বাড়ি > বায়োস্কোপ > আলিয়ার অভিযোগ মিথ্যা, স্ত্রীর ডিভোর্স মামলায় পালটা নোটিশ নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকির
দ্বিতীয় স্ত্রী আলিয়ার সঙ্গে নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকি 
দ্বিতীয় স্ত্রী আলিয়ার সঙ্গে নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকি 

আলিয়ার অভিযোগ মিথ্যা, স্ত্রীর ডিভোর্স মামলায় পালটা নোটিশ নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকির

  • পালটা নোটিশে আলিয়ার বিরুদ্ধে প্রতারণা, ইচ্ছাকৃৃতভাবে মানহানির কথা জানিয়েছেন নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকি।

স্ত্রী আলিয়া সিদ্দিকির ডিভোর্স নোটিশের জবাব দিলেন অভিনেতা নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকি। গত মাসের ৬ তারিখ নওয়াজের বিরুদ্ধে একাধিক গুরুতর অভিযোগ এনে ডিভোর্স নোটিশ পাঠান অভিনেতার দ্বিতীয় স্ত্রী আলিয়া ওরফে অঞ্জনা।দাবি করেছিলেন বিশাল অঙ্কের খোরপোশও। অবশেষে নিজের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগের জবাব দিলেন নওয়াজ। পালটা নোটিশে আলিয়ার বিরুদ্ধে  প্রতারণা, ইচ্ছাকৃৃতভাবে মানহানির কথা বলা হয়েছে।

নওয়াজের আইনজীবী আদনান শেখ ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসকে জানিয়েছেন, ১৫ই মে নওয়াজ তাঁর স্ত্রীর বিরুদ্ধে পালটা নোটিশ পাঠিয়েছেন। অর্থাত্ আইনত জবাব দেওয়ার সময়সীমার মধ্যেই ডিভোর্স মামলার নোটিশের জবাব দিয়েছেন নওয়াজ। তা সত্ত্বেও তাঁর মক্কেলের বিরুদ্ধে মিথ্যা প্রচার চালাচ্ছেন আলিয়া। 

আইনজীবী বলেন, আলিয়া নওয়াজকে ৬ই মে ডিভোর্স নোটিশ পাঠান। আমাদের তরফ থেকে আমরা জবাব দিয়েছি। পরবর্তী জবাব আলিয়াকে নিতে হবে। আমার মক্কলেরে মানহানির চেষ্টা চালাচ্ছেন আলিয়া। ওঁনার কাছে যোগ্য জবাব না পেলে আমরা আইনি ব্যবস্থা নেব। 

আলিয়া নওয়াজের বিরুদ্ধে অভিযোগ এনে বলেছিলেন মাসিক খরচ বাবদ কোনও টাকাই আলিয়া ও ছেলেমেয়েদের দিচ্ছেন না অভিনেতা। সেই কারণে, ছেলেমেয়ের স্কুলের বেতন দিতে পারছেন না নওয়াজ পত্নী। যদিও নোটিশে নওয়াজ জানিয়েছেন তিনি সমস্ত ইএমআই (EMI) এবং বাকি খরচ নিয়মিত দিয়ে চলেছেন। সেইসব টাকা দেওয়ার প্রমান্য নথিপত্রও নোটিশের সঙ্গে জুড়ে দেওয়া হয়েছে।লকডাউন শুরুর আগেই নাকি আলিয়াকে একটি মোটা অঙ্কের টাকা দেন নওয়াজ,যাতে ছেলেমেয়ের কোনও সমস্যা না হয়,সেই কথাও উল্লেখ করা হয়েছে নোটিশে।

আদনান শেখের দাবি জানিয়েছেন, ‘আমার মক্কেলকে জনসমক্ষে অপবাদ দিয়ে তাঁর মানহানি করবার ক্যাম্পেন চালাচ্ছেন আলিয়া’।

নওয়াজউদ্দিন ও আলিয়ার দাম্পত্যের মেয়াদ ১০ বছর। ২০১৭ সালে তাঁদের সম্পর্কে চিড় ধরেছে বলে জানা যায়। তারপর থেকেই আলাদা থাকেন দুজনে। দূরে থাকলেও এখনও আইনি মতে স্বামী-স্ত্রী তাঁরা। 

এবিপি নিউজ-কে আলিয়া বিবাহবিচ্ছেদের কারণ সম্পর্কে জানিয়েছেন, ‘শুধু একটি নয় নওয়াজের সঙ্গে আমার সম্পর্কের অবনতির পিছনে একাধিক গুরুতর কারণ রয়েছে। বিয়ের একবছরের মধ্যে ২০১০ সাল থেকেই আমাদের মধ্যে সমস্যা দেখা দেয়। এতদিন পর্যন্ত তবু সব সামলেছিলাম, কিন্তু এখন সবকিছু সীমা ছাড়িয়ে হাতের বাইরে চলে গিয়েছে।’

নবভারত টাইমস সূত্রে খবর নওয়াজের কাছে ৩০ কোটি টাকা দাবি করেছেন আলিয়া। ১০ কোটি নিজের জন্য, বাকি ২০ কোটি দুই ছেলেমেয়ের জন্য। পাশাপাশি মুম্বইয়ে একটি ফোর বিএইচকে ফ্ল্যাটও বিবাহ বিচ্ছেদের নোটিশে দাবি করেন আলিয়া। 

আপতত উত্তরপ্রদেশের বুধানায় পৈতৃক বাড়িতে রয়েছেন নওয়াজ। গত মাসেই সেখানে পৌঁছান অভিনেতা। 

বন্ধ করুন