বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > Mili Vs Phone Bhoot: বক্সঅফিসে কে কাকে টেক্কা দেবে? ক্যাটরিনার ফোন ‘ফোন ভূত’ নাকি জাহ্নবীর ‘মিলি’

Mili Vs Phone Bhoot: বক্সঅফিসে কে কাকে টেক্কা দেবে? ক্যাটরিনার ফোন ‘ফোন ভূত’ নাকি জাহ্নবীর ‘মিলি’

ক্যাটরিনার ফোন ভূত

Phone Bhoot Vs Mili: নভেম্বরের চার তারিখ এক সঙ্গে তিনটি হিন্দি ছবি মুক্তি পেতে চলেছে। তালিকায় আছে ফোন ভূত, মিলি এবং ডাবল এক্সএল।

আজ, অর্থাৎ ৪ নভেম্বর মোট ৩টি হিন্দি ছবি মুক্তি পেতে চলেছে যেগুলো কিনা নারী চরিত্র প্রধান ছবি। এই তিনটি ছবির মধ্যে আছে ক্যাটরিনা কাইফের ফোন ভূত, জাহ্নবী কাপুরের মিলি এবং সোনাক্ষী সিনহা ও হুমা কুরেশির ডাবল এক্সএল। তিনটি ছবি তিনটি ঘরানার। প্রথম ছবিটি হরর কমেডি, দ্বিতীয়টি থ্রিলার এবং শেষ ছবিটি সোশ্যাল কমেডি ঘরানার। ট্রেড অ্যানালিস্টদের মতে ৪ নভেম্বর যে তিনটি ছবি মুক্তি পাচ্ছে বলিউডের তার মধ্যে থেকে ফোন ভূত সব থেকে বেশি ব্যবসা করবে, তারপর মিলি এবং সব শেষে থাকবে ডাবল এক্সএল।

হরর কমেডি ছবি ফোন ভূতে ক্যাটরিনা কাইফের সঙ্গে দেখা যাবে অভিনেতা জ্যাকি শ্রফ, সিদ্ধান্ত চতুরবেদি, এবং ঈশান খট্টরকে। এই ছবিটির পরিচালনা করেছেন গুরমীত সিং। ট্রেলার দেখেই বোঝা গেছে এই ভূত দেখে ভয় পাওয়ার বদলে দর্শকরা বেশি হাসবেন। ট্রেলার মুক্তির পর দর্শকদের বেশ পজিটিভ রেসপন্স পায় এই ছবির ট্রেলার। ট্রেড অ্যানালিস্টদের মতে যদি সব ঠিক থাকে, সব ভালো করে চলে তাহলে এই ছবিটি শুক্রবার, অর্থাৎ যেদিন মুক্তি পাচ্ছে সেদিন গোটা দেশে প্রায় ২ কোটি টাকার ব্যবসা করতে পারে। আদতে বলা হচ্ছে ১.৫ কোটি, কিন্তু সেটা বেড়ে ২ কোটি হতেই পারে!

অন্যদিকে জাহ্নবী কাপুরের মিলি এবং সোনাক্ষী-হুমার ডাবল এক্সএল এর ভাগ্য এতটা প্রসন্ন হবে না বলেই মনে করছে সংশ্লিষ্ট মহল। মুক্তির দিন এই ছবি দুটির মধ্যে মিলি কম বেশি ৮০ লাখ থেকে ১ কোটি টাকার মতো আয় করবে বলেই মনে করা হচ্ছে। জাহ্নবী কাপুরের মিলি ছবিটি আদতে একটি মালায়লাম ছবি হেলেনের রিমেক, যা ২০১৯ সালে মুক্তি পেয়েছিল। অন্যদিকে হুমা এবং সোনাক্ষী অভিনীত ডাবল এক্সএল এর আয় আরও কম হবে বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। তাঁদের মতে এই ছবিটি প্রথমদিন ৪০-৪৫ লাখ টাকা মতো আয় করবে।

সংখ্যা কম হলে, হতাশাব্যঞ্জক নয় ফোন ভূতের রেজাল্ট। যদি উত্তেজনা ধরে রাখতে পারে তাহলে এই ছবি মোটের উপর ভালোই ব্যবসা করবে বলে মনে করা হচ্ছে। কিন্তু তাই বলে ১০০ কোটির গণ্ডি এই ছবি পেরোতে পারবে বলে মনে হয় না। আসলে এখন কান্তারা বা দ্যা কাশ্মীর ফাইলসের মতো ছবি না হলে সেটা প্রায় অসম্ভব।

বন্ধ করুন