বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > ‘ঘড়ি নয় বাপি, আমায় একটু সময় দিস’, বাবার জন্মদিনে স্মৃতির পাতা থেকে পোস্ট মীরের

‘ঘড়ি নয় বাপি, আমায় একটু সময় দিস’, বাবার জন্মদিনে স্মৃতির পাতা থেকে পোস্ট মীরের

বাবার সঙ্গে মীর

বাবার জন্মদিনে আবেগঘন পোস্ট মীরের। লড়াই শুধু সেই এক ব্যক্তির নয়, আশেপাশের সকলের; সেই বার্তাও উঠে এসেছে মীরের পোস্টে।

সোশ্যাল মিডিয়াতে দারুণ সক্রিয় মীর। নিত্য দিনের বিভিন্ন ঘটনা সামাজিক মাধ্যমে শেয়ার করে থাকেন তিনি। তেমনি বাবার ৭৬তম জন্মদিনে বিশেষ পোস্ট সঞ্চালক-অভিনেতার।

গত পাঁচ বছর ধরে ডিমেনশিয়ায় আক্রান্ত মীরের বাবা। এই বিশেষ দিনে নিজের সোশ্যাল মিডিয়াতে বাবার কেট কাটার ছবি পোস্ট করেছেন মীর। দামী উপহার নয় জন্মদিনে ছেলের কাছে আবদার করেছিলেন একটু সময়ের। তাইতো সময়কে সবথেকে বেশি মূল্য দেন মীর আফসার আলি। বাবার বলা কিছু মূল্যবান কথা সামাজিক মাধ্যমের পাতায় শেয়ার করলেন তিনি।

এদিন সক্কাল সক্কাল সামাজিক মাধ্যমের পাতায় বাবার ছবি পোস্ট করেন মীর। এরপরই ক্যপশনে উঠে এল তাঁর জীবনের অভিজ্ঞতার কিছু কথা। লিখেছেন, ‘আজ আব্বার জন্মদিন। বছর ছয়েক আগে আব্বাকে জিজ্ঞেস করেছিলাম, জন্মদিনে কী গিফ্ট চান তিনি। আমার খুব ঘড়ির শখ। নানান ধরণের মডেল। বিদেশি ঘড়ি আমার বিশেষ দুর্বলতা। তো আব্বাকে ভীষণ উৎসাহিত হয়ে বললাম, 'আব্বা… এই বছর আপনার জন্য আমার তরফ থেকে ঘড়ি'। মুচকি হেসে আব্বা বললেন, 'ঘড়ি নয় বাপি, আমায় একটু সময় দিস'।

বাবার ডিমেনশিয়ায় আক্রান্ত হওয়ার খবর জানিয়ে মীর লেখেন, ‘ঘটনাটা আমার যতটা স্পষ্ট মনে আছে, আব্বার স্মৃতিতে সেটা ততটাই ঝাপসা। গত ৫ বছর ধরে ডিমেনশিয়ার সঙ্গে লড়ছেন আমার আব্বা। কিছুই মনে থাকে না। দিনক্ষণ, সাল, সময় – কোন কিছুরই জ্ঞান বিশেষ নেই। হ্যাঁ, এখনও চিনতে পারেন আমায়। নাম ধরে ডাকেন। আব্বা বললে সাড়া দেন। চিকিৎসা চলছে। আমি আশাবাদী। ডাক্তারদের উপর আমার অগাধ বিশ্বাস’।

অবশেষে মীর পোস্টে জানিয়েছেন, ‘আপনার বাড়িতেও কি এমন কেউ আছেন যিনি কাজে মন দিতে পারছেন না, সব ভুলে যাচ্ছেন এক এক করে? অবহেলা করবেন না। দেরী করবেন না। তাঁদের দূরে ঠেলে দেবেন না। যাঁদের আজকাল মনে থাকে না, তাঁদের আরও বেশি করে মনে ধরে রাখুন। ভাল থাকবেন সবাই। আমার আব্বার জন্য একটু দোয়া করবেন। আমার আর কিচ্ছু চাই না।’

লড়াই শুধু সেই এক ব্যক্তির নয়, আশেপাশের সকলের; সেই বার্তাও উঠে এসেছে মীরের পোস্টে।

 

বন্ধ করুন