বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > Joyland banded in Pakistan: রূপান্তরকামীর সঙ্গে প্রেম! অস্কারের দৌড়ে শামিল ‘জয়ল্যান্ড’ নিষিদ্ধ পাকিস্তানে

Joyland banded in Pakistan: রূপান্তরকামীর সঙ্গে প্রেম! অস্কারের দৌড়ে শামিল ‘জয়ল্যান্ড’ নিষিদ্ধ পাকিস্তানে

পাকিস্তানে নিষিদ্ধ জয়ল্যান্ড

‘আপত্তিজনক’ ও ‘ইসলাম বিরুদ্ধ’ বিষয়বস্ত দেখানোয় পাকিস্তানে ব্যান ‘জয়ল্যান্ড’। অস্কার মনোনীত ছবিকে নিষিদ্ধ ঘোষণার জেরে তুমুল সমালোচনার মুখে প্রতিবেশি দেশ।

গেঁয়ো যোগী ভিখ পায় না! তেমনটাই ঘটছে পাকিস্তানি ছবি 'জয়ল্যান্ড' (Joyland)-এর সঙ্গে। পাক পরিচালক সইম সাদিকের এই ছবি সারা বিশ্বে সাড়া ফেলেছে আগেই। বুসান, কান-সহ বিশ্বের নামীদামী ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে প্রশংসা কুড়িয়েছে এই ছবি। অথচ মুক্তির ঠিক আগে পাকিস্তান নিষিদ্ধ ঘোষণা করল জয়ল্যান্ড'কে। আগামী ১৮ই নভেম্বর এই ছবির মুক্তির দিন নির্দিষ্ট ছিল। তার আগে পাক তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রক এই সিনেমাকে ব্যান করে দিল।

আশ্চর্যের বিষয় হল গত ১৭ই অগস্ট সে দেশের সেন্সার বোর্ড এই ছবিকে ছাড়পত্র দিয়েছিল। কিন্তু সম্প্রতি অভিযোগ উঠেছে, এই ছবির বিষয়বস্তু ‘ইসলাম বিরুদ্ধ’ এবং ‘আপত্তিজনক’। কোনওরকম বিতর্ক এড়াতে তড়িঘড়ি এই ছবিকে নিষিদ্ধ করে দিয়েছে সে দেশের সরকার। অথচ আগামী বছর অস্কারের মঞ্চে পাকিস্তানের প্রতিনিধিত্ব করবে এই ছবি।

তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রকের তরফে জানানো হয়েছে, এই ছবিতে ‘আপত্তিজনক বিষয়বস্তু রয়েছে’, পাশাপাশি ছবিটি ‘দেশের ঐতিহ্য ও সংস্কার বিরোধী’। কিন্তু কী এমন দেখানো হয়েছে এই ছবিতে, যাতে রক্ষণশীলদের চক্ষুশূল হতে হল ‘জয়ল্যান্ড’ নির্মাতাদের? ছবিতে উঠে আসে এক রক্ষণশীল, পুরুষতান্ত্রিক পরিবারের গল্প। বংশ মর্যাদা একমাত্র ছেলেরাই রক্ষা করতে পারে, এমন ধ্যান-ধারণা সেই পরিবারের। নতুন প্রজন্মের ছেলের জন্মের অপেক্ষায় সেই পরিবার, অথচ তাঁদের বাড়ির ছোট ছেলে গোপনে একটি ইরোটিক ডান্স থিয়েটারে যোগ দেয় এবং এক রূপান্তরকামী মহিলার প্রেমে পড়ে।

এই ছবিতে অভিনয় করেছেন সানিয়া সইদ, আলি জুনেজো, আলিনা খান, রাস্তি ফারুক, সলমন পীরজাদাসহ পাকিস্তানি সিনেমার নামীদামী তারকারা। মূলত পুরুষতন্ত্রের উপর আঘাত হানার জেরেই পাকিস্তানে নিষিদ্ধ হল সইমের এই ছবি।

প্রসঙ্গত জানিয়ে রাখি, কান চলচ্চিত্র উৎসবে নির্বাচিত প্রথম পাকিস্তানি ছবি ‘জয়ল্যান্ড’, পাশাপাশি সেখানে Un Certain Regard Jury Prize এবং Queer Palm award-এ সম্মানিত হয়েছে এই ছবি।

পাকিস্তানি সিনেমার ইতিহাসের এই বহুল আলোচিত ছবি সে দেশে নিষিদ্ধ হওয়ায় তুমুল সমালোচনার মুখে পাক সরকার। এই সিদ্ধান্তকে ‘একরোখা’ এবং 'অনৈতিক' বলে উল্লেখ করেছেন টু্ইটারের বাসিন্দারা। #ReleaseJoyland হ্যাশট্যাগ এখন ট্রেন্ডিং সেদেশে। অভিনেতা সরওয়াত গিলানি টুইটারে লেখেন- ‘ছয় বছর ধরে ২০০ জন পাকিস্তানি কষ্ট করে যে ছবি তৈরি করেছে, যে ছবি টরেন্টো থেকে কানস, কায়রো চলচ্চিত্র উৎসবে স্ট্যান্ডিং ওভেশন পেয়েছে সেই ছবিকে নিজের দেশ ব্যান করছে! হায় রে পোড়া কপাল’।

 

 

 

বন্ধ করুন