বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > প্যান্টের মধ্যে হাত ঢুকিয়ে দিয়েছিল শিক্ষক, বিস্ফোরক অভিনেত্রী মুনমুন দত্ত !
মুনমুন দত্ত।     ছবি সৌজন্যে - হিন্দুস্তান টাইমস 
মুনমুন দত্ত।     ছবি সৌজন্যে - হিন্দুস্তান টাইমস 

প্যান্টের মধ্যে হাত ঢুকিয়ে দিয়েছিল শিক্ষক, বিস্ফোরক অভিনেত্রী মুনমুন দত্ত !

যৌন নির্যাতন নিয়ে মুখ খুললেন অভিনেত্রী মুনমুন দত্ত।সোশ্যাল মিডিয়ায় এক খোলা চিঠিতে লেখেন ছোটবেলা থেকে তাঁর ওপর হওয়া যৌন হেনস্থার অভিজ্ঞতা।যৌন হেনস্থার বিরুদ্ধে গর্জে উঠে প্রতিবাদ করার কথাও বলেছেন তিনি।

বাসে,ট্রামে,রাস্তায় যৌন হেনস্থার শিকার হয়েছেন বহু নারী। তবে মেয়েদের ওপর যৌন নির্যাতন যে শুধু বাড়ির চৌহদ্দির বাইরেই হয় এ ধারণা সম্পূর্ণ ভুল। অনেকসময় পরিবারের সদস্য কিংবা কোনও কাছের আত্মীয়ও নারীদের যৌন নির্যাতনের ক্ষেত্রে অন্যতম মাধ্যম হয়ে দাঁড়িয়েছে। এবার যৌন হেনস্থা ও যৌন নির্যাতনের বিরুদ্ধে প্রকাশ্যে মুখ খুললেন অভিনেত্রী মুনমুন দত্ত। সোশ্যাল মিডিয়ায় লেখা একটি চিঠি শেয়ার করেছেন তিনি।সেই চিঠিতে মেদহীন, কাটাকাটা ভাষায় মুনমুন জানিয়েছেন ছোটবেলা থেকেই একাধিকবার যৌন হেনস্থার শিকার হয়েছেন তিনি।

 

 ১৩বছর বয়স হওয়ার পর থেকেই পাশের বাড়ির কাকা, তাঁর তুতো ভাইয়েরা এবং তাঁর গৃহশিক্ষকও যৌন হেনস্থা করেছে৷এখানেই না থেমে মুনমুন জানিয়েছেন যে শরীরে নারীত্বের চিহ্ন ফুটে ওঠার পরপরই পাশের বাড়ির কাকা থেকে শুরু করে তাঁর জন্মের সময় দেখতে আসা এক দাদাও তাঁকে যৌন হেনস্থা করেছে। মুনমুনেরকথায়,' পাশের বাড়ির সেই  কাকু আমাকে একলা পেয়ে জড়িয়ে ধরেছিল৷ তারপর বাজে ভাবে আচরণ করছিল৷এখন সেই কথা ভাবলে রাগ হওয়ার সঙ্গে ঘেন্নায় গা গুলিয়ে ওঠে।

' শুধু তাই নয় তাঁর বাড়ির এক গৃহশিক্ষকের যৌনলালসারও শিকার হতে হয়েছিলতাঁকে। মুনমুনের জবানিতে ,'একবার সুযোগ পেয়ে আমার প্যান্টে হাত ঢুকিয়ে দিয়েছিল গৃহশিক্ষক৷ মুনমুনের কথায় উঠে এসেছে আরেক ' শিক্ষক ' এর কথাও যাঁরহাতে তিনি রাখি বেঁধেছিলেন। সেই শিক্ষক নাকি অন্তর্বাসের স্ট্র্যাপ টেনে থাপ্পড় মারত স্তনে ! 

নিজের লেখার শেষে স্পষ্ট করেমু নমুন জানিয়েছেন যে যৌন নির্যাতনের বিরুদ্ধে কখনওই চুপ করে থাকা উচিত নয়।কোনও পরিস্থিতিতেই নয়। বদলে গর্জে ওঠা উচিৎ।মুখোমুখি প্রতিবাদ করা উচিৎ।

বন্ধ করুন