বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > বারবার NCB দফতরের চক্কর কাটছেন শাহরুখের ম্যানেজার ও দেহরক্ষী! ব্যাপারটা কী?
আর্থার রোড জেলে শাহরুখ খান 
আর্থার রোড জেলে শাহরুখ খান 

বারবার NCB দফতরের চক্কর কাটছেন শাহরুখের ম্যানেজার ও দেহরক্ষী! ব্যাপারটা কী?

  • কী কারণে এনসিবির দফতরে হাজির হয়েছেন শাহরুখের ম্যানেজার পূজা দাদলানি ও ব্যক্তিগত দেহরক্ষী? 

শুক্রবার সন্ধ্যায় শাহরুখ খানের দেহরক্ষী পৌঁছেছিলেন এনসিবির ব্যালাড এস্টেটের দফতরে। সংবাদ সংস্থা পিটিআই জানিয়েছে খামে মোড়া নথিপত্র  শাহরুখের তরফ থেকে এনসিবি আধিকারিকদের হাতে তুলে দিয়েছেন অভিনেতার বডিগার্ড। এর আগে বৃহস্পতিবার শাহরুখ খানের দীর্ঘদিনের ম্যানেজার পূজা দাদলানিকেও দেখা গিয়েছিল এনসিবির অফিসে। 

এনসিবির মুম্বই কার্যলয়ে প্রায় এক ঘন্টা ছিলেন পূজা। জানা গিয়েছে তিনিও এনসিবি কর্তাদের হাতে বেশ কিছু নথি তুলে দিয়েছেন। বাইরে অপেক্ষারত সাংবাদমাধ্যমের সামনে মুখ খোলেননি শাহরুখের ম্যানেজার বা দেহরক্ষী। 

অনন্যা পাণ্ডের বাড়িতে তল্লাশি অভিযান চালানোর দিনই দল বেঁধে মন্নতে হাজির হয়েছিল এনসিবির অফিসাররা। আরিয়ান খান সম্পর্কিত বেশ কিছু নথিপত্র জোগাড় করতেই নাকি আচমকা মন্নতে পৌঁছান মাদক নিয়ন্ত্রক সংস্থার আধিকারিকরা। সূত্রের খবর, এনসিবির তরফে আরিয়ান খানের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের নথি, মেডিক্যাল রিপোর্ট এবং তাঁর বিদেশ যাত্রা সম্পর্কিত যাবতীয় তথ্য জানতে চাওয়া হয়েছে। উল্লেখ্য, মার্কিন মুলুক থেকে পড়াশোনা করেছেন আরিয়ান খান। দীর্ঘ সময় বিদেশে থেকেছেন শাহরুখ-গৌরী পুত্র। 

গত ২রা অক্টোবর গোয়াগামী এক প্রমোদতরী থেকে শাহরুখ খান পুত্রকে আটক করে এনসিবি। পরের দিন গ্রেফতার করা হয় আরিয়ান খানকে। আরিয়ান খানের কাছ থেকে উদ্ধার হয়নি কোনও মাদক, তবে এনসিবির দলিল মেনে সেশন কোর্ট জানিয়েছে আরিয়ানের বন্ধু আরবাজ মার্চেন্টের কাছ থেকে উদ্ধার হওয়ার মাদক সম্পর্কে সব-তথ্যই ছিল আরিয়ানের কাছে এবং ওই মাদক আরিয়ানও সেবন করতেন। 

গত ২০শে অক্টোবর আরিয়ান খানের জামিনের আবেদন না-মঞ্জুর করে দেয় সেশন কোর্ট। এনবিসির হয়ে আদালতে সওয়াল করেন এএসজি অনিল সিং। নিম্ন আদালতে দু-বার ধাক্কা খাওয়ার পর জামিনের জন্য হাইকোর্টের দরজায় কড়া নেড়েছেন আরিয়ান, আগামী ২৬শে অক্টোবর বম্বে হাইকোর্টে শুনানি রয়েছে আরিয়ান খানের জামিনের আবেদনের। তার আগে আরিয়ানের বিরুদ্ধে আরও কড়া তথ্য-প্রমাণ জোগাড়ে কোমর বেঁধে নেমেছে এনসিবি। দফায় দফায় জেরা করা হচ্ছে অনন্যা পাণ্ডেকে। পাশাপাশি আরিয়ানের ব্যাঙ্কের লেনদেন খতিয়ে দেখছে এজেন্সি। ড্রাগ কিনতে কত টাকা খরচ করেছেন আরিয়ান, তার তদন্তের জন্যই আরিয়ান খান সম্পর্কিত নথিপত্র চেয়ে পাঠিয়েছিল সংস্থা। 

গ্রেফতারির পর দু-দফায় এনসিবি হেফাজতে ছিলেন আরিয়ান। গত ৮ই অক্টোবর থেকে আর্থার রোড জেলে বন্দি শাহরুখ পুত্র। কমপক্ষে ২৬ অক্টোবর পর্যন্ত এই জেলেই বন্দি থাকবেন তিনি। 

বন্ধ করুন