বাড়ি > বায়োস্কোপ > ভাইঝির আনা যৌন নির্যাতনের অভিযোগ নিয়ে মুখ খুললেন নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকি
নওয়াজ ও শামাস সিদ্দিকি 
নওয়াজ ও শামাস সিদ্দিকি 

ভাইঝির আনা যৌন নির্যাতনের অভিযোগ নিয়ে মুখ খুললেন নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকি

  • ছোটভাই মিনাজুদ্দিন সিদ্দিকির বিরুদ্ধে ভাইঝির আনা যৌন নির্যাজনের অভিযোগ নিয়ে প্রতিক্রিয়া দিলেন নওয়াজ ও তাঁর অপর ভাই শামাস সিদ্দিকি। 

অভিনেতা নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকির সবচেয়ে ছোট ভাই মিনাজুদ্দিন সিদ্দিকির বিরুদ্ধে যৌন নির্যাজনের অভিযোগ দায়ের করেছেন অভিনেতার অপর ভাইয়ের ২১ বছরের মেয়ে। সোমবার দিল্লির জামিয়া নগর পুলিশ থানায় নওয়াজের ভাইঝি অভিযোগ জানায়,'ছোটবেলায় কাকার হাতে যৌন নির্যাতনের শিকার হয়েছি'। তাঁর অভিযোগর তীর থেকে রেহাই পাননি নওয়াজও। তাঁর অভিযোগ নওয়াজ তাঁকে কোনদিনই সমর্থন করেনি। জেঠুকে সবটা বলা সত্ত্বেও সে কোনও গুরুত্ব দেয়নি ভাইঝির কাতর আবেদনে। ‘বড়ে পাপা(নওয়াজকে এই নামেই ডাকে সে) কে আমি পুরো ঘটনা জানিয়েছিলাম,ভেবেছিলাম উনি অন্য জগতে থাকেন।আমাকে বুঝবেন কিন্তু উনিও একইরকমের। বড়ে পাপা বলেছিল-কাকা হয়,এইরকম কোনওদিনই করতে পারেনা’।

 এব্যাপারে নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকির সঙ্গে যোগযোগ করা হয়েছিল হিন্দুস্তান টাইমসের পক্ষ থেকে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় তিনি জানান, আপনাদের চিন্তার জন্য অশেষ ধন্যবাদ। কিন্তু এই বিষয়ে আমি এখনই কোনও মন্তব্য করতে চাই না'।

নওয়াজউদ্দিনের ভাইঝি জানিয়েছেন এফআইআর দায়ের করবার পর নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকির তরফে পাঁচ বছর পর ফোনে যোগাযোগ করা হয় তাঁর সঙ্গে। তিনি জানান,'নওয়াজ বড়ে পাপা মঙ্গলবার রাতে ফোন করেছিল এবং বলল, তুমি আমার মেয়ের মতো,তুমি জানো আমি তোমাকে কতটা ভালোবাসি।উনি আমাকে সাহায্য করতে চান। এতগুলো বছরে কোনওদিনও আমার সঙ্গে উনি যোগাযোগ করেননি। গোটা পরিবার আমাকে বয়কট করেছিল বিয়ের পর। আমার শ্বশুর-শাশুড়ির বিরুদ্ধে একের পর এক মামলা দায়ের করে তাঁদের ধমকাচ্ছিল আমার পরিবার'। 

পাঁচ মাসের শিশু কন্যা ও স্বামীর সঙ্গে দিল্লিতে থাকে নওয়াজের ভাইঝি,অন্যদিকে তাঁর শ্বশুর-শাশুড়ি বুধানার বাসিন্দা।যেখানে নওয়াজেরও দেশের বাড়ি। আপতত সেখানেই রয়েছেন অভিনেতা। তাঁর ভাইঝিও সোমবারই বুধানার উদ্দেশ্য রওনা দিয়েছিল। সেখানেই থাকে তাঁর শ্বশুর-শাশুড়ি।তাঁদের সুরক্ষা নিয়েও ‘যথেষ্ট চিন্তিত’ নওয়াজের ভাইঝি।

সিদ্দিকি পরিবারের তরফে অভিযোগ তুলে নেওয়ার জন্য তাঁকে হুমকি দেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন নওয়াজের ভাইঝি। তাঁর দাবি, 'এক আত্মীয় আমাকে জানিয়েছে আমাদের অনেক ক্ষতি হয়ে যাবে যদি না আমি অভিযোগ তুলেনি। আমি সত্যি খুব চিন্তিত'।

মেয়েবেলায় ঘটা এই ভয়ানক ঘটনা প্রসঙ্গে সে জানায়,'আমার বাবা আমাকে অষ্টম শ্রেনির চেয়ে বেশি দূর পড়তে দেয়নি,আমার কাকা আমাকে খারাপভাবে ছুঁত। আমার তখন ১৩ বছর বয়স যখন উনি আমার উপর যৌন নির্যাতন করেন। আমি আমার বাবা (আলমাস সিদ্দিকি), বড়ে পাপা (নওয়াজ) এবং বাকি সকলকে বলেছিলাম-কেউ আমাকে সমর্থন করেনি'। 

অন্যদিকে বৃহস্পতিবার টুইটারের দেওয়ালে ভাইয়ের বিরুদ্ধে উঠা অভিযোগ অস্বীকার করে নওয়াজের উপর ভাই শামাস সিদ্দিকিও। 

শামাসের অভিযোগ আইনকে ভুল পথে চালিত করবার চেষ্টা করছে তাঁর ভাইঝি। তিনি জানান, কেউ কীভাবে আইনকে ভুল পথে চালনা করতে পারে এবং একই মামলার জন্য দুটো আলাদা বয়ান দিয়ে দুই ভিন্ন থানায় অভিযোগ জানাতে পারে। আগের বয়ানে নওয়াজের কোনও নাম ছিল না যেটা ২ বছর আগে দেওয়া হয়েছিল।সেই নিয়ে উত্তরাখন্ড হাইকোর্টে একটি মামলাও চলেছে'। তিনি আরও যোগ করেন ‘বোঝাই যাচ্ছে আসল উদ্দেশ্য কী এবং মিডিয়াতে  এই ভুয়ো খবর মিডিয়াতে কে ছড়াচ্ছে তাও পরিষ্কার। সত্যিটা শীঘ্রই সামনে আসবে’।

বন্ধ করুন