বাড়ি > বায়োস্কোপ > কাশ্মীরি পণ্ডিতের হত্যার ঘটনায় কেন চুপ বলিউড?প্রশ্ন তুললেন কঙ্গনা
কঙ্গনা রানায়ত (ছবি-ইনস্টাগ্রাম)
কঙ্গনা রানায়ত (ছবি-ইনস্টাগ্রাম)

কাশ্মীরি পণ্ডিতের হত্যার ঘটনায় কেন চুপ বলিউড?প্রশ্ন তুললেন কঙ্গনা

  • জম্মু-কাশ্মীরের এক পঞ্চায়েত প্রধান অজয় পণ্ডিতকে গুলি করে হত্যার ঘটনায় বলিউডের নীরবতা নিয়ে প্রশ্ন তুললেন কঙ্গনা।
  • ‘জেহাদি অ্যাজেন্ডা’ থাকলে তবেই বলিউড তারকাদের মানবতা বাইরে আসে, অভিযোগ কঙ্গনার।

ফের কড়া ভাষায় বলিউড তারকাদের বিঁধলেন কঙ্গনা রানায়ত। সোমবার কাশ্মীরের অন্তনাগকে জঙ্গিদের হাতে খুন হন সেখানকার এক পঞ্চায়েত প্রধান অজয় পণ্ডিত।সন্ত্রাসবাদীদের হাতে এই কাশ্মীরি পণ্ডিত হত্যার তীব্র নিন্দা জানানোর পাশাপাশি বলি সেলেবদের একহাত নিলেন কুইন তারকা। বলিউড তারকাদের নাকি এজেন্ডাই হল ‘নির্বাচিত ধর্মনিরপেক্ষতা’,অভিযোগ কঙ্গনার। বুধবার রাতে টিম কঙ্গনা রানায়তের তরফে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করা প্রায় দু মিনিট দীর্ঘ ভিডিয়োয় কঙ্গনা প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদীর কাছে অজয় পণ্ডিতের হত্যার ঘটনায় কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার আর্জি জানান। ভিডিয়োতে একটি প্ল্যাকার্ড হাতেও দেখা যায় কঙ্গনাকে। যেখানে লেখা রয়েছে, আমি হিন্দুস্তান,আমি লজ্জিত। অজয় পণ্ডিতের জন্য বিচার চাই। অনন্তনাগে হত্যা…জম্মু-কাশ্মীর।

কঙ্গনার কথায়, অনান্য সময় তো প্ল্যাকার্ড হাতে কিংবা মোমবাতি,পাথর, পেট্রোল বম্ব হাতে , বলিউড সেলেবরা কিংবা বুদ্ধিজীবীরা রাস্তায় বেরিয়ে পড়েন দেশকে জ্বালাতে কিংবা কোনও ইস্যুকে আন্তর্জাতিক মহলের সামনে তুলে ধরতে। কিন্তু তাদের এই মানবতা তখনই বাইরে আসে যখন এর পিছনে জেহাদি অ্যাজেন্ডা থাকে, কাউকে বিচার পাইয়ে দিতে দিতে এদের মুখ থেকে একটা শব্দও বার হয় না।.. আসলে যাঁদের এজেন্ডা থাকে তাঁরা ধর্মনিরপেক্ষতার আড়ালে লুকিয়ে থাকে, অভিযোগ অভিনেত্রীর।

'কাশ্মীরি পণ্ডিতদের তাঁদের রাজ্যে ফেরানো উচিত। তাঁদের জায়গা তাঁদের ফিরিয়ে দেওয়া উচিত। অজয় পন্ডিতের বলিদান ব্যর্থ যাওয়া উচিত নয়',ভিডিয়োয় বলতে শোনা গেল কঙ্গনা রানাওয়াতকে।

কঙ্গনাই প্রথমন নন, এর আগে অজয় পণ্ডিতের হত্যার প্রতিবাদে মুখ খুললেন বলিউড অভিনেতা অনুপম খেরও। তিনি নিজেও একজন কাশ্মীরি পন্ডিত।

এর আগে আমেরিকায় কৃষ্ণাঙ্গ জর্জ ফ্লয়েডের হত্যা নিয়ে বলিউড তারকাদের প্রতিবাদ নিয়ে কটাক্ষ করেছিলেন কঙ্গনা। তিনি অভিযোগ করেন সস্তার পাবলিসিটি পেতে মার্কিন মুলুকের ঘটনা নিয়ে এরা বিরোধ জানায়, অথচ মহারাষ্ট্রে সাধু হত্যার প্রতিবাদে এঁরা নীরব থাকেন। 

বন্ধ করুন