ভারতীয় ইতিহাস নিয়ে সইফের বিতর্কিত মন্তব্যের পাল্টা দিলেন কঙ্গনা
ভারতীয় ইতিহাস নিয়ে সইফের বিতর্কিত মন্তব্যের পাল্টা দিলেন কঙ্গনা

'ব্রিটিশদের আসার আগে ভারতের ধারণা না থাকলে মহাভারত কি?',সইফকে কটাক্ষ কঙ্গনার

  • ভারতীয় ইতিহাস নিয়ে সইফ আলি খানের বিতর্কিত মন্তব্য নিয়ে এবার নিজের মতামত দিলেন অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাওয়াত।

ভারতীয় ইতিহাস নিয়ে সইফ আলি খানের সাম্প্রতিক মন্তব্য প্রসঙ্গে এবার মুখ খুললেন কঙ্গনা রানাওয়াত। কঙ্গনা জানান কিছু মানুষ আছেন যারা নিজেদের মর্জি মতো কাহিনি মেনে চলে।

ফিল্ম সমালোচক অনুপমা চোপড়ার সঙ্গে এক সাক্ষাত্কারে পতৌদির নবাব সইফ আলি খানকে বর্তমানে দেশের সমাজিক পরিস্থিতি এবং তাঁর ছবি তানাজি দ্য আনসাং ওয়ারিয়ারে যে বিভেদের রাজনীতি দেখানো হয়েছে তা নিয়ে প্রশ্ন করা হয়। এর উত্তরে সইফ জনান, 'আমার মনে হয় না এটা ইতিহাস। আমি মনে করিনা ব্রিটিশরা আসার আগে ইন্ডিয়ার কোনও ধারণা ছিল'।



এব্যাপারে জি নিউজের এক সাক্ষাত্কারে কঙ্গনাকে প্রশ্ন করা হয়,যার কুইনের সাফ জবাব, ‘এটা একদমই সত্যি কথা নয়। যদি ব্রিটিশদের আগে ভারতের কোনও অস্তিত্ব থাকে তাহলে মহাভারত কি? পাঁচ হাজার বছর আগেই মহাকাব্যে বেদব্যাস কি লিখেছেন? কিছু মানুষ আছেন যাঁরা নিজেদের পছন্দ মতো কাহিনি মেনে চলাতে বিশ্বাসী। মহাভারতে শ্রীকৃষ্ণ ছিলেন। তাই সেখানে ভারত ছিল,সেই কারণেই এটা মহান। ভারতের সব রাজারা একসঙ্গে যুদ্ধের ময়দানে নেমেছিল। তাই সেটা স্বাভাবিক...’

কঙ্গনা আরও যোগ করেন, 'যদি আপনি দেখেন, ইউরোপে অনেক ছোট ছোট রাষ্ট্র রয়েছে যাঁদের একটা সম্মিলিত পরিচিতি রয়েছে। শ্রীকৃষ্ণ সেই কারণেই পাণ্ডব এবং কৌরবদের নিয়ে জায়গায় জায়গায় গিয়েছেন, প্রশ্ন করেছে কারা সেই যুদ্ধের অংশ হবেন'?

এই সাক্ষাত্কারের ভিডিও ক্লিপ টুইটারে দেওয়ারে শেয়ার করে কঙ্গনার বোন রঙ্গোলি চান্দেল লেখেন, ‘সইফ ,কঙ্গনা তোমাকে একটা খুব গুরুত্বপূর্ন প্রশ্ন করছে..এবার তোমার জবাব দেওয়ার পালা’।



তানাজি দ্য আনসাং ওয়ারিয়রে মুঘল ঘনিষ্ঠ রাজপুত উদয়ভান রাঠোরের চরিত্রে অভিনয় করেছেন সইফ। অভিনেতা জানান সেই চরিত্রটি এতটাই লোভনীয় ছিল যে চিত্রনাট্যের সঙ্গে ইতিহাসের মিল না থাকলেও তিনি অবস্থান নিতে পারেননি।

সইফ আরও জানান, কিন্তু মানুষ যখন বলে এটা ইতিহাস,আমার মনে হয় না এটা ইতিহাস। আমি ইতিহাস সম্পর্কে খুব ভালো জানি। ইন্ডিয়া কনসেপ্ট-এর অস্তিত্ব ছিল না ব্রিটিশরা ভারতে আসার আগে। যদিও এটা নিয়ে আলোচনার করার কোনও অর্থ নেই, যদি না তুমি নিজে ভালোভাবে জান যে তুমি কি নিয়ে আলোচনা করছো।

সইফের এই মন্তব্য নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় বিতর্কের ঝড়। কেউ কেউ তৈমুরের নাম নিয়েও নতুন করে ট্রোলিং শুরু করেছেন। একজন লেখেন,'ইতিহাস পাগল সইফ আলি খান নিশ্চয় তৈমুরের নাম শোনেনি। না হলে চতুর্দশ শতাব্দীর এই তুর্কী-মুঘল অত্যাচারী, যে এশিয়ার বেশিরভাগ অংশ ধ্বংস করেছিল তার নামে নিজের মিষ্টি ছেলের নাম রাখত'।

কঙ্গনার সঙ্গে সইফের পাঙ্গা অবশ্য নতুন ঘটনা নয়। এর আগে আইফার মঞ্চে কঙ্গনার স্বজনপোষণ বিতর্ক নিয়ে করা মন্তব্যের খিল্লি উড়িয়ে অভিনেত্রীর তোপের মুখে পড়েছিলেন সইফ। এরপর খোলা চিঠিতে কঙ্গনার কাছে ক্ষমা চান অভিনেতা।





বন্ধ করুন