বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > ‘চাই না এমন ভালোবাসা’, নোয়া-কিয়ানের অপমানে দর্শকদের উপর ক্ষুব্ধ 'রাজা' রাহুল
ক্ষুব্ধ রাহুল

‘চাই না এমন ভালোবাসা’, নোয়া-কিয়ানের অপমানে দর্শকদের উপর ক্ষুব্ধ 'রাজা' রাহুল

  • রাজা-মাম্পির প্রতি ভালোবাসা দেখাতে গিয়ে দর্শকরা কটূক্তি করছেন নোয়া-কিয়ানকে নিয়ে!
  • ‘এবার লিমিট ক্রস হচ্ছে..', সাফ জানালেন প্রতিবাদী রাহুল। 

‘দেশের মাটি’র সফর শুরুর পর থেকেই ধীরে ধীরে দর্শকদের ফেবারিট জুটি হয়ে উঠেছেন রাজা-মাম্পি। এই জুটির জনপ্রিয়তা ছাপিয়ে গিয়েছে কিয়ান-নোয়াকে, একথা অস্বীকার করবার জায়গা নেই। কিন্তু এই জনপ্রিয়তার জেরে অনেক সময়ই কটূক্তির মুখে পড়তে হয়েছে পর্দার নোয়া-কিয়ানদের। আক্রমণের মাত্রা অনেক সময় ব্যক্তিগত পরিসরে ঢুকে পড়েছে। এই নিয়ে এতদিন সেভাবে মুখ খোলেননি রাহুল, তবে মঙ্গলবার রাতে ফেসবুক পোস্টে কড়া ভাষায় একটা শ্রেণির দর্শকদের সতর্ক করলেন তিনি।

গত কয়েক মাস ধরেই নেটনাগরিকদের বড় অংশের দাবি, ‘দেশের মাটি’র সমস্ত আকর্ষণ কেড়ে নিয়েছে রাজা-মাম্পি। শ্রুতি-দেবজ্যোতিকে কটাক্ষ করে এমনও বলা হয়েছে, ‘তোমরা দেশের মাটির নায়ক-নায়িকা নও’। রুকমা এবং রাহুলকে ভালোবাসায় ভরিয়ে দিলেও ‘কিয়ান-নোয়া’র প্রতি একটু বেশিই আক্রমণাত্মক তাঁরা। মঙ্গলবার রাতে ব্যক্তিগত ফেসবুকের দেওয়ালে অভিনেতা রাহুল বন্দ্যোপাধ্যায় লেখেন, ‘অনেকদিন অনেক কিছু সহ্য করছি,কিন্তু রাজা-মাম্পি কে ভালোবাসার অর্থ যদি হয় আমার সহ অভিনেতা/অভিনেত্রীদের অপমান করা...রক্ষে করুন,চাই না এমন ভালোবাসা’। 

রাহুলের এই পোস্টে একদম উপরের দিকে জ্বলজ্বল করছে নোয়া মানে শ্রুতি দাসের মন্তব্য। অভিনেত্রী লিখেছেন, ‘তোমার মতো সহ অভিনেতা পাশে থাকলে অনেক কটূকথাও গা সওয়া করে নিতে ইচ্ছে হয়’। কিন্তু রাহুল না থেমে জানান, ‘এবার লিমিট ক্রস হচ্ছে’। পালটা অভিনেতাকে শান্ত হওয়ার আবেদন করেন শ্রুতি নিজে।

রাহুলের ফেসবুক পোস্ট
রাহুলের ফেসবুক পোস্ট

এত চট করে ভাঙন ধরানো সম্ভব নয়, ‘দেশের মাটি’ পরিবারে তা আগেও বহুবার সাফ করে দিয়েছেন শ্রুতি। মাসখানেক আগে ফেসবুকের দেওয়ালে অভিনেত্রী স্পষ্ট লিখেছিলেন, ‘আবার ও ক্রমাগত,নোয়া কে নায়িকা মানছি না মানব না মার্কা পোষ্টে আমার নিউজ ফিড নোংরা হচ্ছে। বয়কট স্টার জলসা, বয়কট দেশের মাটি -এসব আমায় শুনিয়ে খুব একটা আশানুরূপ ফল পাবেন বলে মনে হয়না। আমি নায়িকা হতে আসিনি,অভিনেত্রী হতে এসেছি। যিনি/যারা আমায় যথাযথ চরিত্র দিয়েছেন আমি তাঁর/তাঁদের প্রতি কৃতজ্ঞ। আর আমি নিজেকে নায়িকা বলে দাবীও করি না। তাই ‘TAG Shruti Das TO REACH OUR WORDS TO HER’ বলে জাস্ট কোনো লাভ নেই। সুস্থতা কামনা করি, পোষ্ট দিয়েও কোনো লাভ নেই জানি তবু আমি থামতে শিখিনি।'

পরে যদিও এই পোস্ট মুছে দেন শ্রুতি। তবে সময়ে-সময়ে ট্রোলারদের যোগ্য জবাব দিয়েই থাকেন তিনি।

বন্ধুত্বের মজবুত গাঁথনি রয়েছে ‘দেশের মাটি’ পরিবারে। ট্রোলারদের কটূক্তি সেই ভিত টলাতে পারবে না পরিষ্কার করে দিলেন রাহুল। কিন্তু রাহুলের এই পোস্টের পর দর্শকরা কি একটু বেশি সচেতন হবেন? নাকি একইরকমভাবে শ্রুতি আর দিব্যজ্যোতি জুটিকে নিয়ে কুমন্তব্য করে যাবেন! উত্তরটা সময়ই দেবে।

বন্ধ করুন