বাড়ি > বায়োস্কোপ > ‘সুশান্তের মৃত্যুর মামলায় আনা অভিযোগ প্রমাণে ব্যর্থ হলে পদ্মশ্রী ফেরাব’,কঙ্গনা
কঙ্গনা রানাওয়াত (ছবি-ইনস্টাগ্রাম)
কঙ্গনা রানাওয়াত (ছবি-ইনস্টাগ্রাম)

‘সুশান্তের মৃত্যুর মামলায় আনা অভিযোগ প্রমাণে ব্যর্থ হলে পদ্মশ্রী ফেরাব’,কঙ্গনা

  • নিজের দাবি প্রমাণ করতে না পারলে পদ্মশ্রী পুরস্কার ফিরিয়ে দিতে রাজি কঙ্গনা রানাওয়াত। 

'পদ্মশ্রী' সম্মানও ফিরিয়ে দিতে রাজি কঙ্গনা রানাওয়াত। সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর পর বলিউডের একাংশ ও সংবাদ মাধ্যমের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিয়েছিলেন কঙ্গনা রানাওয়াত। ফের একবার রণংদেহী অবতারে পাওয়া গেল পর্দার ঝাঁসির রানিকে। রিপাবলিক টিভিকে দেওয়া এক সাক্ষাত্কারে কঙ্গনা শপথ নিয়েছেন নিজের দাবি প্রমাণে ব্যর্থ হলে পদ্মশ্রী ফেরাবেন তিনি। অভিনেত্রী আরও যোগ করেন মুম্বই পুলিশের তরফে শমন পাঠানো হয়েছে কঙ্গনাকে।

‘আমাকে মুম্বই পুলিশ শমন পাঠিয়েছে, জবাবে আমি জানিয়েছি এই মুহূর্তে আমি মানালিতে রয়েছি।তাই আমার এখানে যে কাউকে পাঠিয়ে আমার বয়ান রেকর্ড করতে। তারপর এখনও পর্যন্ত আমি কোনও জবাব পাইনি। আমি আপনাদের জানিয়ে দিচ্ছি আমি যা কিছু বলেছি, যদি আমি সেগুলো প্রমাণ করতে না পারি বা সেইগুলো পাবলিক ডোমেনে উপস্থিত নেই-সেটা যদি হয় তাহলে আমি পদ্মশ্রী সম্মান ফিরিয়ে দিতে রাজি’, বললেন কঙ্গনা রানাওয়াত। তিনি আত্মপক্ষ সমর্থনে বলেন,'আমি এমন মানুষ নই যে বিনা প্রমাণে কারুর উপর অভিযোগ লাগাব আর সেটা হলে আমি পদ্মশ্রী সম্মানের যোগ্য নই'।

গত ১৪ জুন বান্দ্রার অ্যাপার্টমেন্ট থেকে উদ্ধার হয় সুশান্ত সিং রাজপুতের মরদেহ। জানা গিয়েছে ডিপ্রেশনে ভুগছিলেন সুশান্ত। আত্মহত্যাই করেছেন ৩৪ বছরের এই অভিনেতা প্রাথমিক তদন্ত রিপোর্টে তেমনটাই দাবি করেছে মুম্বই পুলিশ। গত মাসে সোশ্যাল মিডিয়ায় দুটি ভিডিয়ো প্রকাশ করে কঙ্গনা রাওয়াত দাবি করেছিলেন, ‘এটা আত্মহত্যা নয় মুভি মাফিয়াদের পরিকল্পিত খুন’।

কঙ্গনা অভিযোগ করেন বলিউড সুশান্তকে আপন করে নেয়নি,তাঁকে আউটসাইডার হিসাবেই ট্রিট করেছে। সেকারণে শেষের দিকে বেশ কয়েকটি সাক্ষাত্কারে সুশান্তকে বলতে শোনা গিয়েছে,'দয়া করে আমার ফিল্ম দেখো, না হলে ওঁরা আমাকে ছুঁড়ে ফেলে দেবে'। তিনি আরও বলেন, নাম না করে ভুলভাল গুজব লেখার মিডিয়ার যে অভ্যেস সেটাই সুশান্তকে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিয়েছে। অর্থাত্ মিডিয়ার ব্লাইন্ড আইটেমস অনেকাংশে দায়ী তাঁর অবসাদগ্রস্ত হওয়ার।

কঙ্গনা অপর ভিডিয়োয় জানিয়েছেন, সুশান্তের মৃত্যু আমাদের সকলকে নাড়িয়ে দিয়েছে। লোকজন বলছে ও নাকি অবসাদগ্রস্ত হয়ে সুইসাইড করেছে। কিন্তু একজন মানুষ যাঁর কিনা ইঞ্জিয়ারিংয়ে গোটা দেশের ব়্যাঙ্ক হোল্ডার, যাঁর স্ট্যানফোর্ডের স্কলারশিপ রয়েছে-তাঁর মন এত আলগা হতে পারে? 

রিপাবলিক টিভিকে দেওয়া সাক্ষাত্কারে কঙ্গনা নাম নিয়ে বলেন, করণ জোহর, আদিত্য চোপড়া, রাজীব মসান্দের মতো ব্যক্তিদের পুলিশ জেরার জন্য ডাকবে না কারণ তাঁরা ‘পাওয়ারফুল’।

অন্যদিকে শুক্রবার মহারাষ্ট্রের গৃহমন্ত্রী অনিল দেশমুখ জানিয়েছেন সুশান্তের মৃত্যুর তদন্তে কোনওরকম ফাউল প্লে সন্দেহ করছে না মুম্বই পুলিশ তাই সিবিআই তদন্তে নিষ্প্রয়োজন।

বন্ধ করুন