বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > 'স্ট্রাগলের দিনগুলোতে অঝোরে কাঁদতে দেখেছি ওঁকে', করিশ্মার জন্মদিনে অকপট করিনা!
দুই বোন করিনা ও করিশ্মা। ছবি সৌজন্যে - ইনস্টাগ্রাম

'স্ট্রাগলের দিনগুলোতে অঝোরে কাঁদতে দেখেছি ওঁকে', করিশ্মার জন্মদিনে অকপট করিনা!

  • শুক্রবার ২৫ জুন ৪৭-এ পা দিলেন করিশ্মা কাপুর। নয় দশকে বলিউডের প্রথম সারির নায়িকাদের মধ্যে অন্যতম ছিলেন তিনি। তবে কেরিয়ারের তাঁর যাত্রাপথ মোটেই মসৃণ ছিল না।

শুক্রবার ২৫ জুন নিজের ৪৭তম জন্মদিন উদযাপন করছেন করিশ্মা কাপুর। নয়ের দশকের বলিউডের নায়িকাদের প্রথম সারিতেই শুধু নয় বরং প্রথম তিনজনের একজন ছিলেন তিনি। শাহরুখ, সলমন, আমির, অক্ষয়, গোবিন্দা কার সঙ্গে স্ক্রিন স্পেস শেয়ার করেননি তিনি।

যদিও বলিউডের বিখ্যাত কাপুর বংশের অন্যতম সদস্য ছিলেন করিশ্মা তবু ছবিতে অভিনয়ের সুযোগ কিংবা সাফল্য পায়ে হেঁটে তাঁর কাছে আসেনি। রীতিমতো পরিশ্রম করে ইন্ডাস্ট্রিতে নিজের জায়গা তৈরি করতে হয়েছিল তাঁকে। শুধু তৈরি করেই থিম থাকেননি 'লোলো'। ধীরে ধীরে সেরাদের তালিকায় নিজেকে প্রতিষ্ঠিতও করেছিলেন তিনি। এর কয়েক বছর পর টিনসেল টাউনে ডেবিউ করেন ছোটবোন করিনা কাপুর। একটা সময় দিদির মতোই তারকাতাই পরিণত হননি 'বেবো' বরং তাঁর সময়ে বলিপাড়ার 'এক নম্বর নায়িকা'-র আদায় করে ছেড়েছিলেন তিনি। একবার সিমি গারেওয়াল সঞ্চালনায় ছোটপর্দার চ্যাট শোতে হাজির হয়ে করিশ্মার স্ট্রাগলের দিনের কিছু কথা তুলে ধরেছিলেন করিনা।

সেই আলোচনায় 'বেবো' জানিয়েছিলেন ইন্ডাস্ট্রিতে স্ট্রাগলের দিনগুলোতে বহু রাত নিজের ঘরে অঝোরে চোখের জল ফেলেছেন দিদি করিশ্মা। মা ববিতা দিদিকে সান্ত্বনা দিচ্ছেন, এই দৃশ্যে বহুবার লুকিয়ে লুকিয়ে দেখেছেন করিনা। কারণ করিশ্মা কিংবা তাঁদের মা কখনওই চাইতেন না তাঁদের আশঙ্কা, কষ্ট করিনার মধ্যেও সংক্রমণিত হোক। ওই শোয়ে 'বেবো' আরও জানিয়েছেইলেন এমনও হয়েছে দুঃখে কাঁদতে কাঁদতে ধরা গলায় করিশ্মা তাঁদের মা-কে বলছেন যে তিনি মনে হয় হেরে যাবেন। ইন্ডাস্ট্রিতে এত নোংরা রাজনীতি হচ্ছে যে তার ফলে তাঁর দম আটকে আসছে। 'প্রচুর দেখেছি সেসব দিনগুলোয়', অকপর স্বীকারোক্তি করিনার।

 

সামান্য থেমে 'বেবো' আরও বলেছিলেন,' দিদির এই স্ট্রাগল, মায়েরও সমানভাবে কঠিন পরিস্থিতির সঙ্গে পাল্লা দিয়ে লড়াই করা তাঁকে সাহস জুগিয়েছিল। ইন্ডাস্ট্রি এবং কেরিয়ারে বিভিন্ন প্রতিকূল পরিস্থিতিতে পাল্টা লড়াই তিনি চালিয়ে যেতে পেরেছেন যেহেতু তিনি ছোট থেকেই এই দু'জনের হার না মনোভাব দেখে এসেছিলেন!'

বন্ধ করুন