দেখিনি, কখনও সাহসে কুলায়নি। এটি নৈতিক মূল্যবোধ, চরিত্র এবং আত্ম-সম্মানের বিষয়। লিব্রুরা (লিবারেল-এর অপভ্রংশ) বুঝতে পারবে না’।

কঙ্গনার টুইট
কঙ্গনার টুইট

গোটা ঘটনার সূত্রপাত্র ২০১৬ সালে এক সাক্ষাত্কারে কঙ্গনা হৃত্বিককে ‘সিলি এক্স’ বলে খোঁচা দেওয়ার পর থেকেই। এরপরই ই-মেল চালাচালির ঘটনায় পুলিশে অভিযোগ দায়ের করেন হৃত্বিক। গত বছর ডিসেম্বরে ২০১৬ সালের কঙ্গনা-হৃত্বিক ‘ই-মেল’ বিতর্ক মামলা মুম্বইয়ের সাইবার সেল থেকে গেল ক্রাইম ব্রাঞ্চের ইন্টালিজেন্স ইউনিটের হাতে।

২০১০ সালে ‘কাইট’ ছবিতে অভিনয় করেন হৃত্বিক-কঙ্গনা। এরপর ২০১৩ সালে কৃশ-থ্রি ছবিতে অভিনয়ের সময়ই ঘনিষ্ঠতা বাড়ে দু-জনের। ২০১৪ সালে করণ জোহরের পার্টিতে অন্তরঙ্গ অবস্থায় কঙ্গনা-হৃত্বিকের একটি ছবিও ভাইরাল হয়। কঙ্গনা বারবার হৃত্বিকের সঙ্গে প্রেম সম্পর্ক থাকার কথা দাবি করে এলেও সেটি উড়িয়ে দিয়েছেন অভিনেতা। হৃত্বিক দাবি করে এসেছেন তাঁদের মধ্যে শুধুমাত্র প্রফেশনাল সম্পর্ক।

বন্ধ করুন