বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > ইন্দ্রপুরী স্টুডিওতে ভৌতিক অভিজ্ঞতা! ঘুঙুর-হাসির আওয়াজ পেয়েছিলেন প্রসেনজিৎ
প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়।

ইন্দ্রপুরী স্টুডিওতে ভৌতিক অভিজ্ঞতা! ঘুঙুর-হাসির আওয়াজ পেয়েছিলেন প্রসেনজিৎ

  • জীবনের ভৌতিক অভিজ্ঞতা নিয়ে অকপট প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়।

টলিউড ইন্ডাস্ট্রি যাকে এক নামে চেনে, প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্য়ায়। আসলে তিনিই যে ‘ইন্ডাস্ট্রি’ নামে পরিচিত। দীর্ঘ অভিনয়ের কেরিয়ার জীবনে বিভিন্ন সময় নানা ওঠাপড়া, ভালো খারাপের সাক্ষী থেকেছেন তিনি। তেমনি সদ্য এক বৈদ্যুতিন সংবাদমাধ্য়মকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় তাঁর জীবনের ভুতুড়ে অভিজ্ঞতার কথা ফাঁস করেছেন। 

নিজের জীবনের ভৌতিক অভিজ্ঞতার গল্প বলতে গিয়ে অভিনেতা জানিয়েছেন, তাঁর মামাবাড়ি দমদমে। সেখানে ছোট বেলায় প্রচুর গল্প শুনতেন মামাবাড়িতে নাকি ভূত রয়েছে। তিনি নিজেও অস্বাভাবিক বেশ কিছু অনুভব করেছেন বলে জানিয়েছেন। 

এসব বলতে গিয়ে তিনি বলেন, 'একসময় কাজের জন্য ইন্দ্রপুরী স্টুডিওতে প্রায়ই রাতে থেকেছি। সবাই একটা বিশেষ ঘরের কথা বলত। সেই ঘর থেকে নাকি মেয়েদের শাড়ির আওয়াজ শোনা যায়, ঘুঙুর বাজে, পাওয়া যায় হাসির আওয়াজও। তখন এই ইন্দ্রপুরী ছিল না। একেবারে অন্যরকম ইন্দ্রপুরী। অনেক রাত্রে মেকআপ রুমে শুয়েছি আমি। এমন আওয়াজ আমিও অনুভব করেছি।'

গত দেড় বছর (পড়ুন করোনার প্রকোপের জন্য) শ্যুটিং ছাড়া থাকাটা তাঁর পক্ষে খুব কঠিন ছিল। তিনি এমনই একটা মানুষ, যে প্রায় ৪০ বছর ধরে শুধু শ্যুটিং করে আসছেন। এটার বাইরে তিনি আর কিছুই জানেন না, পারেনও না। গত দেড় বছরে শ্যুটিং ছেড়ে থাকার জন্য অনেকটা হতাশায় ভুগেছে বলে জানিয়েছেন বুম্বা দা। 

যদিও বর্তমানে নিজের শ্যুটিংয়ের কাজ নিয়ে দারুণ ব্যস্ত তিনি। প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্য়ায়ের আসন্ন ছবি ‘কাছের মানুষ’। প্রযোজনায় জিৎ। ছবিতে বুম্বা দা-কে দ্বৈত চরিত্রে অভিনয় করতে দেখা যাবে। তাঁর মেকআপে নেওয়া হয়েছে প্রস্থেটিকের সাহায্য। দ্বৈত চরিত্রের মধ্যে একটিতে হকারের চরিত্রে দেখা মিলবে অভিনেতার। সিনেমায় প্রসেনজিৎ-এর মেয়ের চরিত্রে অভিনয় করছেন দিতিপ্রিয়া রায়। ‘সুইৎজারল্যান্ড’ খ্যাত পরিচালক শৌভিক কুণ্ডুর আসন্ন ছবি ‘আয় খুকু আয়’।

 

 

বন্ধ করুন