বাড়ি > বায়োস্কোপ > কঙ্কালের ছবির সঙ্গে মৃত্যু নিয়ে পরপর উদ্ধৃতি পোস্ট, টুইটারে রোষের মুখে মহেশ ভাট
সোমবার মহেশ ভাটের টুইটকে লজ্জাজনক আখ্যা দিলেন নেটিজেনরা (ছবি-টুইটার)
সোমবার মহেশ ভাটের টুইটকে লজ্জাজনক আখ্যা দিলেন নেটিজেনরা (ছবি-টুইটার)

কঙ্কালের ছবির সঙ্গে মৃত্যু নিয়ে পরপর উদ্ধৃতি পোস্ট, টুইটারে রোষের মুখে মহেশ ভাট

  • ‘ডায়িং মেন থিংক অব ফানি থিংস-অ্যান্ড দ্যাটস হোয়াট ইউ অল আর হিয়ার, আরন্ট ইউ? ডায়িং মেন', টুইটারের দেওয়ালে লেখেন মহেশ ভাট।

সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর খবর সামনে আসার পর থেকে স্বজনপোষণ ইস্যুকে ঘিরে ব্যাপক ট্রোলের মুখে পড়তে হয়েছে একাধিক বলিউড তারকাকে। অন্যদিকে সুশান্তের বান্ধবী রিয়া চক্রবর্তী ও মহেশ ভাটের সম্পর্ক নিয়েও সোশ্যাল মিডিয়া কম কাটাছেঁড়া হয়নি। মহেশ ভাট ঘনিষ্ঠমহল থেকে সুশান্তকে নিয়ে উঠে আসা বেশকিছু চাঞ্চল্যকর বক্তব্য নিয়ে আপত্তি জানিয়েছেন সুশান্ত সিং রাজপুত ভক্তরা। সুশান্তের আত্মহত্যার প্রায় এক সপ্তাহ পরেও যখন এই সত্যিটা মেনে নিতে কষ্ট হচ্ছে তাঁর ভক্তদের,তখনই ফের বোমা ফাটালেন মহেশ ভাট। সোমবার মহেশ ভাটের একটি টুইটকে ঘিরে হইচই পড়ে গিয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। 

এদিন পরিচালক একটি কঙ্কালের ছবি পোস্ট করে, টড উইলিয়ামসের বিখ্যাত একটি উদ্ধৃতি উল্লেখ করেন, ‘ডায়িং মেন থিংক অব ফানি থিংস-অ্যান্ড দ্যাটস হোয়াট ইউ অল আর হিয়ার, আরন্ট ইউ? ডায়িং মেন'। যার বাংলা তর্জমা করলে দাঁড়ায়, মরার আগের সময় মানুষ হাস্যকর/বিচিত্র চিন্তাভাবনা করে- আর এখানে আমরা সকলেই হচ্ছি আদতে তাই..মৃতপ্রায় মানুষ'।

একই ছবি পোস্ট করে ফের একটি উদ্ধৃতি উল্লেখ করেন মহেশ ভাট। নীলেশ জৈনের লেখা উর্দু পঙক্তি- ‘সবকে অন্দর এক-সা হি অবাদ হ্যায়, ফরক হ্যায় তো বস জিসম কা লিবাস হ্যায়’। অর্থ- প্রত্যেই যাঁরা এখানে বসবাস করতে সবই আদতে এক,পার্থক্য তো শুধু শরীরে চাপানো কাপড়টা, কিন্তু সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যু নিয়ে যখন এত বিতর্ক ও আলোচনা তখন মহেশ ভাটের এই টুইটারে জন্য ফের সমালোচনার মুখে মহেশ ভাট। 

একজন টুইটার ইউজার জবাবে লেখেন,'সুশান্তের মৃত্যু হাস্যকর লাগছে আপনার? আসলে ও আমাদের সবার উপর হাসছে কারণ আমরা কিছু করতে পারছি না, দোষীদের শাস্তি চাই'। অপর একজন লেখেন, আপনি নিজেকে প্রশ্ন করুন আপনি আসলে কী? একটা ভালো আত্মা নাকি অসাড় কঙ্কাল-উত্তরটা পেয়ে যাবেন'।

মহেশ ভাটের টুইট 
মহেশ ভাটের টুইট 

উল্লেখ্য সুশান্ত সিংয় রাজপুতের মৃত্যুর পর মহেশ ভাটের অ্যাসোসিয়েট সুহিত্রা সেনগুপ্ত ন্যাশান্যাল হেরাল্ডকে দেওয়া সাক্ষাত্কারে বলেন, সড়ক টু-য়ের জন্য সুশান্ত যখন মহেশ ভাটের সঙ্গে কথা বলতে গিয়েছিলেন তখনই নাকি মহেশ ভাট বুঝে যান সুশান্তের অবস্থা পারভিন ববির মতো হয়ে যাচ্ছে। একমাত্র ওষুধই পারবে তাঁকে ঠিক রাখতে। এখনানেই থেকে থাকেননি তিনি, আরও যোগ করেন সুশান্ত নাকি বিভিন্ন রকম আওয়াজ শুনতে শুরু করেছিলেন। তাঁর মনে হতো কেউ তাঁকে মারার চেষ্টা করছে। তাই রিয়াও আর সুশান্তকে সামলাতে পারেনি। মহেশ ভাট নাকি রিয়াকে সুশান্তের থেকে দূরে সরে যাওয়ার পরামর্শও দেন। প্রসঙ্গত ইন্ডাস্ট্রিতে মহেশ ভাট ঘনিষ্ঠ বলেই পরিচিত রিয়া। তাঁর শেষ ছবি জলেবির প্রযোজক মহেশ ভাট-মুকেশ ভাটের বিশেষ ফিল্মস। 

পাশাপাশি মহেশ ভাটের দাদা মুকেশ ভাট সুশান্তের মৃত্যুর পর টাইমস নাও'কে জানান, সড়ক টুয়ের সময় কথা বলার সময় আমার মনে হয়েছিল, সুশান্ত অত্যন্ত ডিস্টার্বড। তাঁর মধ্যে কিছু ছিল,যার সঙ্গে ওঁর যোগসূত্র ছিল না বলে আমার মনে হয়েছিল।’ এই কথা সামনে আসার পর ভাট ক্যাম্পের মানসিকতা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন নেটিজেনরা। পিছিয়ে ছিলেন না বাবুল সুপ্রিয়ও। তিনিও একহাত নেন মুকেশ ভাটকে। বলেন,'পেশাগত কারণে আপনি ওঁকে (সুশান্ত) সড়ক ২, আশিকী ২ নাই দিতে পারেন, যা যুক্তিসঙ্গত, কিন্তু বাবার বয়সী একজন হয়ে আমি কিছু করলেন না এবং ওঁকে সাহায্য করলেন না।’

এই বিতর্কের আগুনে যে মহেশ ভাটের আজকের টুইট আরও ঘি ঢালল সেটা বলাই চলে। 

বন্ধ করুন