বাড়ি > বায়োস্কোপ > গানে বর্ণবিদ্বেষের ছোঁয়া, বেকায়দায় পড়ে ‘বিয়ন্সে’ বানান বদল টিম খালি-পিলির
বিয়ন্সের বানানে পরিবর্তন আনল খালি-পিলির টিম
বিয়ন্সের বানানে পরিবর্তন আনল খালি-পিলির টিম

গানে বর্ণবিদ্বেষের ছোঁয়া, বেকায়দায় পড়ে ‘বিয়ন্সে’ বানান বদল টিম খালি-পিলির

  • ইশান খট্টর,অনন্যা পাণ্ডে অভিনীত খালি-পিলি ছবির গান বিয়ন্সে শর্মা জায়েগি'র লাইনে বিয়ন্সে নামের বানান পালটে ফেলল প্রযোজনা সংস্থা।

মেয়ের গায়ের রঙ ফর্সা না কালো সেই নিয়ে ভারতীয় মানসিকতা এখনও পুরোপুরি বদলায়নি। তাই জর্জ ফ্লয়েডের মৃত্যুতে 'ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটার' বলে ধ্বনি তোলা বলিউড পিছিয়ে আসে না গানের লাইনে ‘গোরিয়া’ শব্দের ব্যবহারে। যদিও এই শব্দের ব্যবহার যুগ যুগ ধরেই হয়ে আসছে হিন্দি ছবির গানের লাইনে, যেমন ধরুন ‘চুরাকে দিল মেরা, গোরিয়া চলি’ কিংবা ‘গোরি তেরা গাঁও বরা প্যায়ারা..’। সে নয় ঠিক ছিল কিন্তু তা বলে বিয়ন্সের মতো বিশ্ববিখ্যাত পপ তারকার অপমান মেনে নিতে পারেনি ভারতীয় সিনেপ্রেমীরা। 

সদ্যই মুক্তি পেয়েছে ইশান খট্টার এবং অনন্যা পাণ্ডে অভিনীত খালি-পিলি ছবির প্রথম গান ‘বিয়ন্সে শর্মা যায়েগি’।আর বিতর্ক শুরু এই গানের একটি লাইনকে ঘিরে- ‘তুঝে দেখেগি যব গোরিয়া.. বিয়ন্সে শর্মা যায়েগি’। নেট দুনিয়ায় এই গানকে ঘিরে ব্যাপক সমালোচনার হওয়ার পর রবিবার এই গানের বানান বদলে দিল প্রযোজক সংস্থা। 'Beyonce' নামে C-এর বদলে S লেখা হয়েছে। অর্থাত্ এখন গানের টাইটেলে রয়েছে- ‘Beyonse’। বলা বহুল্য, এই গানে বিয়ন্সের নাম ব্যবহার করে আইনি ঝামেলায় পড়তে পারতেন প্রযোজক আলি আব্বাস জাফর এবং হিমাংশ মেহরা, সেটি এড়াতেই যে বানানে হেরফের, কারণ বহু আগেই নিজের নামের কপি রাইট করিয়ে নিয়েছিলেন বিয়ন্সে। 

সুশান্তের মৃত্যুর পর নোপোটিজম এবং ইনসাইড-আউটসাইডার বিতর্কে সরগরম নেটদুনিয়া। সেই বিতর্কের আগুনে আরও খানিকটা ঘি ঢালল এই গান। উল্লেখ্য এই ছবির দুই তারকাই ইন্ডাস্টির ইনসাইডার,অর্থাত্ স্টারকিড। তাই আগেই এই ছবি বয়কটের ডাক উঠেছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। তারপর বিয়ন্সে ভক্তরাও বেজায় চটেছেন এই গানে মার্কিন পপ তারকাকে হেয় করায়। স্বাভাবিকভাবেই ইউটিউবে এই গান ১০ লক্ষাধিক মানুষ ডিজলাইক করেছেন। যেখানে লাইকের সংখ্যা মাত্র ১ লক্ষ। 

বিশাল-শেখরের কম্পোজিশনে এই বিতর্কিত গানের লিরিকস লিখেছেন কুমার এবং রাজ শেখর। 

পরিচালক মকবুল খান সাফাই দিয়ে জানিয়েছেন, ‘প্রথমত কোনওরকম শর্ত ছাড়াই আমরা ক্ষমাপ্রার্থী। কারুর ভাবাবেগে আঘাত দেওয়ার কোনও ইচ্ছা আমাদের ছিল না। যে শব্দটি নিয়ে বর্ণবিদ্বেষের অভিযোগ উঠছে ওটি সেই হিসাবে ব্যবহার করা হয়নি। গোরিয়া শব্দটি হিন্দিতে বা হিন্দি ছবির গানে অনেক সময়ই মেয়েকে সম্বোধন করতে ব্যবহার করা হয়। গোরিয়া ( গায়ের রঙ উজ্জ্বল এমন মেয়ে) আক্ষরিক অর্থ হিসাবে ধরা হয় না। আর বিয়ন্সের সঙ্গে তুলনাটাও ব্যবহার করা হয়েছে একজন স্মার্ট ছেলে তাঁর প্রেমিকার মন জয় করতে চাইছে সেই হিসাবে, কারণ বিয়ন্সে হলেন গুণ, সৌন্দর্য, পারফরম্যান্স,স্টাইল এবং অ্যাটিটিউডের আদর্শ নির্দশন। আমরা সকলে ওঁনার ভক্ত। ওঁনাকে অপমান করবার কোনও প্রশ্নই উঠে না’।

২রা অক্টোবর জি প্লেক্সে মুক্তি পাবে এই ছবি। প্রথম বলিউড ফিল্ম হিসাবে মাল্টি-ফরম্যাট রিলিজ হতে চলেছে এই ছবির। 

বন্ধ করুন