বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > ডিভোর্স হবে জেনেই নাকি বিয়ে করেছিল মধুমিতা, দিদি নম্বর ১ দেখে দাবি নেটপাড়ার
ডিভোর্স নিয়ে দিদি নম্বর ১-এ বলা মধঝুমিতার কথাই সত্যি হয়েছে দেখে অবাক নেটপাড়া। 

ডিভোর্স হবে জেনেই নাকি বিয়ে করেছিল মধুমিতা, দিদি নম্বর ১ দেখে দাবি নেটপাড়ার

  • ‘দিদি নম্বর ১’-এ মধুমিতার বেশ কয়েকবছর আগে বলা কথাগুলোই যেন ব্যুমেরাং হয়ে ফিরে এল। অনেকের দাবি ডিভোর্স নেবেন জেনেই বিয়ে করেছিলেন সৌরভ চক্রবর্তীকে। 

বাংলা সিনেমার অভিনেত্রীদের মধ্যে এই মুহূর্তে শুরুর দিকেই নাম আসে মধুমিতার। একের পর এক ছবি দিয়ে দর্শকমনে পাকাপোক্ত জায়গা করে নিয়েছেন ছোট পরদার পাখি! তবে, নায়িকার কাজের পাশাপাশি ব্যক্তিগত জীবন নিয়েও কম কথা হয়নি একসময়। বিশেষ করে বিয়ে আর ডিভোর্স। একটা সময় টেলিপাড়ার অন্যতম ‘হ্যাপেনিং কপল’ ছিলেন সৌরভ-মধুমিতা। ‘বোঝে না সে বোঝে না’ চলাকালীনই প্রেমিক সৌরভ চক্রবর্তীর সঙ্গে চুপচাপ আইনি বিয়ে সেরে নিয়েছিলেন অভিনেত্রী। কিন্তু ২০১৯-এর শেষের দিকেই সামনে আসে এই জুটির বিচ্ছেদের খবর।

সম্প্রতি ‘দিদি নম্বর ১’-এর একটি ক্লিপিংস ভাইরাল হয়েছে। যেখানে এসেছিলেন মধুমিতা সরকার। অভিনেত্রীর কথা শুনে মনে হচ্ছে বিয়ের পরেই হয়তো সেটা প্রথম আসা সেখানে। আর রচনা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ‘লোকজন না ডেকে বিয়ে করার কারণ’ প্রশ্নের উত্তরে মধুমিতার জবাব ছিল, ‘সেই কতগুলো টাকা খরচ করে লোককে খাওয়ানো। তারপর সেই ডিভোর্স হয়ে গেলে টাকাগুলো তো বেকার খরচ হবে। তারচেয়ে ওই টাকায় একটা বাড়ি কেনা ভালো।’

বিয়ে নিয়ে মধুমিতা সরকারের মন্তব্যের ভিডিয়োতে ভাইরাল কমেন্ট। 
বিয়ে নিয়ে মধুমিতা সরকারের মন্তব্যের ভিডিয়োতে ভাইরাল কমেন্ট। 

এই ভাইরাল ক্লিপিংসে ভুরি ভুরি কমেন্ট পড়েছে। যাতে কেউ মধুমিতাকে বলেছেন, ‘ভবিষ্যতদ্রষ্টা’, তো কেউ আবার বলেছেন, ‘ডিভোর্স হবে জেনেই তো দেখছি মেয়েটা বিয়ে করেছিল’! আরও পড়ুন: লোকদেখানো বা ফ্লার্ট করার জন্য নয়, ইনস্টায় ছবি দেন পরিচালকেদর জন্য! অকপট মধুমিতা

আগের বিয়ের ব্যাপারে মধুমিতা একসময় জানিয়েছিলেন, ‘খুব অল্প বয়সে বিয়েটা করে ফেলবার একটা আফসোস তো রয়েইছে। যদি আমি তাড়াহুড়ো করে তখন বিয়েটা না করতাম তবে আমি কেরিয়ারে আরও বেশি করে ফোকাস করতে পারতাম… আমি খুব রোম্যান্টিক মানুষ, একদম খাদের কিনারায় না চলে যাওয়া অবধি ওই সম্পর্কটা টিকিয়ে রাখবার চেষ্টা আমি করেছিলাম। এখন মনে হয় ওই বিয়েটা ভেঙে আরও আগে বেরিয়ে আসা উচিত ছিল’

বন্ধ করুন