বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > Kangana reacts on Brahmastra box office: কাশ্মীর ফাইলসকে ‘তুচ্ছ-তাচ্ছিল্য’ করছেন করণ জোহর, কঙ্গনার কটাক্ষ ‘আপনি কি চিজ..
ফের কঙ্গনা রানাওয়াত আক্রমণ করলেন করণ জোহরকে। 

Kangana reacts on Brahmastra box office: কাশ্মীর ফাইলসকে ‘তুচ্ছ-তাচ্ছিল্য’ করছেন করণ জোহর, কঙ্গনার কটাক্ষ ‘আপনি কি চিজ..

  • বক্স অফিসে ব্রহ্মাস্ত্র ছাপিয়ে গিয়েছে দ্য কাশ্মীর ফাইলসের ব্যবসাকে। এই খবর সামনে আসতেই রেগে আগুন হয়েছিলেন পরিচালক বিবেক অগ্নিহোত্রি। এবার আপত্তি জানালেন কঙ্গনা রানাওয়াতও। 

ব্রহ্মাস্ত্র-র সাফল্য কি বলিউডের অনেকেরই চোখে লাগছে? এই যেমন একদিন আগে পরিচালক বিবেক অগ্নিহোত্রি ‘দ্য কাশ্মীর ফাইলসকে বক্স অফিসে হারিয়ে দিল ব্রহ্মাস্ত্র’-তে আপত্তি জানিয়েছিলেন। এবার কিছুটা সেই পথেই হাঁটলেন কঙ্গনা রানাওয়াত। সরাসরি করণ জোহরকে ঠুকলেন তিনি।

অয়ন মুখোপাধ্যায় পরিচালিত রণবীর কাপুর-আলিয়া ভাট অভিনীত ‘ব্রহ্মাস্ত্র’ প্রযোজনার দায়িত্বে ছিলেন করণ জোহর। কঙ্গনা ইনস্টাগ্রাম স্টোরিতে লিখলেন, ‘কাশ্মীর ফাইলসকে তুচ্ছচাচ্ছিল্য করার সাহস, যা হিন্দু গণহত্যার উপর তৈরি করা হয়েছে এবং সঙ্গে এটার সাফল্যে চড়াও হওয়ার চেষ্টা! কাশ্মীর ফাইলস তৈরি হয়েছিল ১০ কোটিতে…’

করণ জোহরকে ফের টার্গেট করেন অভিনেত্রী, বহুবার এর আগে ‘মুভি মাফিয়া’ বলে উল্লেখ করেছেন তিনি, নোটে লেখেন, ‘এখন মাফিয়া মিনিয়নস অনুসারে করণ জোহরের ছবি ওটাকে (দ্য কাশ্মীর ফাইলস) হারিয়ে দিয়েছে নির্মমভাবে… করণ জোহর জি আপনি কী চিজ বলুন তো!’ সঙ্গে নিজের নোটে লাফিং ইমোজিও যোগ করে দেন।

কঙ্গনা নিজের স্টোরিতে বিবেক অগ্নিহোত্রির টুইটও যোগ করে দেন। যেখানে কাশ্মীর ফাইলস পরিচালক সোমবার লিখেছিলেন, ‘হাহাহা… আমি সত্যি জানি না ওরা কীভাবে কাশ্মীর ফাইলসকে হারিয়ে দিয়েছে। লাঠি, রড, হকি স্টিক না একে৪৭ বা পাথর দিয়ে। নাকি পিআর আর ইনফ্লুয়েন্সরদের দিয়ে। বলিউড সিনেমারা নিজেদের মধ্যে মারামারি করুক নিজেদের মধ্যে। আমাদের একা ছেড়ে দিন। এই বোকা বোকা রেসে আমি অন্তত নেই। ধন্যবাদ।’

কঙ্গনা রানাওয়াতের ইনস্টা স্টোরি। 
কঙ্গনা রানাওয়াতের ইনস্টা স্টোরি। 

ব্রহ্মাস্ত্র বক্স অফিস নিয়ে একটা টুইটও কঙ্গনা রানাওয়াত শেয়ার করে নেন ইনস্টা স্টোরিতে, সঙ্গে লেখেন, ‘Post pandemic verdict model বিশেষ করে বানানো হয়েছে করণ জোহরের ছবির জন্য। ও হ্যা বলে দেই ঠগস অফ হিন্দোস্তান ২০১৮ সালে আয় করেছিল ২৮০ কোটি, ছবির বাজেটও ছিল ২৮০ কোটি। কিন্তু ওরা পিআর-এর পিছনে টাকা খরচ করেনি। না হলে KJO মডেল অনুসারে কোনও ছবিকেই কখনও ফ্লপ বলা হত না।’ হ্যাশট্যাগে কঙ্গনা জুড়লেন ‘just saying’।

ব্রহ্মাস্ত্র নিয়ে কঙ্গনা প্রশ্ন তুলেছিলেন এর আগেও-- মাত্র ২০০-২৫০ কোটি আয় করার পরেই কীভাবে এই ছবিকে হিট বলা হচ্ছে? যেখানে সিনেমার বাজেট তাঁর থেকে কয়েক গুণ বেশি। কঙ্গনা নিজের ইনস্টা স্টরিতে লিখেছিলেন, ২৪৬ কোটি আয় করার পর ৬৫০ কোটির বাজেটের এই ছবিকে কীভাবে হিট বলা যায়?

 

বন্ধ করুন