বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > বসিরহাটে নুসরত জাহান, 'নিখোঁজ' পোস্টার প্রসঙ্গে মুখ খুললেন সাংসদ-অভিনেত্রী
বসিরহাটে নুসরত জাহান

বসিরহাটে নুসরত জাহান, 'নিখোঁজ' পোস্টার প্রসঙ্গে মুখ খুললেন সাংসদ-অভিনেত্রী

  • আমি নিখোঁজ নই, এলাকার মানুষের পাশেই আছি, বসিরহাট থেকে জবাব সাংসদ নুসরতের।

সপ্তাহ খানেক আগেই গোটা বসিরহাট জুড়ে পোস্টার পড়েছিল ‘নিখোঁজ’ সাংসদ নুসরত জাহান। নিখোঁজ সাংসদের খোঁজ চাই বলে পোস্টার পড়ায় জোর আলোড়ন সৃষ্টি হয়েছিল ওই এলাকায়। এমন পোস্টারেই ছয়লাপ ছিল হাড়োয়া বিধানসভার চাঁপাতলা পঞ্চায়েত এলাকা। বৃহস্পতিবার সকালে বসিরহাটে হাজির হয়েই সেই বিতর্কে মুখ খুললেন অভিনেত্রী সাংসদ নুসরত জাহান।

বহুদিন থেকে এলাকাবাসীর ক্ষোভ, সাংসদ হিসেবে কোন কাজই করেন না নুসরত। তাঁকে দেখাও নাকি যায় না এলাকায়। যদিও সমস্ত জল্পনা-কল্পনায় জল ঢেলে বসিরহাট কলেজের সংস্কার ও উন্নয়নের কাজ তদারকি করতে এ দিন পৌঁছে গিয়েছিলেন তিনি। বিষয়টি নিয়ে বৈঠকও করেছেন কলেজ কতৃর্পক্ষের সঙ্গে। এছাড়াও নিজের কেন্দ্রের বেশ কিছু জায়গা ঘুরে দেখেন অভিনেত্রী। আরও পড়ুন: ‘‌নুসরত জাহান নিখোঁজ, সন্ধান চাই’‌, বসিরহাট জুড়ে পোস্টার ফেলল তৃণমূলই!

বসিরহাট কলেজের গভর্নর গভর্নিং বডির মিটিংয়ে এসে সাংসদ-অভিনেত্রী ‘নিখোঁজ’ পোস্টার প্রসঙ্গে মুখ খুলেছেন। পোস্টারে লেখা ছিল ‘‌বসিরহাটের এমপি নুসরত জাহান নিখোঁজ, সন্ধান চাই। প্রতারিত জনগণ। প্রচারে তৃণমূল কর্মীবৃন্দ।’‌ তৃণমূল কংগ্রেস সাংসদের নামে এমন পোস্টার দেখে তৃণমূল কংগ্রেসের অন্য অংশ তা রাতারাতি সরিয়ে ফেলে। কিন্তু দলের সাংসদের বিরুদ্ধে দলের একটা অংশের কর্মীদের এই পোস্টার ফেলায় জোর চর্চা শুরু হয়।

এ দিন বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে নুসরত বলেন, 'বসিরহাটের মানুষের যখন প্রয়োজন তখনই বসিরহাটের মানুষ আমাকে পেয়েছে । বসিরহাটের মানুষের পাশে আমি আছি, ছিলাম এবং থাকব। করোনা কালেও আমি এসেছি। আমফান ঝড়ের সময়ও কিন্তু আমি এখানে পৌঁছেছি। পোস্টারের বিষয়টি টোটালি ফেক। কেউ কেউ ফেক পোস্টার মেরে আমার ছবি ব্যবহার করে আমার বদনাম করার চেষ্টা করছে। তাতে আমার কিছু যায় আসে না।'

 

বন্ধ করুন