বাড়ি > বায়োস্কোপ > দু'বারের চেষ্টায় আত্মহত্যা সুশান্তের? খতিয়ে দেখছে মু্ম্বই পুলিশ
নতুন তথ্য পুলিশের হাতে  (AFP)
নতুন তথ্য পুলিশের হাতে  (AFP)

দু'বারের চেষ্টায় আত্মহত্যা সুশান্তের? খতিয়ে দেখছে মু্ম্বই পুলিশ

আত্মহননের জন্য শুরুতে একটি  কাপড়ের বেল্ট ব্যবহার করেন অভিনেতা, যেটা ছিন্নভিন্ন অবস্থায় মেঝেতে পেয়েছিল পুলিশ। 

সুশান্ত সিং রাজপুতের আত্মহত্যার মামলার তদন্তে নেমে বেশ কিছু প্রশ্নের মুখে মুম্বই পুলিশ। তাদের হাতে এসেছে নতুন তথ্য- আত্মহননের জন্য শুরুতে একটি যে কাপড়ের বেল্ট ব্যবহার করেন অভিনেতা, যেটা ছিন্নভিন্ন অবস্থায় মেঝেতে পেয়েছিল পুলিশ। একথাই জানা যাচ্ছে বিভিন্ন মিডিয়া রিপোর্ট থেকে। 

পরনের একটি কাপড়ের সাহায্যে আত্মহত্যা করেন সুশান্ত। পুলিশ খতিয়ে দেখছে যে সত্যি কি সেই কাপড়টির পক্ষে অভিনেতার শরীরের ভার বহন করা সম্ভব নাকি এইক্ষেত্রে কোনও ফাউল প্লের সম্ভাবনা রয়েছে। ইতিমধ্যেই সেটিকে কালিনা ফরেনসিক ল্যাবে পাঠানো হয়েছে তদন্ত এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য।

সেই কাপড়ের ধারণ ক্ষমতা কতখানি তা জানতে চায় মুম্বই পুলিশ। তাহলেই স্পষ্ট হবে সেটি সুশান্তের দেহের ওজন বইতে সক্ষম কিনা। পু্লিশের অনুমান সুশান্ত শুরুতে একটি কাপড়ের বেল্টের সাহায্যে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন। 

জি নিউজ সূত্রে খবর, পুলিশ সেদিন সুশান্তের ঘরে তার আলমারি খোলা অবস্থায় পায়, সেখানে আগোছালো জামাকাপড়ের মাঝে বেশ কিছু ইস্ত্রি করা কাপড় জামাও মজুত ছিল।

১৪ জুন বান্দ্রার অ্যাপার্টমেন্টে আত্মহত্যা করেন সুশান্ত সিং রাজপুত। গত ২৪ জুন অভিনেতার ময়নাতদন্তের চূড়ান্ত রিপোর্টে বলা হয়-  গলায় ফাঁস লাগার কারণেই দমবন্ধ হয়ে মৃত্যু হয়েছে অভিনেতার, আত্মহত্যাই করেছেন তিনি, এক্ষেত্রে অন্য কোন দিক নেই। রিপোর্টটি পাঁচ সদস্যের ডাক্তারি টিম খতিয়ে দেখেছে। তাদের চূড়ান্ত উপসংহার যে ওপর থেকে ঝুলে পড়ে শ্বাস আটকেই মারা গিয়েছেন ৩৪ বছরের এই অভিনেতা।তাঁর ভিসেরা সংরক্ষণ করে তা রাসায়নিক পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে। সেই রিপোর্টেরও অপেক্ষা করছে মুম্বই পুলিশ।

এই মামলায় ইতিমধ্যেই প্রায় ২৫ জনের বয়ান রেকর্ড করেছে পুলিশ। বিভিন্ন মিডিয়ায় সুশান্তের আত্মহত্যা নিয়ে যে সব জল্পনা করা হয়েছে, সেগুলিও পুলিশ খতিয়ে দেখবে বলে জানা যাচ্ছে। অন্যদিকে অভিনেতার মৃত্যুতে সিবিআই তদন্তের দাবি ক্রমেই জোরালো হচ্ছে। রূপা গঙ্গোপাধ্যায়,শেখর সুমনরা লাগাতার সোশ্যাল মিডিয়ায় এই মৃত্যুর সিবিআই তদন্তের দাবি জানাচ্ছেন।

বন্ধ করুন