বাড়ি > বায়োস্কোপ > দিশা সালিয়ানের মৃত্যু নিয়ে কোনও তথ্য থাকলে জানান,জনতার কাছে আবেদন মুম্বই পুলিশের
সুশান্ত সিং রাজপুতের প্রাক্তন ম্যানেজার দিশা সালিয়ান 
সুশান্ত সিং রাজপুতের প্রাক্তন ম্যানেজার দিশা সালিয়ান 

দিশা সালিয়ানের মৃত্যু নিয়ে কোনও তথ্য থাকলে জানান,জনতার কাছে আবেদন মুম্বই পুলিশের

  • প্রাক্তন ম্যানেজার দিশা সালিয়ানের রহস্য মৃত্যুর ছয় দিনের মাথায় মৃত্যু হয় সুশান্ত সিং রাজপুতের।

সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর ঠিক ছয়দিন আগে রহস্যজনক পরিস্থিতিতে মৃত্যু হয় অভিনেতার প্রাক্তন ম্যানেজার দিশা সালিয়ানের। ৮ ও ৯ জুনের মধ্যবর্তী রাতে মুম্বইয়ের একটি হাইরাইজের ১৪ তলা থেকে পড়ে মৃত্যু হয় দিশার। মালওয়ানি পুলিশ থানার মতে তাঁকে শতাব্দী হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে মৃত বলে ঘোষণা করা হয়। মুম্বই পুলিশ এই মামলাকেও আত্মহত্যা বলেই দাবি করেছে। সুশান্তের মৃত্যুর পর অভিনেতা ও তাঁর প্রাক্তন ম্যানেজারের মৃত্যুর মধ্যে যোগসূত্র রয়েছে-এমন দাবি উঠে এসেছে বিভিন্ন মহল থেকে। তবে সেই তত্ত্ব মানতে না-রাজ মুম্বই পুলিশ। তাঁদের জবাব কোনও যোগ নেই দুই মামলায়। 

সুশান্তের বাবা তাঁর দায়ের করা এফআইআরে দাবি করেন, সুশান্তকে দিশার মৃত্যুর মামলায় ফাঁসিয়ে দেওয়ার হুমকি দিচ্ছিলেন রিয়া চক্রবর্তী। অন্যদিকে সুশান্তের পরিবারের ঘনিষ্ঠ মহল থেকে দাবি করা হয়েছে দিশা সালিয়ানের মৃত্যুর পর পাল্টে গিয়েছিল সুশান্তের আচরণ, জানিয়েছেন তাঁর দিদি মিতু সিং, যিনি ৮ই জুন থেকে ১২ জুন পর্যন্ত সুশান্তের বান্দ্রার অ্যাপার্টমেন্টে উপস্থিত ছিলেন। অন্যদিকে মঙ্গলবারই একটি চাঞ্চল্যকর অভিযোগ আনেন মহারাষ্ট্রের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী, বিজেপি নেতা নারায়ণ রানে। তিনি বলেন, দিশাকে ধর্ষণ করে খুন করা হয়েছে।এবং সুশান্ত সিং রাজপুতেরও খুন হয়েছে, ওটা আত্মহত্যা নয়। তিনি বলেন দিশার ময়নাতদন্তের রিপোর্টেও নাকি ধর্ষণের বিষয়টি উল্লেখ রয়েছে। 

এমন চাঞ্চল্যকর পরিস্থিতিতে বুধবার মুম্বই পুলিশের ডেপুটি কমিশনার (জোন-১১) বিশাল ঠাকুর বলেন, আমরা বলতে পারছি না উনি কীভাবে পড়ে গিয়েছিলেন। অনেক মানুষ সালিয়ানকে নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় অনেক তথ্য শেয়ার করছেন। আমরা অনুরোধ করছি এই মামলার সঙ্গে জড়িত কোনও উল্লেখযোগ্য সূত্র থাকলে সেটা মুম্বই পুলিশের সঙ্গে ভাগ করে নিতে। তাহলে সঠিকভাবে তদন্ত হতে পারে। জানানো হয়েছে, যে কেউ দিশা সম্পর্কে কোনও তথ্য দিতে চান, তিনি সরাসরি নর্থ রিজিয়নের অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার দিলীপ সাওয়ান্তকে ফোন করে কিংবা মালওয়ানি ডিভিশনের সহকারী কমিশনার অফ পুলিশকে ফোন করে তথ্য সরবারাহ করতে পারে। 

দিশার মৃত্যুর তদন্তেও নাকি রহস্যজনক কিছুই হাতে আসেনি পুলিশের। এই মামলায় এখনও পর্যন্ত ৯ জনের বয়ান রেকর্ড করা হয়েছে। দিশার হবু বর, রোহন রায়, এবং সেই রাতের পার্টিতে হাজির চার বন্ধুর এবং দিশার বাবা,মা এবং বিল্ডিংয়ের সিকিউরিটি গার্ডের বয়ান নেওয়া হয়েছে। 

বন্ধ করুন