বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > Sameer Wankhede: আরিয়ান মামলার তদন্তকারী অফিসারের দায়িত্ব থেকে সরানো হল সমীর ওয়াংখেড়েকে
শুক্রবার এনসিবির অফিসে সমীর ওয়াংখেড়ে (PTI)
শুক্রবার এনসিবির অফিসে সমীর ওয়াংখেড়ে (PTI)

Sameer Wankhede: আরিয়ান মামলার তদন্তকারী অফিসারের দায়িত্ব থেকে সরানো হল সমীর ওয়াংখেড়েকে

  • আরিয়ান-সহ মোট ছয়টি মামলার দায়িত্বভার থেকে অব্যাহতি দেওয়া হল সমীর ওয়াংখেড়েকে।

নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরোর জোনাল ডিরেক্টর সমীর ওয়াংখেড়েকে সরিয়ে দেওয়া হল আরিয়ান খান মাদক মামলা থেকে। কেন্দ্রীয় মাদক নিয়ন্ত্রক সংস্থার তরফে শুক্রবার জানানো হয়েছে, ক্রুজ ড্রাগস পার্টি মামলার তদন্তকারী দলের অংশ থাকছেন না বিতর্কের কেন্দ্রবিন্দুতে থাকা এই দুঁদে অফিসার। সম্প্রতি সমীর ওয়াংখেড়ের বিরুদ্ধে তোলাবাজির অভিযোগ এনেছিল আরিয়ান মামলার পঞ্চনামায় উল্লেখিত এক সাক্ষী প্রভাকর সেইল। পাশাপাশি মহারাষ্ট্রের সংখ্যালঘু উন্নয়ন মন্ত্রী নবাব মালিকও বারবার আক্রমণ করেছেন সমীর ওয়াংখেড়েকে। চলছে পালটা জবাবদিহি-র পর্বও। 

তোলাবাজি-র অভিযোগ নিয়ে সমীর ওয়াংখেড়ের বিরুদ্ধে বিভাগীয় তদন্তও চালাচ্ছে এনসিবি। এর মাঝেই দিল্লিতে এনসিবির সদর দফতর থেকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে আরিয়ান-সহ মোট পাঁচটি হাইপ্রোফাইল মাদক-মামলা এবার সেন্ট্রাল ইউনিটের হাতে সঁপে দেওয়া হবে। হ্যাঁ, মুম্বই জোনাল টিমের হাতেই আর থাকছে না আরিয়ান মামলা।  

এদিন এনসিবির ডেপুটি ডিরেক্টের জেনারেল মুথা অশোক জৈন জানান, ক্রুজ ড্রাগ পার্টি-সহ মোট ছয়টি মামলা এনসিবি জোনাল (মুম্বই) টিম-এর থেকে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে দিল্লিতে বিস্তারিত তদন্তের জন্য। এবার থেকে সমীর ওয়াংখেড়ে আর ক্রুজ ড্রাগ মামলার তদন্তকারী দলে থাকছেন না। কিন্তু উনি এনসিবির মুম্বই জোনাল ডিরেক্টের পদে থাকবেন এবং অন্য সকল মামলা ওঁনার নজরদারির আওতাতেই থাকবে'। 

এই সিদ্ধান্ত নিয়ে সংবাদমাধ্যমকে ওয়াংখেড়ে জানিয়েছেন, ‘আমাকে অপসারিত করা হয়নি তদন্তকারী দল থেকে। আমি তো আদালতেই রিট পিটিশনে জানিয়েইছিলাম যে এই তদন্তভার কেন্দ্রীয় টিমের হাতে তুলে দেওয়া হোক। এবার থেকে আরিয়ান খান কেস এবং সমীর খান কেস দিল্লি এনসিবি-র বিশেষ দলের দায়িত্বে থাকবে। এটা এনসিবির দিল্লি ও মুম্বই টিমের মধ্যেকার সমঝোতা’। 

 জানা গিয়েছে একটি বিশেষ তদন্তকারী দল গঠন করা হয়েছে, যাঁরা এই ছয় মামলার ট্রান্সফারের জিম্মায় রয়েছে। আগামী রবিবারই মুম্বই এসে পৌঁছাবে সেই টিম। কী কারণে এই সিদ্ধান্ত?  এনসিবি সূত্র বলছে ‘এই পাঁচটি মামলার সঙ্গে জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক প্রভাব জড়িয়ে রয়েছে, এবং এই মামলাগুলিতে একাধিক রাজ্যের যোগ রয়েছে তাই এই কেসগুলি সেন্ট্রাল ইউনিটের হাতে থাকাই বাঞ্ছনীয়’। 

গত সোমবারই দিল্লিতে এনসিবি-র মুখ্য কার্যালয়ে হাজির ছিলেন সমীর ওয়াংখেড়ে। পাশাপাশি ন্যাশনাল কমিশন ফর শিডিউলড কাস্টস-এর চেয়ালপার্সন বিজয় সম্পলার সঙ্গেও সাক্ষাত্ক করেন সমীর ওয়াংখেড়ে। তাঁর বিরুদ্ধে জাল কাস্ট সার্টিফিকেট দিয়ে চাকরি পাওয়ার অভিযোগ তুলেছেন নবাব মালিক। 

গত ২রা অক্টোবর গোয়াগামী প্রমোদতরী থেকে আরিয়ান খান, আরবাজ মার্চেন্ট, মুনমুন ধামেচা-সহ আটজনকে গ্রেফতার করে এনসিবি। ওই দলের নেতৃত্বে ছিলেন সমীর ওয়াংখেড়ে। পরবর্তীতে ওই মামলায় সবমিলিয়ে মোট ২০জন গ্রেফতার হয়। 

 

বন্ধ করুন