বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > KBC 13: অমিতাভকে ঈশ্বরের সঙ্গে তুলনা সুনীল শেট্টির! শুনে কী বলে উঠলেন ‘বিগ বি’?
কেবিসি-র সেটে সুনীল শেট্টি এবং অমিতাভ বচ্চন।(ছবি সৌজন্যে - হিন্দুস্তান টাইমস)
কেবিসি-র সেটে সুনীল শেট্টি এবং অমিতাভ বচ্চন।(ছবি সৌজন্যে - হিন্দুস্তান টাইমস)

KBC 13: অমিতাভকে ঈশ্বরের সঙ্গে তুলনা সুনীল শেট্টির! শুনে কী বলে উঠলেন ‘বিগ বি’?

কেবিসি-তে গল্প আড্ডার ফাঁকে সুনীল শেট্টি জানালেন 'ডন' এর শ্যুটিং চলাকালীন প্রথমবার 'বিগ বি'-র সঙ্গে মোলাকাত হয়েছিল তাঁর।

কৌন বনেগা ক্রোড়পতির ১৩ নম্বর সিজন শুরু হয়েছে গত মাসেই।চলতি সপ্তাহেই সোনি টিভির এই গেম শো-এর ‘শানদার শুক্রবার’ এপিসোডে হাজির হয়েছিলেন জ্যাকি শ্রফ এবং সুনীল শেট্টি। কেবিসি-র ১৩ নম্বর সিজনের এই বিশেষ এপিসোডটি শুক্রবার, অর্থাৎ ২৪ সেপ্টেম্বর সম্প্রচার হয়েছে।শো চলাকালীন হাসি ঠাট্টা যেমন চলল, তেমনই উঠে এল মনে রাখার মতো এক মুহূর্তও। শো চলাকালীন গল্প আড্ডার ফাঁকে সুনীল শেট্টি জানালেন 'ডন' এর শ্যুটিং চলাকালীন প্রথমবার 'বিগ বি'-র সঙ্গে মোলাকাত হয়েছিল তাঁর। এবং সেই প্রথম আলাপেই অমিতাভ তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ করার জন্য একটি ফোন নম্বর পর্যন্ত দিয়েছিলেন সুনীলকে! যা শুনে রীতিমত চমকে ওঠেন স্বয়ং 'শাহেনশাহ'-ও।

সুনীল তখন বেশ ছোটই। তাঁর বাড়ির সামনে চলছিল 'ডন' ছবির শ্যুটিং। খবর পেয়ে পাড়ার কয়েকজন বন্ধুবান্ধবের সঙ্গে শ্যুটিং দেখতে হাজির হয়েছিলেন সুনীল। এরপর সেখানেই অমিতাভকে দেখে মন্ত্রমুগ্ধ হয়ে গেছিলেন তিনি। 'ডন' এর কাছে পৌঁছতে গেলে তাঁর নিরাপত্তারক্ষীরা বাধা দেয়। বিষয়টি অমিতাভের চোখে পড়তেই তাঁর নিরাপত্তার দায়িত্বে ওই ব্যক্তিদের কষে ধমক লাগান বলি-তারকা। বলে ওঠেন কেন বাচ্চাদের আটকানো হচ্ছে? নির্দেশ দেন তাঁর কাছে যেন ওদের আসতে  দেওয়া হয়। এরপর সুনীল শেট্টিদের সঙ্গে শুধু হাসি-মজা ভাগ করেই থেমে থাকেননি অমিতাভ, সঙ্গে নিজের ব্যক্তিগত ফোন নম্বরও দিয়েছিলেন যেখানে ফোন করলে ওঁর সঙ্গে কথা বলা যাবে।

সুনীলের মুখে নিজের এই কীর্তি শুনে যারপরনাই অবাক হয়ে যান 'বিগ বি'। কোনওরকমে জিজ্ঞেস করেন যে এরপর সুনীল তাঁকে কখনও ওই নম্বরে ফোন করেছিলেন কি না। সলজ্জভাবে সুনীলের জবাব, 'স্যার, ঈশ্বরের সঙ্গে তো আর কেউ এমনি এমনি কথা বলতে পারে না। তাই আর কল করে উঠতে পারিনি আপনাকে'। শোনামাত্রই অপ্রস্তুত গলায় অমিতাভ বলে ওঠে, 'ধ্যাৎ, এরকম কেউ বলে নাকি!'

এরপর অবশ্য ফোন কল নিয়ে একটি মজার কিসসা নিজেই শেয়ার করেন অমিতাভ। জানান একবার তাঁর এক ভক্ত তাঁকে নিজের নম্বর দিয়ে বলেছিলেন কখনও সময় পেলে 'সিনিয়র বচ্চন' যেন তাঁকে ফোন করেন। পরবর্তী সময়ে তাঁকে সত্যিই ফোনও করেছিলেন অমিতাভ! কিন্তু ওই ব্যক্তি ভেবে বসেন অমিতাভের মত গলা নকল করে তাঁর সঙ্গে কেউ রসিকতা করছে। তাই কোনওভাবেই তিনি বিশ্বাস করেননি যে ফোনের ওপারে ব্যারিটোন স্বরের অধিকারী সত্যিকারের অমিতাভ বচ্চন।

বন্ধ করুন