বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > মেয়ের জন্মের পর দত্তক সন্তানদের সঙ্গে দুর্ব্যবহারের অভিযোগ, মুখ খুললেন মাহি ভিজ
মুখ খুললেন মাহি
মুখ খুললেন মাহি

মেয়ের জন্মের পর দত্তক সন্তানদের সঙ্গে দুর্ব্যবহারের অভিযোগ, মুখ খুললেন মাহি ভিজ

দুই দত্তক সন্তানের প্রতি অনাচারের অভিযোগ, সমালোচনার বিরুদ্ধে মুখ খুললেন মাহি ভিজ।

দত্তক সন্তানদের আর খেয়াল রাখছেন না জয় ভানুশালি ও মাহি ভিজ। নিজেদের সন্তান জয়-মাহির জীবনে আসবার পর থেকেই নাকি পালটে গিয়েছেন এই দম্পতি। উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের অগস্ট মাসে কন্যা সন্তানের জন্ম দেন মাহি। মেয়ের নাম রাখেন তারা। এরপর থেকেই নানান সময়ে দত্তক সন্তানদের যত্ন না নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে তাঁদের বিরুদ্ধে। অবশেষে এই সমালোচনা নিয়ে মুখ খুললেন মাহি। 

ইনস্টাগ্রামে দীর্ঘ বিবৃতি পোস্ট করে মাহি জানিয়েছেন, কেন তিনি তাঁর দুই সন্তান খুশি এবং রাজবীরকে তাঁদের দাদু-ঠাকুমার কাছে থাকতে পাঠাচ্ছেন। পোস্টে তিনি লিখেছেন, ‘বহু মানুষ অনেক কিছু বলছে, অনেক প্রশ্ন তুলছে, অনেক কিছু ধারণা করে নিচ্ছে, অনেক কথাই লিখছে এবং ঠিক আছে তাঁরা যা লিখছে! হ্যাঁ আমরা ওদের বাবা-মা, তবে ওদের নিজের বাবা-মাও রয়েছেন! রাজবীর আর খুশি আমাদের জীবনে সুন্দর একটা আশীর্বাদের মতো এসেছে, তারার আগমনে ওদেরর প্রতি আমাদের ভালবাসার কোনও কমতি হয়নি’।

তিনি আরও লেখেন, যখন খুশি আমাদের জীবনে প্রবেশ করেছে, আমরা বাবা-মা হয়েছি। কিন্তু আমরা তখনই সিদ্ধান্ত নিয়েছি তাঁদের (বায়োলজিক্যাল) বাবা-মায়েরই ওঁদের প্রতি সব থেকে বেশি অধিকার থাকবে, সবার আগে। তাঁদের বাবা-মা  যখন চাইল মুম্বই ছেড়ে নিজের শহরে ফিরে যেতে তখন ওঁরাও ফিরে গেল। এবং আমি মনে করি বাবা-মায়ের থেকে বেশি কেউই তাঁদের সন্তানের ভালোর কথা ভাবতে পারেন না’।

মাহি আরও বলেন, এটা তাঁদের খুব দুঃখ দেয় যখন কেউ খুশি এবং রাজবীরকে নিয়ে তাঁকে এবং জয়কে প্রশ্ন তোলে। অনেকে দাবি করেন, তাঁরা তাঁদের দুই সন্তানকে পরিত্যক্ত করেছেন ‘তারা’ আসার পর। যদিও তাঁদের  দুই সন্তান নিজেদের বাবা-মায়ের সঙ্গে গ্রামের বাড়িতে রয়েছে, এবং ভিডিও কলস মেসেজ দুই সন্তানের সঙ্গেই নিয়মিত তাঁদের যোগাযোগ রেখেছেন বলে তিনি জানান।

 খুশি এবং রাজবীরকে নিয়ে যাঁরা প্রশ্ন করছেন তাঁদের উদ্দেশে মাহি বলেছেন, আপনারা ওদেরকে আমাদের সঙ্গে দেখেননি অথবা অনুভবও করেননি আমরা ওদের বর্জিত করেছি, দয়া করে এসব বলবেন না! এটা আমাদের দুঃখ দেয়, আমাদের সন্তানরা বড় হচ্ছে, তাঁরা এইসব জানতে পারলে দুঃখ পাবে। আমাদের কাছে আমাদের তিন সন্তানই সমান। যতই ওরা আমাদের ছেড়ে থাকুক, আমাদের কাছে সব সময় মূল্যবান ওরা’।

মাহি আরও জানান খুশি এবং রাজবীরের জন্য বাড়ির দরজা সব সময় খোলা। তিনি লেখেন, ‘ওদের দুটো বাড়ি চিরজীবনের জন্য থাকবে, একটা তাঁদের গ্রামের বাড়ি এবং একটা আমাদের বাড়ি। যে কোনও অনুষ্ঠান দিওয়ালি, ক্রিসমাস, এমনকি খুশির জন্মদিনও একসঙ্গে উদযাপন করি আমরা। আমাদের ভালবাসার কোনও পরিবর্তন হবে না, বরং সময়ের সঙ্গে বাড়তে থাকবে’।

শেষে তিনি লেখেন, ‘আমরা আশাবাদী আপনারা সমস্ত প্রশ্নের উত্তর এবং ধারণা বাকি সব কিছু সম্পর্কে বুঝতে পেরেছেন!! দয়া করে আমার বাচ্চাদের আশীর্বাদ করুন তাঁদের শুভকামনা করুন, তাঁরা সব সময় ইতিবাচক এবং ভালো কাজ করুক!!’

২০১৭ সালে নিজেদের কেয়ারটেকারের দুই সন্তান খুশি এবং রাজবীরকে দত্তক নিয়েছেন মাহি এবং জয়। তখন থেকেই তাঁদের সমস্ত দায়িত্ব এই দম্পতির। 

বন্ধ করুন