বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > Rukmini Maitra: কুকুরকে কামড়েছিলেন ছোট্ট রুক্মিণী, পরে মারা যায় সেই কুকুর!
কুকুরকে কামড়েছিলেন রুক্মিণী!
কুকুরকে কামড়েছিলেন রুক্মিণী!

Rukmini Maitra: কুকুরকে কামড়েছিলেন ছোট্ট রুক্মিণী, পরে মারা যায় সেই কুকুর!

  • ঠিক কী ঘটেছিল? এক কুকুর কামড়ানোর গল্প ফাঁস করেন টলি সুন্দরী। দেবের মন্তব্য, ‘আর কুকুরটা মারা গিয়েছিল!’

সদ্য সিনেমাহলে মুক্তি পেয়েছে দেব এবং রুক্মিণী অভিনীত ‘কিশমিশ’। পর্দায় ফাটিয়ে ব্যবসা করছে এই সিনেমা। এরই মাঝে ‘কিশমিশ’ নায়িকার পুরনো একটি ভিডিয়ো ক্লিপ নেটমাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। সেখানেই পর্দার এই দাপুটে অভিনেত্রী জানিয়েছেন, একবার নাকি তিনি কুকুরকে কামড়েছিলেন। 

২০১৭ সালে শাশ্বত চট্টোপাধ্যায় 'অপুর সংসার' টেলিভিশন শো-এ গিয়ে হাজির হয়েছিলেন রুক্মিণী মৈত্র। 'চ্যাম্প' সিনেমা মুক্তির আগে ওই শোতে দেব-রুক্মিণী একসঙ্গে হাজির হন। সেখানেই এক কুকুর কামড়ানোর গল্প ফাঁস করেন টলি সুন্দরী। আড্ডার মাঝেই অভিনেত্রী বলেন, ‘আমাকে একটা কুকুর কামড়াতে এসেছিল। আমি উলটে ওকে কামড়ে দিয়েছিলাম।’ সঙ্গে সঙ্গে দেবের মন্তব্য, ‘আর কুকুরটা মারা গিয়েছিল!’ 

ঠিক কী ঘটেছিল? সেই প্রসঙ্গে অভিনেত্রী বলেন, ‘আমি বাবা-মায়ের সঙ্গে এক আত্মীয়ের বাড়িতে গিয়েছিলাম। যে আঙ্কলের বাড়িতে গিয়েছিলাম তাঁর একটা অ্যালসশিয়ান আর পাহাড়ি কুকুরের মিক্সড ব্রিড ছিল। নাম ছিল ‘বক্সি’। সোফার মতোই বড় ছিল ও। মা-বাবারা একটা ঘরে ছিল। আমরা ছোটরা অন্য রুমে ছিলাম। আমাকে দেখলেই বক্সি চেঁচিয়ে উঠছিল। আমি যাতে ভয় না পাই সেইজন্য আঙ্কল ওকে মাঝের একটা ঘরের জানলার সঙ্গে বেঁধে রেখেছিলেন।'

সেই সময় মাত্র সাড়ে চার বছর বয়স ছিল অভিনেত্রীর। রুক্মিণীর কথায়, ‘কোনও একটা কারণে মায়ের কাছে যাচ্ছিলাম। আমি যে-ই ঘর থেকে বেরোচ্ছি তখনই ও ঘেউ ঘেউ করতে করতে গলার বকলস ছিঁড়ে এসে আমার উপর দাঁড়িয়ে পড়ে। আমাকে ভালোবাসতে এসেছিল, না কামড়াতে এসেছিল জানি না। তবে আমি ওর দাঁতগুলো দেখতে পাচ্ছিলাম। বক্সি আমাকে কিছু করার আগেই আমি ওকে কামড়ে দিয়েছিলাম।’

বেশ হালকা সুরেই অভিনেত্রী বলেন, পরে এই বিষয় মায়ের কাছে খুব বকাও খেয়েছিলেন তিনি। গুনে গুনে ১৪টা ইনজেকশন নিতে হয়েছিল তাঁকে। সেই আঙ্কেল ফোন করে অভিনেত্রীর খোঁজ নিতেন নিয়ম করে। পাশাপাশি জানিয়েছিলেন কুকুরটা মারা গিয়েছে। তাই ছোট্ট রুক্মিণীকে সাবধানে থাকতে। নায়িকার মুখে এই গল্প শুনে, মজা করে দেবকেও সাবধানে থাকার পরামর্শ দিয়েছিলেন শাশ্বত চট্টোপাধ্যায়।

বন্ধ করুন