বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > 'কঙ্গনার লজ্জা হওয়া উচিত',দিলজিতের পাশে দাঁড়িয়ে মন্তব্য মিকা সিং,অ্যামি ভার্কের
থামছে না বিতর্ক 
থামছে না বিতর্ক 

'কঙ্গনার লজ্জা হওয়া উচিত',দিলজিতের পাশে দাঁড়িয়ে মন্তব্য মিকা সিং,অ্যামি ভার্কের

  • বৃহস্পতিবার গভীর রাতে কঙ্গনা টুইট করে লেখেন- ‘আমি কৃষক বিরোধী নয়, বরং ওঁনাদের অধিকার নিয়ে বরাবর সরব থেকেছি’।

কৃষক আন্দোলন নিয়ে বৃহস্পতবিবার টুইটারে কাদা ছোঁড়াছুড়ি অব্যাহত থাকল কঙ্গনা রানাওয়াত ও দিলজিত দোসাঞ্জের মধ্যে। টুইটারের বাকযুদ্ধে একে অপরকে তুই তোকারিতে নেমে আসেন দুই তারকা, গোটা মামলা তখন লাগাম ছাড়িয়ে যায় যখন কঙ্গনা দিলজিত্কে করণ জোহরে ‘পালতু’ (পোষ্য) বলে কটাক্ষ করেন। গোটা ঝগড়ার কেন্দ্রবিন্দুতে ছিলেন এক বয়স্ক মহিলা, যাঁকে শাহিনবাগ আন্দোলনের অন্যতম মুখ বিলকিস বানু হিসাবে ভুল চিহ্নিত করে কঙ্গনা ভুয়ো টুইট করেছিলেন। কঙ্গনা লিখেছিলেন ‘শাহিনবাগের দাদিকে ১০০ টাকায় ভাড়া পাওয়া যায়’। পরবর্তীতে সেই টুইট ডিলিট করে দেন কঙ্গনা। তবে বিতর্কের আঁচ ঠান্ডা হয়নি। 

দিলজিত্ বর্ষীয়ান মহিলার জন্য যে ভাষা কঙ্গনা প্রয়োগ করেছিলেন তার তীব্র বিরোধিতা করেন। কৃষক আন্দোলনে যোগ দেওয়া ওই মহিলার নাম মহিন্দর কৌর। টুইটারের দুনিয়ায় একটা বড় অংশ বৃহস্পতিবার দিলজিতের সমর্থনে এগিয়ে আসে। পঞ্জাবি তারকাদের অধিকাংশই প্রকাশ্যে দিলজিতের সমর্থনে ও কঙ্গনার বিরোধিতায় মুখ খোলেন। তালিকায় রয়েছেন গিপ্পি গেরেওয়াল, মিকা সিং, রণজিত বাওয়া, অ্যামি ভার্করা। 

গত ২৮ নভেম্বরের কঙ্গনার ভুয়ো টুইটের স্ক্রিন শট শেয়ার করে মিকা লেখেন- ‘কঙ্গনার প্রতি আমার প্রচুর শ্রদ্ধা ছিল, আমি ওঁনার অফিস ভেঙে গুড়িয়ে দেওয়ার পর কঙ্গনার সমর্থনে মুখও খুলেছিলাম। এখন মনে হচ্ছে আমার ভুল হয়ে গিয়েছে, একজন মহিলা হয়ে কঙ্গনার উচিত একজন বয়স্ক মহিলাকে সামান্য শ্রদ্ধা দেখানো।যদি শিষ্টাচার থাকে তবে অবিলম্বে ক্ষমা চাওয়া উচিত। কঙ্গনার লজ্জা হওয়া উচিত….’

মহিন্দর কৌরের বিরুদ্ধে অশালীন মন্তব্য করায় এক পঞ্জাবি আইনজীবীও কঙ্গনাকে আইনি নোটিশ পাঠিয়েছেন। বিবিসিকে দেওয়া এক সাক্ষাত্কারে মহিন্দর কৌর কঙ্গনার বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দেন। তিনি বলেন- 'সারা জীবন চাষবাস করেছি। আমি কঙ্গনাকে চিনি না। সেই কারণে আমি কৃষক আন্দোলনে অংশ নিচ্ছি'। এই সাক্ষাত্কারও নিজের টুইটারের দেওয়ালে শেয়ার করে নেন দিলজিত্। লেখেন- প্রমাণসহ শুনে নিন কঙ্গনা। 

দিনভর টুইটযুদ্ধ জারি থাকবার পর রাতে মাইক্রো ব্লগিং সাইটে একাধিক টুইট করেন কঙ্গনা, যেখানে কঙ্গনা দাবি করেন তিনি কৃষক বিরোধী নন। কুইন খ্যাত অভিনেত্রী লেখেন- ‘আমি কৃষকদের সঙ্গে আছি। গত বছর আমি অ্যাগ্রোফরেস্টি (কৃষিবিদ্যা) -র প্রচারে অংশ নিয়েছি এবং সেই সাধু উদ্যোগের জন্য অনুদানও দিয়েছি। কৃষকদের উপর হওয়া অত্যাচার নিয়ে আমি বরাবরই সরব, তাঁদের সমস্যা নিয়েও কথা বলে থাকি। তাই আমি সবসময় চাই এই শ্রেণির মানুষের সমস্যার সমাধান হোক, যা অবশেষে ঘটতে চলেছে এই ঐতিহাসিক বিলের মাধ্যমে’। 

অপর এক টুইটে কঙ্গনা আন্দোলনরত কৃষকদের উদ্দেশে লেখেন- ‘দয়া করে কোনও খলিস্তানি বা টুকরে টুকরে গ্যাংকে আপনাদের আন্দোলন হাইজ্যাক করতে দেবেন না’।

 

বন্ধ করুন