বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > 'সাহস থাকলে ধর্ষণ করে দেখাক', প্রতিবাদ সভায় গর্জে উঠলেন নুসরত জাহান
নুসরত জাহান (ছবি-ইনস্টাগ্রাম) 
নুসরত জাহান (ছবি-ইনস্টাগ্রাম) 

'সাহস থাকলে ধর্ষণ করে দেখাক', প্রতিবাদ সভায় গর্জে উঠলেন নুসরত জাহান

  • ‘এ কোন ভারতবর্ষে আমরা বাস করছি?' প্রশ্ন নুসরত জাহানের। 

মহিলা সহকর্মীদের বিরুদ্ধে অকারণেই ধেয়ে আসা ‘খুন’ ও ‘ধর্ষণ’-এর হুমকির প্রতিবাদে শনিবার পথে নামে টলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে। এই প্রতিবাদে শামিল হন বসিরহাটের তৃণমূল সাংসদ তথা টলি নায়িকা নুসরত জাহানও। সোশ্যাল মিডিয়া বা মিডিয়ায় কোনও কিছু নিয়ে মন্তব্য করলে অনলাইনে ক্রমাগত ধর্ষণ ও খুনের হুমকি দেওয়া হচ্ছে মহিলা শিল্পীদের।  সাম্প্রতিক সেই তালিকায় নিঃসন্দেহে রয়েছেন অভিনেত্রী সায়নী ঘোষ ও দেবলীনা দত্ত। আর নুসরতকে তো হামেশাই এই ধরণের হুমকির মুখে পড়তে হয়। 

সোমবার ধর্মতলার মেট্রো চ্যানেলে আয়োজিত এই প্রতিবাদ সভার নাম ছিল ‘এ কোন সকাল, রাতের চেয়েও অন্ধকার। নুসরত ছাড়াও অংশ নেন পরিচালক রাজ চক্রবর্তী, অভিনেত্রী দেবলীনা দত্ত, সায়সী ঘোষ, দেবলীনা দত্ত, কৌশিক সেন, ঋদ্ধি সেনরা। 

এদিনের প্রতিবাদ সভায় ফ্যাসিবাদী শক্তির বিরুদ্ধে সোচ্চার হলেন নুসরত। ‘এ কোন ভারতবর্ষে আমরা বাস করছি? এ কোন নিরাপত্তা। কীসের সুরক্ষা? কে রেপ করবে?' প্রশ্ন নুসরতের। তিনি সাফ জানিয়ে দেন, যে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মহিলা সেখানকার মেয়েরা ধর্ষনের হুমকিতে ভয় না। তিনি আরও যোগ করেন, ‘ধর্ষণের হুমকি আমিও পাই।কথায় কথায় উড়ে আসে। দম থাকলে আয় রেপ করে দেখা… কিন্তু আমি বা এই মঞ্চে উপস্থিত কোনও মহিলা এ ধরনের হুমকিতে ভয় পায় না। সাহস থাকলে আমাদের ঘরে ঢুকে ধর্ষণ করে দেখাক। বাংলার মেয়েরা এভাবেই এগিয়ে যাবে… বাংলার বাড়িতে বাড়িতে ঝাঁটা আছে, বঁটি আছে। কেউ আমাদের ভয় দেখালে তাঁদের ঝেঁটিয়ে বিদায় করব’।

প্রতিবাদ মঞ্চে দাঁড়িয়ে তিনি বিরোধী শিবিরের উদ্দেশ্যে প্রশ্ন ছুঁড়ে দেন, ‘তোমরা বাংলার সংস্কৃতি বোঝো? বোঝোনা বলেই বাংলার মেয়েদের অপমান করো। জেনে রাখো বাংলার মেয়েদের সম্মান তাঁদের হাতে যা তোমরা কেড়ে নিতে পারবে না'। মঞ্চ থেকে নেমে যাওয়ার আগে তারকা সাংসদ বললেন, ‘আজ সায়নী-দেবলীনার সঙ্গে যা হয়েছে তা যাতে আর কোনও মেয়ের সঙ্গে না হয়, সেই জন্যই এই মঞ্চে এসেছি।’

জয় শ্রীরাম ধ্বনি নিয়ে এক টেলিভিশন অনুষ্ঠানে মন্তব্য করার অভিনেত্রী সায়নী ঘোষকে আক্রমণ শানায় বিজেপি। অন্যদিকে এক টক-শো'তে দেবলীনা জানিয়েছিলেন নিজে নিরামিষাশী হলেও, তিনি গরুর মাংস রান্না করতে পারেন। এই নিয়ে তোলপাড় সোশ্যাল মিডিয়া। ক্রমাগত সোশ্যাল মিডিয়ায় ধর্ষনের হুমকি দেওয়া হয় দেবলীনাকে। এমনকি থানায় অভিযোগ দায়ের হয় তাঁর নামে। যদিও গোটা ঘটনায় দেবলীনা দত্তের পাশে দাঁড়িয়েছেন বাংলার শিল্পীরা।

বন্ধ করুন