বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > 'গ্রিন কার্ডের লোভে বিয়ে', কসৌটি'র অনুরাগ সেজন খানকে নিয়ে বিস্ফোরক পাক মহিলা
সেজান খান
সেজান খান

'গ্রিন কার্ডের লোভে বিয়ে', কসৌটি'র অনুরাগ সেজন খানকে নিয়ে বিস্ফোরক পাক মহিলা

  • তাঁর বিরুদ্ধে ওঠা সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেছেন সেজান খান।

১৯ বছর আগে ‘কসৌটি জিন্দেগি কে’ ধারাবাহিকে নজর কেড়েছিলেন অনুরাগ বসু। যাঁর আসল নাম সেজান খান। অনুরাগের চরিত্রের জন্য আজও সমান জনপ্রিয় সেজান। ধারাবাহিকে অভিনয় করেই পরিচিতি পেয়েছিলেন অভিনেতা। বিয়ের পিঁড়িতে বসতে চলেছেন তিনি। গার্লফ্রেন্ডকে বিয়ে করবেন। কিন্তু কে তাঁর গার্লফ্রেন্ড কাকে বিয়ে করবেন এখনো কিছু স্পষ্ট জানানি। সম্প্রতি, এমনই খবর প্রকাশ্যে এসেছে। 

সেজানের বিয়ের খবর চাউর হতেই, বিস্ফোরক দাবি করে বসলেন মার্কিন মুলুকে বসবাসকারী পাকবংশদ্ভূত এক মহিলা আশিয়া পিরানি। অভিনেতা সেজান খানের বিরুদ্ধে তাঁর গুরুতর অভিযোগ, যুক্তরাষ্ট্রের গ্রিন কার্ড পাওয়ার লোভে তাঁকে বিয়ে করেছিলেন ‘কসৌটি জিন্দেগি কে’খ্যাত ভারতীয় অভিনেতা সেজান খান। তাঁর দাবি, ২০১৫ সালে তাঁকে বিয়ে করেন সেজান। সেই বিয়ে ২০১৭ সাল পর্যন্ত টিকে ছিল। এমনকি গ্রিন কার্ড পাওয়ার পরই অভিনেতা আদালতের দ্বারস্থ হন, তাঁকে ডিভোর্স দিয়ে দেন। যদিও সেজান তাঁর বিরুদ্ধে ওঠা সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

মার্কিন মুলুকে বসবাসকারী পাক মহিলার আরো অভিযোগ, তাঁর সঙ্গে প্রতারণা করেছে সেজান। সে ৫০টা বিয়ে করুক, তাতে তাঁর আপত্তি নেই। তবে এর আগে যে সে বিয়ে করেছিল, সেটা কেন তাঁর কাছ থেকে লুকিয়েছিল সে?  অভিনেতার দাবি, আশিয়া তাঁর অন্ধ ভক্ত। অভিনেতার প্রতি ভালবাসার আত্মপ্রকাশে এসব কথা বলছেন তিনি। 

সেজানের পরিবার পাকিস্তানের বাসিন্দা। তাঁর বাবা ওস্তাদ রইস খান পাক নাগরিক, আশির দশকে পাক গায়িকাকে বিয়ে করে সেদেশে চলে যান জনপ্রিয় সেতার বাদক। সেজন জানিয়েছেন করাচিতে বসবাসকারী তাঁর তুতো ভাইয়ের স্ত্রীর বোন আশিয়া। সেই সূত্রে পরিচয় রয়েছে তাঁদের। তবে বিয়ের বিষয়টি সম্পূর্ণ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন। আপতত অভিনয় জগত থেকে ইদানীং অনেকটাই দূরে তিনি।  যদিও ‘অনুরাগ’ হিসাবে সেজান আজও সমান জনপ্রিয় দর্শকদের কাছে।

বন্ধ করুন