বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > মোদীকে গান শোনানো শিশুর বিকৃত ভিডিয়ো টুইট কুণাল কামরার, কর্তৃপক্ষকে তা মুছে দেওয়ার নির্দেশ NCPCR-এর
ফের বিতর্কে কুণাল কামরা
ফের বিতর্কে কুণাল কামরা

মোদীকে গান শোনানো শিশুর বিকৃত ভিডিয়ো টুইট কুণাল কামরার, কর্তৃপক্ষকে তা মুছে দেওয়ার নির্দেশ NCPCR-এর

  • ফের বিতর্কে কমেডিয়ান কুণাল কামরা। জাতীয় শিশু অধিকার সুরক্ষা কমিশন টুইটার কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিল কমেডিয়ানের বিতর্কিত টুইট মুছে দিয়ে তাঁর বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নিতে। বার্লিনে মোদীকে দেশাত্মবোধক গান শোনানো শিশুর মরফড ভিডিয়ো পোস্ট করেন কুণাল। 

ফের বিতর্কে স্ট্যান্ড আপ কমেডিয়ান কুণাল কামরা। জাতীয় শিশু অধিকার সুরক্ষা কমিশন-এর রোষের মুখে কমেডিয়ান। বার্লিনে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে দেশাত্মবোধক গান শোনানো ভারতীয় শিশুর বিকৃত ভিডিয়ো টুইটের জেরে এদিন দিনভর চর্চায় থাকলেন কুণাল কামরা। টুইটার ইন্ডিয়াকে জাতীয় শিশু অধিকার সুরক্ষা কমিশন (NCPCR) লিখিত নির্দেশ দিয়েছে ওই বিকৃত ভিডিয়ো টুইট মুছে দেওয়ার জন্য। রাজনৈতিক স্বার্থ চরিতার্থ করতে ওই শিশুর বিকৃত ভিডিয়ো পোস্ট করেছেন কুণাল, এমনটাই জানিয়েছে জাতীয় শিশু অধিকার সুরক্ষা কমিশন।

এই ভিডিয়ো টুইটটি নিয়ে একাধিক অভিযোগ জমা পড়েছে জাতীয় শিশু অধিকার সুরক্ষা কমিশনে। কমিশন জানিয়েছে, রাজনৈতিক প্রোপাগ্যান্ডার জন্য কোনও শিশুর ভিডিয়ো বিকৃত করে পোস্ট করা জুভেনাইল জাস্টিস অ্যাক্ট ২০১৫' লঙ্ঘণ করেছেন কুণাল। পাশাপাশি এটি তথ্য প্রযুক্তি নিয়ম,২০২১-এরও পরিপন্থী। সর্বোপরি এই টুইট কোনও শিশুর সার্বিক বিকাশের এবং মানসিক স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকারক বলে মনে করেছে কমিশন।

কমিশন টুইটার কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছে অবিলম্বে যেন ওই টুইট মুছে দেওয়া হয়। এবং কুণাল কামরার অ্যাকাউন্টের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হয়। সিপিসিআর অ্যাক্ট ২০০৫-এর আওতায় ওই টুইট সরিয়ে দেওয়ার অধিকার রয়েছে মাইক্রো ব্লগিং সাইটের, জানিয়েছে কমিশন। আগামী সাতদিনের মধ্যে টুইটারকে অ্যাকশন রিপোর্ট জমা দিতে হবে।

ইতিমধ্যেই কুণাল কামরা বিতর্কিত একটি টুইট মুছে দিয়েছেন। যদিও সেই ‘মরফড’ ভিডিয়োর অপর এক টুইট এখনও মজুত রয়েছে কুণালের টুইটারের দেওয়ালে। জাতীয় শিশু অধিকার সুরক্ষা কমিশনে তাঁর বিরুদ্ধে দায়ের অভিযোগ নিয়েও মুখ খুলেছেন কুণাল। তিনি লেখেন, ‘এবার জাতীয় শিশু অধিকার সুরক্ষা কমিশন আমার বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেবে একটা মিমের জন্য, তাও আমি শুধু বলেছি, 'এটা কে বানিয়েছে?'

উল্লেখ্য, শিশুটি নরেন্দ্র মোদীকে ‘হে জন্মভূমি ভারত’ গানটি শুনিয়েছিল পরিবর্তে কুণালের ভিডিয়োতে ছিল ‘মেহেঙ্গায়ি ডায়ন খায়ে জাত হ্যায়’ গানটি। ২০১০ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ‘পিপলি লাইভ’ ছবির এই গান মূল্যবৃদ্ধির ইস্যুকে ঘিরে। মোদী সরকারকে কটাক্ষ করতেই এমনটা করেছিলেন কুণাল। শিশুটির বাবা গণেশ পল গোটা বিষয়টি নিয়ে প্রতিবাদে সরব হয়েছেন। তিনি বলেন, ‘আমি আইনি পদক্ষেপ নেব কুণালের বিরুদ্ধে।’ তিনি আরও জানিয়েছেন, ‘আমি আমার ছেলেকে এসব থেকে দূরে রাখতে চাই। আমার ছেলে তো এসব ফেসবুক, টুইটার জানে না। ও নিজের মাতৃভূমির উদ্দেশে দেশাত্মবোধক গান গাইছিল। আর সেটা নিয়েই সস্তা রাজনীতি হচ্ছে, যা একেবারেই কাম্য নয়’।

বন্ধ করুন