বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > জুতো পরে তিরুপতি মন্দিরে প্রবেশ, ক্ষমা চাইলেন নয়নতারা এবং ভিগনেশ
তিরুমালা মন্দিরে নয়নতারা-ভিগনেশ

জুতো পরে তিরুপতি মন্দিরে প্রবেশ, ক্ষমা চাইলেন নয়নতারা এবং ভিগনেশ

  • সদ্য বিবাহিত দম্পতির জুতো পরে মন্দিরে প্রবেশ নিয়ে বিতর্কের সূত্রপাত।

সদ্য বিবাহিত দক্ষিণী অভিনেত্রী নয়নতারা এবং পরিচালক ভিগনেশ শিবন। বিয়ের পরেই আইনি মামলায় জড়িয়ে পড়েছেন তাঁরা। প্রসঙ্গত, বিয়ের পরেই তিরুপতি মন্দিরে পৌঁছেছিলেন নব তারকা দম্পতি, ভগবানের আশীর্বাদ নিতে। জুতো পরে মন্দির চত্বরে প্রবেশ করতে বিপত্তি বাঁধে!

৯ জুন মহাবলীপুরমে দক্ষিণী রীতিনীতি মেনে বিয়ে করেন দু'জনে। বিয়ের পর নেটমাধ্যমে ছবি শেয়ার করেছিলেন নয়নতারা। লিখেছিলেন, ‘আমরা বিবাহিত।’ ১০ মে নয়নতারা নিজের স্বামীর সঙ্গে তিরুপতি মন্দিরে গিয়েছিলেন। হাতে হাত রেখে মন্দিরে প্রবেশ করেছিলেন সদ্য বিবাহিত দম্পতি। তাঁদের মন্দিরে যাওয়া নিয়ে বিতর্কের সূত্রপাত।

মন্দিরের নিয়ম লঙ্ঘনের জন্য ক্ষমা চেয়েছেন ভিগনেশ। ইন্ডিয়া টুডে-কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি জানিয়েছেন, ‘বিয়ের পর, আমরা বাড়ি না গিয়ে সোজা তিরুপতি মন্দিরে গিয়েছিলাম এবং এজুমালয়ানে বিয়ের অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছিলাম। এরপর মন্দির থেকে প্রচুর মানুষ বেরিয়ে এসে আমাদের ঘিরে ফেলে। তাই আমরা সেখান থেকে রওনা দিই। কিছুক্ষণ পর আবার এজুমালয়ান মন্দিরের সামনে আসি। আমরা তাড়াতাড়ি ফটোশ্যুট শেষ করে সেখান থেকে বেরিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম। কারণ ভক্তরা আমাদের দেখলে আবার ঘিরে ফেলবে।’

একই সাক্ষাৎকারে তিনি আরও বলেন, ‘এসবের মধ্যে আমরা পায়ের জুতোর দিকে নজর দিতে পারিনি। আমরা জুতা পরে হেঁটে ফেলেছি, আর ওই জায়গায় জুতা পরা নিষিদ্ধ ছিল। অসুবিধার জন্য আমরা ক্ষমাপ্রার্থী। বিয়ে করার ইচ্ছা নিয়ে আমরা গত মাসে পাঁচবার তিরুপতি গিয়েছি। নানা কারণে তিরুপতি মন্দিরে আমাদের বিয়ের আয়োজন করা সম্ভব হয়নি।’ আরও পড়ুন: টুকটুকে লাল শাড়িতে নয়নতারা, সিল্কের ধুতিতে ভিগনেশ, রইল বিয়ের অন্দরের ছবি

প্রসঙ্গত, তিরুমালা তিরুপতি দেবস্থানম বোর্ডের চিফ ভিজিলেন্স সিকিউরিটি অফিসার নরসিংহ কিশোরের অভিযোগ, নয়নতারা জুতো পরেই মন্দির চত্বরে ঘুরে বেড়িয়েছেন। মাদা স্ট্রিটে জুতো পরে হাঁটার অভিযোগ ওঠায় প্রবল বিতর্ক শুরু হয়েছে দক্ষিণের রাজ্যগুলিতে। 

এএনআইকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা ওই আধিকারিক সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ‘উনি (নয়নতারা) জুতো পরেই মাদা স্ট্রিটে ঘুরে বেড়াচ্ছিলেন। আমাদের নিরাপত্তারক্ষীরা বিষয়টি দেখা মাত্র পদক্ষেপ করে। সিসিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখা গিয়েছে ওঁরা (অভিনেত্রী এবং তাঁর স্বামী) এখানে ফটোশ্যুট করেছেন।' উল্লেখ্য, তিরুপতি মন্দির চত্বরে ফটোশ্যুট নিষিদ্ধ। 

বোর্ডের তরফে বিষয়টি নিয়ে নয়নতারার সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়। নরসিংহ কিশোরের কথায়, ‘আমরা নয়নতারার কাছে নোটিশ পাঠিয়েছি। ওঁর সঙ্গে কথাও বলেছি। ভগবান বালাজির কাছে ক্ষমা চেয়ে একটি ভিডিয়ো বার্তা দেবেন অভিনেত্রী। প্রেসের কাছেও পৌঁছে দেবেন ওই ভিডিয়োটি। তবু আমাদের তরফ থেকে নোটিশ পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।’

মহাবালিপুরমের শেরাটন গ্র্যান্ডে বসেছে নয়নতারা-ভিনেশের বিয়ের আসর। দুই পরিবার ও কাছের বন্ধুদের উপস্থিতিতেই বিয়ে সেরেছেন পরিচালক-অভিনেত্রী জুটি। পরিচালক ভিগনেশের সঙ্গে নয়নতারার প্রেমের কাহিনি শুরু ‘নানুম রাউড়িধান’ ছবির সেটে। ২০১৫ সাল থেকে সম্পর্কে ছিলেন তাঁরা। ৭ বছরের প্রেমিক পরিচালক ভিগনেশের সঙ্গে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হয়ে শুভেচ্ছায় ভাসছেন অভিনেত্রী। 

বন্ধ করুন