বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > Abhisekh Chatterjee: 'ও নিজেই যেন আমাকে বলল ল্যাপটপটা খোলো,জবাব দাও', বিস্ফোরক অভিষেক পত্নী সংযুক্তা

Abhisekh Chatterjee: 'ও নিজেই যেন আমাকে বলল ল্যাপটপটা খোলো,জবাব দাও', বিস্ফোরক অভিষেক পত্নী সংযুক্তা

বিস্ফোরক সংযুক্তা চট্টোপাধ্যায়

'ওরা তো শোকবার্তাও পাঠায়নি', নাম না করেই প্রসেনজিত-ঋতুপর্ণার দিকে অভিযোগের আঙুল তুললেন সংযুক্তা।

অভিষেক চট্টোপাধ্যায়ের মৃত্যুর পর থেকে ইন্ডাস্ট্রির অন্দরের কানাঘুষোর শেষ নেই। প্রয়াত অভিনেতাকে নিয়ে ‘মিথ্যা রটনা’র প্রতিবাদ জানিয়েছিলেন তাঁর স্ত্রীও। অভিষেকের পরিবারকে আর্থিক সাহায্য করেছে ইন্ডাস্ট্রির এক নামী অভিনেতা ও অভিনেত্রী, তেমন খবরের প্রতিবাদে সরব হয়েছিলেন অভিষেক পত্নী সংযুক্তা। স্বামীর শ্রাদ্ধের দিন ফের একবার সংবাদমাধ্যমের সামনে বিস্ফোরক অভিযোগ আনলেন তিনি।নাম না করেই প্রসেনজিত চট্টোপাধ্যায় ও ঋতুপর্ণা সেনগুপ্তের দিকে ফের একবার আঙুল তোলেন সংযুক্তা।

টলিফোকাস কলকাতা'কে দেওয়া এক সাক্ষাত্কারে সংযুক্তা বলেন, ‘ওর চলে যাওয়ার পর আমি সোশ্যাল মিডিয়া থেকে নিজেকে দূরে রেখেছিলাম। তবে অনেক কথা কানে আসছিল। আমার পরিচিতরাই আমায় বলছিল এ কী শুনছি, এক অভিনেতা নাকি তোমায় ১০ লক্ষ টাকা দিয়েছে। যে অভিনেতার কথা বলা হচ্ছে সেই অভিনেতার সঙ্গে অভিষেকের সম্পর্ক ভালো ছিল না। এমনকী অভির কেরিয়ার শেষ করে দিতে সেই অভিনেতা অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছিল। আরও এক অভিনেত্রী নাকি পাঁচ লক্ষ টাকা দিয়েছে। সেই অভিনেত্রীও…. অভিষেক খুব স্বচ্ছ মানুষ ছিল। ও নিজেও অনেক সাক্ষাত্কারে বলেছে। আমি নাম নিচ্ছি না, তবে ওরা অভিষেকের কেরিয়ার নষ্ট করে দেওয়ার জন্য যা-যা করার করেছে…. যে সময় অভিষেক কেরিয়ারে শীর্ষে ছিল, সেই সময় ২২টা ছবি থেকে অভিষেককে হটিয়ে দিয়েছিল ওরা। তারা নাকি আমাকে অর্থ সাহায্য করেছে! তারা তো শোকবার্তাও পাঠায়নি ব্যক্তিগতভাবে অর্থ সাহায্য তো দূরের কথা।’

একটু থেমে সংযুক্তা যোগ করেন, 'এরপর শুনলাম একজন নামী ক্রিকেটার নাকি আমার মেয়ের সব দায়িত্ব নেবে, এইসবও শুনছিলাম। তাও আমি চুপ ছিলাম। তারপর কানে এল অভিষেক নাকি আর্থিকভাবে স্বচ্ছল ছিল না। আর এখন আমি সবার কাছে হাত পাতছি। তখন মনে হল আর নয়। এবার জবাব দিতে হবে। মনে হল, অভিষেক নিজেই আমাকে বলছে তুমি ল্যাপটপটা খোলো, উত্তর দাও.... তাই ফেসবুকে সবটা লিখলাম। আমি নিজে এক ইউকে স্থিত ফিনটেক কোম্পানিতে কর্মরত। অভিষেকের আর্শীবাদে আমার যা বেতন,তা দিয়ে আমি আমাদের তিনজনের সংসার চালাতে পারতাম, অভিষেকের কাজ করবার কোনও দরকার ছিল না। কিন্তু পরিবারের মাথা হিসাবে ও খরচ চালাতো, কিন্তু আমিও সক্ষম। এখনও সবটা খুব ভালোভাবে চলে যাবে... আমাদের মেয়ের কোনও অসুবিধা হবে না। আসলে অভিষেক জীবনে কারুর সামনে হাত পাতেনি, যখন ওকে ২২টা ছবি থেকে বার করে দেওয়া হয়েছে তখনও পাতেনি। আর আমি ওর স্ত্রী হিসাবে কারুর সাহায্য নেব? কোনওদিনও না'।

উল্লেখ্য, গত ২৪শে মার্চ ভোররাতে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে প্রয়াত হন অভিনেতা অভিষেক চট্টোপাধ্যায়। রবিবার মৃত্যুর ১১ দিনের মাথায় প্রয়াত স্বামীর শ্রাদ্ধানুষ্ঠান সারলেন সংযুক্তা।

 

 

বন্ধ করুন