খোঁজ মিলল করোনা আক্রান্ত কনিকা কাপুরের বেপাত্তা বন্ধুর
খোঁজ মিলল করোনা আক্রান্ত কনিকা কাপুরের বেপাত্তা বন্ধুর

খোঁজ মিলল কনিকার সংস্পর্শে আসা বেপাত্তা বন্ধুর, পাঠানো হল কোয়ারেন্টাইনে

  • শুক্রবার বলিউড গায়িকা কনিকা কাপুরের করোনা আক্রান্ত হওয়ার খবর প্রকাশ্যে আসে। ৯ মার্চ ভারতে ফেরার পর থেকে কনিকার সংস্পর্শে আসা সব ব্যক্তির তালিকা তৈরি করেছে স্বাস্থ্য দফতর।কিন্তু খোঁজ মিলছিল না তালিকায় নাম থাকা কনিকার এক বন্ধুর।

অবশেষে খোঁজ মিলল কনিকা কাপুরের বন্ধুর। করোনা সংক্রমিত এই গায়িকার বন্ধু কনিকার সঙ্গে একটি পার্টিতে যোগ দিয়েছিলেন। এই তথ্য লখনউয়ের স্বাস্থ্য দফতরের হাতে আসবার পর থেকেই সেই বন্ধুর সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা শুরু করে পুলিশ। তবে কিছুতেই খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না তার। রিপাবলিক সূত্রে খবর অবশেষে মঙ্গলবার খোঁজ মিলেছে মুম্বইয়ের ব্যবসায়ী ওজাস দেশাইয়ের। তাঁর শরীরে COVID-19-এর উপস্থিতির প্রমাণ না মিললেও আগামী ১৪ দিন আইসোলেশনে থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে কনিকার এই বন্ধুকে।

এর আগে সংবাদ সংস্থা আইএএনএসকে লখনউয়ের মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক নরেন্দ্র আগারওয়াল জানিয়েছিলেন, দেশাইকে খুঁজে বার করার সবরকম চেষ্টা করা হচ্ছে। পাশাপাশি তাজ হোটেলের যে ১১ জন সদস্য কনিকার সংস্পর্শে এসেছিলেন তাঁদেরও কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। প্রতি মুহুর্তে তাঁদের স্বাস্থ্যের খোঁজ খবর নিচ্ছে প্রশাসন। সিল করে দেওয়া হয়েছে এই পাঁচতারা হোটল।

৯ মার্চ লন্ডন থেকে মুম্বইয়ে ফেরেন কনিকা। ১১ মার্চ মুম্বই থেকে লখনউতে পৌঁছান গায়িকা। ১৪-১৬ তারিখ লখনউয়ের একটি পাঁচতারা হোটেলে ছিলেন কনিকা। জানা নিয়েছে একটি সংবাদ চ্যানেলের বার্ষিক অনুষ্ঠানে যোগ দিতে সেখানে হাজির ছিলেন শিল্পী। শুক্রবার, ২০ শে মার্চ কনিকার করোনা আক্রান্ত হওয়ার খবর সামনে আসে।

১৩ মার্চ কানপুরে মামা বিপুল টন্ডনের ফ্ল্যাটে, গৃহপ্রবেশের পার্টিতে হাজির হয়েছিলেন বেবিডল গায়িকা। সেখানেই কনিকার সংস্পর্শে আসা কল্পনা টাওয়ার্সের ৩৫ জন আবাসিকেরও করোনা পরীক্ষা করা হয়েছে। কনিকার মামা এবং তাঁর পরিবার সহ আবাসনের ১১ জন বাসিন্দার করোনা টেস্ট রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে। এখনও ২৪ জন আবাসিকের রিপোর্টের অপেক্ষা চলছে, জানিয়েছেন ডিস্ট্রিক ম্যাজিস্ট্রেট ব্রহ্মা রাম তিওয়ারি। স্যানিটাইজ করা হয়েছে গোটা আবাসন।

চিফ মেডিক্যাল অফিসার অশোক শুক্লা জানিয়েছেন, ‘শুক্রবার এবং শনিবার ৩৫ জনের রক্তের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছিল। সোমবার কনিকার মামার পরিবারের আট সদস্য সহ অন্য তিনজনের রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে। বাকি ২৪ জনের রিপোর্টের অপেক্ষা করছি আমরা’।

প্রসঙ্গত, সোমবার দ্বিতীয় পরীক্ষাতেও কনিকা কাপুরের শরীরে COVID-19 ভাইরাসের উপস্থিতির প্রমাণ মিলেছে। গায়িকার প্রাথমিক রিপোর্ট নিয়ে তাঁর পরিবার প্রশ্ন তোলাতেই ফের একবার কনিকার রক্তের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। আপতত লখনউয়ের সরকারি হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন কনিকা কাপুর।


বন্ধ করুন