বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > KBC-র ইতিহাসে এই প্রথম, ফাস্টেস্ট ফিঙ্গার ফাস্ট না খেলেই হটসিটে কলকাতার গৃহবধূ
কেবিসির মঞ্চে অবাক কীর্তি কলকাতার গৃহবধূর
কেবিসির মঞ্চে অবাক কীর্তি কলকাতার গৃহবধূর

KBC-র ইতিহাসে এই প্রথম, ফাস্টেস্ট ফিঙ্গার ফাস্ট না খেলেই হটসিটে কলকাতার গৃহবধূ

  • ২০ বছরে এই প্রথম, কলকাতার রুনা সাহার জন্য নিয়ম বদলালেন অমিতাভ বচ্চন। 

ফাস্টেস্ট ফিঙ্গার ফাস্ট চ্যালেঞ্জ না নিয়েই কৌন বনেগা ক্রোড়পতির ইতিহাসে প্রথম হটসিটে বসার নজির গড়লেন কলকাতার গৃহবধূ রুনা সাহা। তাৎপর্যপূর্ণভাবে ২০০০ সালের জুলাই মাসে যখন থেকে কেবিসি শুরু হয়েছে , সেই থেকেই হটসিটে বসার চেষ্টা জারি রেখেছিলেন রুনা। কিন্তু প্রতিবারেই ব্যর্থ হয়েছেন। জুটেছে টিটকিরি মস্করা,উপহাস- তবে হাল ছাড়েননি বর্তমানে বছর ৪৩-র গৃহবধূ। এমনকি একবার নাকি প্রিলিমি স্টেজ পর্যন্তও পৌঁছেছিলেন , কিন্তু বাড়িতে কাউকেই জানাননি সে কথা। অবশেষে স্বপ্ন পূরণ - গত বৃহস্পতিবার থেকে খেলা শুরু করেছেন তিনি।

 শেষ তিনজনের মধ্যে থাকা রুনা শেষমেষ হটসিটে যেতে ব্যর্থ হন। স্বপ্নপূরণের এত কাছে এসেও ভাগ্যে জুটল হতাশা। শোয়ের মঞ্চেই কান্নায় ভেঙে পড়েন রুনা। তাঁকে ইমোশনাল হয়ে পড়তে দেখে সহায় হন বিগ বি , ডেকে নেন তাঁর স্বপ্নের চেয়ারে। তবুও বাধা মানেনি চোখের জল। শেষে এমন পরিস্থিতি হয় যে আসরে নামতে হয় তাঁর স্বামী এবং খোদ সঞ্চালককেও।

জানা গেছে খুব অল্প বয়সে কলেজ পাস্ করেই বিয়ে হয়ে যায় তাঁর। কিন্তু ছোট থেকেই বড় কিছু করার স্বপ্ন দেখা রুনা শুরু করেন শাড়ির বিজনেস। জারি রয়েছে জীবনের লড়াই। এদিন চোখের জল বাগ মানাতে অমিতাভ তাঁর দিকে এগিয়ে দেন টিসু পেপার ; অন্যদিকে ধরা গলায় রুনার অভিমান -'এবার না হলে জীবনেও টিভির সামনে বসতাম না , ঈশ্বরের কাছে প্রার্থনা করাই ছেড়ে দিতাম।'

 

বন্ধ করুন