বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > 'তোমার বাবা ফ্যামিলি ম্যান নন', মেয়ের কাছে এমন বিস্ফোরক কেন হয়েছিলেন নীনা?
নীনা ও মাসাবার সঙ্গে ভিভ। ছবি সৌজন্যে - হিন্দুস্তান টাইমস
নীনা ও মাসাবার সঙ্গে ভিভ। ছবি সৌজন্যে - হিন্দুস্তান টাইমস

'তোমার বাবা ফ্যামিলি ম্যান নন', মেয়ের কাছে এমন বিস্ফোরক কেন হয়েছিলেন নীনা?

  • বরাবরই চর্চায় থেকেছে ভিভিয়ান রিচার্ডস এবং নীনা গুপ্তার সম্পর্ক। বিয়ে না হওয়া সত্ত্বেও ভিভের সন্তানের মা হয়েছিলেন নীনা। তবে মেয়েকে জানিয়ে দিয়েছিলেন তাঁর বাবা কোনওভাবেই 'ফ্যামিলি ম্যান' নন।

নীনা গুপ্তার কেরিয়ারের তুলনায় তাঁর ব্যক্তিগত জীবন অনেক বেশি মাত্রায় চর্চায় ছিল। ক্যারিবিয়ান কিংবদন্তি ক্রিকেটার ভিভ রিচার্ডসের সঙ্গে নীনার প্রেম এবং বিয়ের বন্ধনে আবব্ধ না হলেও ভিভের সন্তানের মা হওয়ার ঘটনা তৎকালীন সময়ে আলোচনার অন্যতম বিষয় ছিল। ভিভের সঙ্গে নিজের সম্পর্ক নিয়ে যেমন কোনওদিন লুকোছাপা করেননি নীনা তেমনই আবার তাঁদের সন্তান মাসাবার মনকে তাঁর বাবার সম্পর্কে কখনও বিষিয়ে তোলেননি তিনি। ভিভের সঙ্গে তাঁর বিয়ে না হওয়া সত্ত্বেও সন্তান মাসাবার দায়িত্ব সম্পূর্ণ এক হাতে সামলেছেন এই বলি-অভিনেত্রী।

তবে মাসাবাকে একবার স্পষ্ট কথায় তাঁর মা বুঝিয়ে দিয়েছিলেন যে তাঁর বাবা মোটেই ফ্যামিলি ম্যান নয়! ২০১৫ সালে সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে সেকথা স্বীকার করে নীনা বলেন যে,' মাসাবাকে স্পষ্টভাবে বলে দিয়েছিলাম যে ওঁর বাবা একেবারেই ফ্যামিলি ম্যান নন।' তাহলে কেমন তাঁর সন্তানের বাবা? সেকথাও নীনা বুঝিয়ে দিয়েছিলেন। অভিনেত্রীর জবানিতেই জানা গেল ভিভ মাসাবার সঙ্গে সম্পর্ক রাখতে না বলে যারপরনাই কষ্ট পেত সে। তার ওপর ভিভ নিজেও যেহেতু খুব একটা ফোন, ল্যাপটপ ব্যবহার করতেন না তাই প্রযুক্তিগত দিক থেকেও তাঁকে ধরাছোঁয়া ছিল এককথায় অসম্ভব। ছোট্ট মাসাবা যাতে কষ্ট না পায় সেইজন্যই নীনা ভিভের ব্যাপারে মাসাবাকে বুঝিয়ে বলেছিলেন। তবে মাসাবা বড় হওয়ার পর ভিভ নিজে থেকেই যোগাযোগ রাখতে শুরু করেন।

ভিভ প্রসঙ্গে নীনা আরও বলেন,'ভিভ খুবই ভালো মনের একজন মানুষ। নম্র,ভদ্রও কিন্তু নিজের ইমোশন প্রকাশ করতে পারেন না। কখনও জন্মদিনে মাসাবাকে ফোন করত আবার কখনও হয়তো বছর তিনেক কোনও কোথায় বলত না মেয়ের সঙ্গে। আমার ক্ষেত্রেও দেখেছি, কিছু একটা চাইলে সেটা দেওয়ার জন্য পাগল হয়ে যেত। কিন্তু নিজে থেকে কিছু দেওয়ার কথা মনে হত না ওর।এরকমই ছিল ভিভিয়ান।' তবে ভিভের ব্যাপারে ক্রমাগত কোনও খারাপ কিংবা কটু মন্তব্য করে মেয়ের মনকে যে বাবার বিরুদ্ধে বিষিয়ে দেননি সেকথাও জোর গলায় বলেছিলেন নীনা। 'আমি এটা কখনও করিনি। কেন আমি মেয়ের মন বিষিয়ে তুলব? ভিভের প্রতি শ্রদ্ধা রয়েছে আমার। ভিভও আমাকে সম্মান করে। ফলে মাসাবা আমাদের দু’জনেই সম্মান করে', দৃপ্তভাবে জানিয়েছিলেন 'বাধাই হো'-র অভিনেত্রী।

 

বন্ধ করুন