রবিবারই ব্যবসায়ী শার্দুল ব্যায়াসের সঙ্গে গাঁটছড়া বেঁধেছেন নেহা (সৌজন্যে-ইন্সটাগ্রাম)
রবিবারই ব্যবসায়ী শার্দুল ব্যায়াসের সঙ্গে গাঁটছড়া বেঁধেছেন নেহা (সৌজন্যে-ইন্সটাগ্রাম)

'বর ডিভোর্সি তো কী হয়েছে? আমিও তো ভার্জিন নই', বললেন নেহা পেন্ডসে

  • সদ্যই ব্যবসায়ী শার্দুল সিং ব্যায়াসের সঙ্গে সাত পাকে বাঁধা পড়েছেন টেলিভিশন অভিনেত্রী নেহা পেন্ডসে। তবে সোশ্যাল মিডিয়ায় ব্যাপক ট্রোলড হন নেহার স্বামী, কারণ তিনি ডিভোর্সি এবং তাঁর দুই মেয়ে রয়েছে।

সদ্যই বিয়ের পর্ব সেরেছেন টেলিভিশনের জনপ্রিয় মুখ নেহা পেন্ডসে। রবিবার ব্যবসায়ী শার্দুল সিং ব্যায়াসের সঙ্গে সাত পাকে বাঁধা পড়েন বিগ বসের এই প্রাক্তন প্রতিযোগী। তবে সোশ্যাল মিডিয়ায় ব্যাপক ট্রোলড হন নেহার স্বামী, কারণ তিনি ডিভোর্সি এবং তাঁর দুই মেয়ে রয়েছে। সম্প্রতি টাইমস অফ ইন্ডিয়াকে দেওয়া এক সাক্ষাত্কারে এই প্রসঙ্গে মুখ খুললেন নেহা। জানান, এটা এমন কি বড় ব্যাপার? আজকের দিনে আমরা অনেকেই দেরিতে বিয়ে করি অনেক কারণে, যার মধ্যে অন্যতম কেরিয়ারে ফোকাস। অনেকেই বিয়ের আগে একাধিক সম্পর্কে জড়ান। সেখানে কমিটমেন্ট, ভালোবাসা, শারীরিক ঘনিষ্ঠতা সবই থাকে-শুধু একটা সামাজিক সম্পর্কের ছাপ থাকে না। তাই শার্দুল ডিভোর্সি এটা নিয়ে লোকের এত মাথাব্যাথার কারণ কী? আমি তো ভার্জিন নই’।



'মে আই কাম ইন ম্যাডাম' খ্যাত অভিনেত্রী আরও বলেন, ‘আমি এই বিষয়টা খুব ভালোভাবে দেখেছি যে ও(শার্দুল) যে মহিলাকে ভালোবেসেছে তাঁর সঙ্গে ঘর বেঁধেছে। আমিও অনেক সম্পর্কে জড়িয়েছি যেখানে সম্পর্কটা যখনই বিয়ের জায়গায় পৌঁছেছে তাঁরা দায়িত্বে ঝেড়ে পালিয়েছে। শার্দুল কমিটমেন্টকে ভয় পায় না। বিয়ে নামক সমাজিক প্রতিষ্ঠানের প্রতি শার্দুলের যে বিশ্বাস সেটাকে আমি কুর্নিশ জানাই। আমি নিজেও মনে করি যদি বিয়ের পর তোমার মনে হয় এই সম্পর্কটা আর এগিয়ে নিয়ে যাওয়া সম্ভব নয়, তাহলে সেটা টেনে হিঁচড়ে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার কোনও মানে নেই, শেষ করে দেওয়াটাই শ্রেয়’।



বিয়ের পর নিজের নামও পাল্টে ফেলেছেন নেহা পেন্ডসে, এখন থেকে তিনি নেহা পেন্ডসে ব্যায়াস। কেন নাম বদলালেন ? নায়িকার সাফ জবাব, 'আমি শার্দুলের স্ত্রী হিসাবে গর্বিত তাই আমি শুরু থেকেই চেয়েছিলাম ওঁর নাম আমার নামের সঙ্গে যোগ করতে। বিয়ের পর পরই আমি আমার নাম পাল্টে ফেলেছি। আমরা সত্যি একে অপরকে ভালোবাসি'।

বন্ধ করুন