বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > অর্ণব গোস্বামীর বিরুদ্ধে টাকা দিয়ে TRP বৃদ্ধির অভিযোগ মুম্বই পুলিশের, সাংবাদিক টানলেন সুশান্ত যোগ
টাকা দিয়ে টিভির রেটিং বাড়ানোর অভিযোগ অর্ণব গোস্বামীর বিরুদ্ধে 
টাকা দিয়ে টিভির রেটিং বাড়ানোর অভিযোগ অর্ণব গোস্বামীর বিরুদ্ধে 

অর্ণব গোস্বামীর বিরুদ্ধে টাকা দিয়ে TRP বৃদ্ধির অভিযোগ মুম্বই পুলিশের, সাংবাদিক টানলেন সুশান্ত যোগ

  • স্থানীয় দুই চ্যানেল সহ রিপাবলিক নেটওয়ার্কের বিরুদ্ধে টিআরপি রেটিংয়ে হেরফেরে অভিযোগ। গ্রেফতার করা হয়েছে স্থানীয় দুই চ্যানেলের মালিকদের। 

সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যু মামলার তদন্ত নিয়ে মুম্বই পুলিশের সঙ্গে প্রকাশ্যে বিতর্কে জড়িয়েছেন রিপাবলিক মিডিয়া নেটওয়ার্কের এডিটর ইন চিফ অর্ণব গোস্বামী।  বর্তমানে টিআরপি তালিকায় দেশে শীর্ষে থাকা এই নিউজ চ্যানেলের বিরুদ্ধে বৃহস্পতিবার ভুয়ো টিআরপি রেটিং ব়্যাকেটে জড়িত থাকার অভিযোগ আনলেন স্বয়ং মুম্বই পুলিশ কমিশানার পরমবীর সিং। এদিন সাংবাদিক বৈঠকে মুম্বই পুলিশের সর্বময় কর্তা জানান মুম্বইয়ের দুটি স্থানীয় চ্যানেল এবং রিপাবলিক টিভি এই ভুয়ো টিআরপি রেটিং ব়্যাকেটে যুক্ত। বার্কের কাছ থেকে পাওয়া অভিযোগের ভিত্তিতে গত দু-দিনের তদন্তে এই তথ্য উঠে এসেছে মুম্বই ক্রাইম ব্রাঞ্চের হাতে। এই দুই স্থানীয় চ্যানেলের কর্ণধারকে ইতিমধ্যেই গ্রেফতার করেছে পুলিশ। যাঁদের আগামি ৯ অক্টোবর পর্যন্ত পুলিশ কাস্টডিতে পাঠানো হয়েছে।

এর কয়েক মিনিটের মধ্যেই পালটা জবাব দেন অর্ণব। তিনি বলেন সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যু মামলার কভারেজের জেরেই নাকি এহেন উদ্যোগ নিচ্ছে মুম্বই পুলিশ। এখানেই থেমে থাকেননি তিনি, মুম্বই পুলিশ কমিশনারের বিরুদ্ধে অপরাধমূলক মানহানির মামলা দায়ের করার হুমকিও দেন তিনি। গোস্বামী বলেন- ‘ওঁনার উচিত অবিলম্বে জনসমক্ষে আমাদের কাছে  ক্ষমা প্রার্থনা করা, না হলে উনি আদালতে আমাদের মুখোমুখি হতে তৈরি থাকুন’। 

মুম্বই পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে ব্রডকাস্ট অডিয়েন্স রিসার্চ কাউন্সিল (BARC) এর তরফে নিযুক্ত ফার্ম হানসার তরফে অভিযোগ জমা পাওয়ার পরেই তদন্তে নামে পুলিশ। কান্দিওয়ালি পুলিশ থানায় এই মামলা দায়ের করা হয়েছে। টিআরপির রেটিং নির্ভরশীল দেশের প্রায় ত্রিশ হাজার বাড়িতে লাগানো মেসারমেন্ট মিটারের উপর, যার মধ্যে প্রায় ২ হাজার মিটার বসানো রয়েছে শুধুমাত্র মুম্বই শহরে। যদিও যেহেতু এই ডাটা অত্যন্ত গোপনীয়- তাই কোন কোন বাড়িতে সেই মিটার বসানো আছে সেই তথ্য কাউকেই দেওয়া হয় না। 

যদিও কোনওভাবে সেই তথ্য ফাঁস হয়ে গিয়েছে। এবং যে সব বাড়িতে টিআরপি মাপার যন্ত্র বসানো রয়েছে তাঁদের টাকা দেওয়া হচ্ছে সংশ্লিষ্ট চ্যালেন কর্তৃপক্ষের তরফে। তদন্তে নেমে মুম্বই পুলিশ জানতে পরেছে যে পরিবারের কেউ শিক্ষিত নয়, সেই বাড়িতেও সারাক্ষণ একটি ইংরাজি নিউজ চ্যালেন চলছে। প্রত্যেক পরিবার পিছু নাকি মাস প্রতি ৪০০-৫০০ টাকা করে দেওয়া হচ্ছে টিআরপি বাড়ানোর জন্য, দাবি মুম্বই পুলিশ কমিশনারের। 

রিপাবলিক টিভি ছাড়া আর দু'টি স্থানীয় চ্যানেল হল ফাকত মারাঠি (Fakt Marathi) এবং বক্স সিনেমা (Box Cinema)। আজ অথবা আগামিকাল সমন পাঠানো হবে রিপাবলিক টেলিভিশন চ্যানেল কর্তৃপক্ষকে। এই টেলিভিশন নেটওয়ার্কের ডিরেক্টর থেকে শুরু করে প্রমোটাররা সকলেই নজরদারিতে রয়েছেন জানান পরমবীর সিং। শীঘ্রই এই চ্যানেলের বেশকিছু কর্মীকে ডেকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে, জানান তিনি। এর আগেও কিছু নিউজ চ্যানেল প্রোপাগ্যান্ডায় যুক্ত ছিল , তবে ফেক টিআরপির বিষয়টি সাম্প্রতিক তদন্তে উঠে এসেছে। যেহেতু প্রত্যেক টেলিভিশনের বিজ্ঞাপন থেকে প্রাপ্ত আয়ের অনেকখানি নির্ভারশীল টিআরপির উপর, তাই এই মালায় কোটি কোটি টাকা তছরুপের বিষয় জড়িতে থাকতে পারে বলে আশঙ্ক্ষা পুলিশের।

নিজেদের সাংবাদিকতার মধ্যমে মহারাষ্ট্র সরকারকে আক্রমণ শানানোর জেরেই নাকি রিপাবলিকের নাম বদনাম করার চেষ্টা করছে মুম্বই পুলি্শ, অভিযোগ অর্ণব গোস্বামীর। তিনি জানান, ‘বার্কের অভিযোগে কোথাউ রিপাবলিকের কোনও নাম নেই, ভারতের মানুষ আসল সত্যিটা জানেন’। 

এই মামলায় হানসা ফার্মের দুই প্রাক্তন কর্মচারীকেও গ্রেফতার করেছে মুম্বই পুলিশ।যাঁদের একজনের বাড়ি থেকে ২০ লক্ষ নগদ টাকা এবং অপরজনের কাছ থেকে ৮ লক্ষ নগদ টাকা উদ্ধার করেছে পুলিশ। জেরায় পুলিশকে তারা জানিয়েছে তাঁদের কিছু চ্যানেলের তরফে টাকা দেওয়া হয়েছিল যে সব বাড়িতে barometers লাগানো রয়েছে তাঁদের টাকা দিয়ে টিআরপি রেটিংয়ে হেরফের করানোর জন্য। 

ইতিমধ্যেই এই তদন্তের বিষয়ে যাবতীয় তথ্য কেন্দ্রীয় তথ্য-সম্প্রচার মন্ত্রক ও ট্রাইয়ের সঙ্গে ভাগ করে নেওয়া হয়েছে বলে জানান মুম্বই পুলিশ কমিশনার।

বন্ধ করুন