বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > শো-তে প্রকাশ্যে কাঁদতে বলা হয়েছিল, পাল্টা এই জবাব দিয়েছিলেন রবিনা ট্যান্ডন…
রবিনা ট্যান্ডন। (ছবি সৌজন্যে - টুইটার)
রবিনা ট্যান্ডন। (ছবি সৌজন্যে - টুইটার)

শো-তে প্রকাশ্যে কাঁদতে বলা হয়েছিল, পাল্টা এই জবাব দিয়েছিলেন রবিনা ট্যান্ডন…

  • কেরিয়ারের মধ্যগগনে পর্দায় ও ব্যক্তিগত জীবনে বিভিন্ন কারণের জন্য বহুবার খবরের শিরোনামে এসেছেন রবিনা ট্যান্ডন।

মঙ্গলবার ২৬ অক্টোবর ৪৭-এ পা রাখলেন রবিনা ট্যান্ডন। কেরিয়ারের মধ্যগগনে পর্দায় ও ব্যক্তিগত জীবনে বিভিন্ন কারণের জন্য বহুবার খবরের শিরোনামে এসেছেনএকসময়কার বলিপাড়ার এই 'বম্বশেল' পর্দায় তাঁর দক্ষ অভিনয়, লাস্যময়ী আবেদন ও চাবুক চেহারার সৌন্দর্যে যেমন বুঁদ হয়ে থাকত দর্শক তেমনই রিয়েল লাইফে 'মোহরা'-র নায়িকার দৃপ্ত ব্যক্তিত্ব ও ভেঙে না পড়া মানসিকতা অকুন্ঠ তারিফ কুড়িয়েছিল মানুষের। বলি-সুন্দরীর সেই মানসিকতার পরিচয় ফুটে বেরিয়েছিল একসময়কার ছোটপর্দার বিখ্যাত সেলিব্রেটি চ্যাট শো 'রঁদেভু উইথ সিমি গারেওয়াল'-এও।

ওই চ্যাট শো-তে সঞ্চালক সিমিকে গল্প আড্ডার ফাঁকে নিজের ব্যক্তিগত জীবনের নানান কিসসা শেয়ার করেছিলেন রবিনা। তার মধ্যে ছিল সম্পর্ক ভেঙে যাওয়ার মতো একান্ত ব্যক্তিগত সব কথাও। পাশাপাশি এও জানিয়েছিলেন কেন বলিউড থেকে বিরতি নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন তিনি। স্বভাবতই নিজের ব্যক্তিগত জীবনের নানান গোপন কথা বলাকালীন খানিকটা আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েছিলেন নব্বইয়ের দশকের এই বলিউড কাঁপানো সুন্দরী। বিশেষ করে ব্যক্তিগত জীবনে নিজের প্রেমের সম্পর্ক ভেঙে যাওয়ার মতো বলতে গিয়ে মাঝে চুপও করে গেছিলেন। সেইসময় শো-এর সঞ্চালক সিমি তাঁকে বলেন যে যদি তিনি কাঁদতে চান তাহলে কোনওরকম দ্বিরুক্তি ছাড়াই তা তিনি যেন করেন। অর্থাৎ অকারণে চোখের জল আটকে রাখার বিন্দুমাত্র প্রয়োজন নেই। তবে সিমির তরফে এহেন আশ্বাস শুনেও ভেঙে পড়েননি রবিনা। সরাসরি খারিজ করেছিলেন সিমির সেই প্রস্তাব।

'রঁদেভু উইথ সিমি গারেওয়াল'-এ রবিনা ট্যান্ডন। (ছবি সৌজন্যে - হিন্দুস্তান টাইমস)
'রঁদেভু উইথ সিমি গারেওয়াল'-এ রবিনা ট্যান্ডন। (ছবি সৌজন্যে - হিন্দুস্তান টাইমস)

২০১১ সালে এই চ্যাট শো সম্পর্কে ওই ঘটনার কথা 'আই ডিভা'-কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে জানিয়েছিলেন রবিনা স্বয়ং। অভিনেত্রীর কথায়, 'সিমি চাইছিল দর্শকদের আমার নরম মনের পরিচয় করাতে। তা বুঝতে পি[এরই সরাসরি খারিজ করেছিলাম আমি'। অভিনেত্রীর যুক্তি, 'কেন আমি প্রকাশ্যে ভেঙে পড়ব? কেন অকারণে জনসমক্ষে নিজের দুর্বলতা প্রকাশ করব? এমনিতে আমি যথেষ্ট শক্ত ধাতের মানুষ। কষ্ট হলেও লোকজনের সামনে চট করে কখনওই তা প্রকাশ করি না আমি'। নিজের বক্তব্যে শেষে তাঁর সংযোজন, ' মানুষ হিসেবে আমি একটু গোপনীয়তা পছন্দ করি। যতবারই কষ্ট পেয়েছি, মনে আঘাত লেগেছে তা একমাত্র নিজের পরিবারের কাছে প্রকাশ করেছি। তাঁরাই আমাকে সামলেছে। তাঁদের কাছেই একমাত্র নিজেকে উজাড় করে প্রকাশ করেছি আমি'।

বন্ধ করুন